আবুল কালাম আজাদ (গাইবান্ধার রাজনীতিবিদ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মো. আবুল কালাম আজাদ
Abul Kalam Azad MP 32.jpg
গাইবান্ধা-৪ আসনের
সংসদ সদস্য
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
জানুয়ারি ২০১৪
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1958-08-23) আগস্ট ২৩, ১৯৫৮ (বয়স ৬১)
গাইবান্ধা, বাংলাদেশ
নাগরিকত্ববাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশ
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
সন্তান
শিক্ষাস্নাতকোত্তর
পেশাঅধ্যাপনা, ব্যবসা ও কৃষি

মো. আবুল কালাম আজাদ (২৩ আগস্ট ১৯৫৮) বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ এবং গাইবান্ধা-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য। তিনি ২০১৪ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।[১]

জন্ম ও শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

তিনি ১৯৫৮ সালের ২৩শে আগষ্ট গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার গুমানীগঞ্জ ইউনিয়নের পার্বতীপুর (ভাটগ্রাম) গ্রামের সম্ভান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম কাজেম উদ্দিন সরকার এবং তিনি পেশায় একজন শিক্ষক ছিলেন। তার মাতার নাম আম্বিয়া বেগম এবং তিনি একজন গৃহিনী ছিলেন। চার ভাইবোনের মধ্যে তিনি তৃতীয়।

আবুল কালাম আজাদ ১৯৭৪ সালে ফুলপুকুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করেন। ১৯৭৮ সালে রাজশাহী নিউ গভঃ ডিগ্রী কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮১ সালে বিএসসি (অনার্স) এবং ১৯৮৩ সালে স্নাতকোত্তর (ভূগোল) সম্পন্ন করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

আবুল কালাম আজাদ ১৯৮১ সালে ফুলপুকুরিয়া সবুজ সমিতি প্রতিষ্ঠা করেন এবং সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯০ সালে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা রাজমিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়ন প্রতিষ্ঠা করেন এবং সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯২ সালে অগ্নিবীণা সংগীত নিকেতন ও সমাজ উন্নয়ন সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেন এবং দীর্ঘ সময় নির্বাহী পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৩ সালে গোবিন্দগঞ্জ ক্রীড়া সংস্থার কোষাধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৫ সালে ফুলপুকুরিয়া কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন এবং অধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৬ সালে প্রফেসর্স ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেন এবং আহবায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৯ সালে মহিমাগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৯ সালে শহরগছি মডেল বিদ্যালয় ও মহিলা কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১১ সালে নওগাঁ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১২ সালে গোবিন্দগঞ্জ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৩ সালে বরকত উল্লাহ বালিকা বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৪ সালে গোবিন্দগঞ্জ কলেজের গভনিং বডির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৪ সালে গোবিন্দগঞ্জ মহিলা কলেজের গভনিং বডির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৪ সালে কামদিয়া নুরুল হক কলেজের গভনিং বডির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৫ সালে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৬ সালে মরহুম কাজেম উদ্দিন সরকার এতিমখানা প্রতিষ্ঠা করেন। ২০১৬ সালে মহিমাগঞ্জ আলিয়া (কামিল) মাদরাসার গভনিং বডির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৬ সালে বাংলাদেশ কভার্ড ভ্যান ট্রাক পন্য পরিবহন মালিক এসোসিয়েশনের কার্যকরী সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

আবুল কালাম আজাদ ১৯৭২ সালে ছাত্রলীগ (অবিভক্ত) গোবিন্দগঞ্জ ফুলপুকুরিয়া অঞ্চলের সদস্য হিসাবে যোগদান করেন। ১৯৭৩ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ গোবিন্দগঞ্জ থানা শাখার সহ-সাধারন সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৬ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জাসদ) শাখার সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮০ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (বাসদ) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহবায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮০ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (বাসদ) কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (বাসদ) কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৬ সালে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৪ সালে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) গাইবান্ধা জেলা শাখার সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। ১৯৯৭ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গাইবান্ধা জেলা শাখার সদস্য হিসাবে অন্তর্ভুক্ত হন। ২০০৮ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখার সদস্য হিসাবে অন্তর্ভুক্ত হন। ২০১৬ সালে থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

আবুল কালাম আজাদ ১৯৮৮ সালে প্রথমবারের মত গুমানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ১৯৯২ সালে দ্বিতীয়বারের মত গুমানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ১৯৯৪ সালে গোবিন্দগঞ্জ ইউসিসি (বিআরডিবি)এর সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০০৪ সালে গোবিন্দগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন। ২০০৯ সালে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালে নির্বাচনী আসন গাইবান্ধা-৪ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৪ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৫ সালে ঢাকা শহর যানজট নিরসন বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. মো. আবুল কালাম আজাদ, গাইবান্ধা-৪। "Constituency 32_10th_Bn"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২৩ 

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]