আনন্দচন্দ্র বেদান্তবাগীশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

আনন্দচন্দ্র বেদান্তবাগীশ ঊনবিংশ শতাব্দীর কলকাতা কেন্দ্রিক ব্রাহ্মসমাজ-এর একজন নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিত্ব। তাঁর জন্ম ১৮৪৯ খ্রিস্টাব্দে। নানা বিষয়ে অগাধ জন্য তাকে “পণ্ডিত আনন্দচন্দ্র” ব’লে সম্বোধন করা হতো। তিনি তত্ত্ববোধিনী সভা এবং বাহ্মসমাজ নানা সাংগঠনিক কাজে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতেন। তিনি অনুবাদ এবং সম্পাদকতার জন্য বিখ্যাত হয়েছিলেন। সোমদেব-এর দুই খণ্ড বৃহৎকথা তিনি বাংলা গদ্যে অনুবাদ বরেন। উল্লেখ্য যে এই অনুবাদকালে তিনি মূল কাহিনীর অশ্লীল ও অপ্রাকৃত ঘটনাবলী বর্জন করেন। তিনি শকুন্তলাও বাংলায় অনুবাদ করেছেন।তার গদ্য ছিল প্রাঞ্জল ওবং সহজবোধ্য। রামমোহন রায়ের দুর্লভ রচনাসমূহ তিনি সংগ্রহ করেন এবং গ্রন্থাকারে প্রকাশ করেন। ১৮৭৫ খ্রিস্টাব্দে তিনি পরলোক গমন করেন।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের অভিধান, সম্পাদক: বীতশোক ভট্টাচার্য, প্রকাশক: বাণী শিল্প, কলকাতা। প্রথম সংস্করণ ১৯৮৩, পৃষ্ঠা: ৭৩।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]