আদা ফুল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আদা ফুল
Red Ginger.jpg
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস e
অপরিচিত শ্রেণী (ঠিক করুন): Alpinia
প্রজাতি: A. purpurata
দ্বিপদী নাম
Alpinia purpurata
কার্ল মরিটস শিউম্যান

আলপিনিয়া পুরপুরাতা , লাল আদা , অস্ট্রিচ ফ্লেম এবং গোলাপী শঙ্কু আদা নামেও পরিচিত। দীর্ঘ উজ্জ্বল রঙের লাল মঁজরীপত্র শোভী ফুল । স্থানীয় মালয়েশিয় উদ্ভিদ। ফোটা ফুলের মত দেখতে, কিন্তু আসলে ফুলটি ছোট ছোট সাদা ফুল।

এটির জঙ্গল রাজা এবং জঙ্গল রানী নামে প্রজাতি আছে।

প্রাপ্তি স্থান[সম্পাদনা]

লাল আদা হাওয়াই , ত্রিনিদাদ , গ্রেনাডা , সেন্ট লুসিয়া , পানামা , ডোমিনিকা , সেন্ট ভিনসেন্ট ,ইন্দোনেশিয়া, মার্টিনিক , গুয়াডেলুপ , পুয়ের্তো রিকো , সুরিনামে (যেখানে ডাচ নাম 'বোকেপুট', বিলি-ছাগলের পা) এবং বেলিজ সহ অনেক কেন্দ্রীয় আমেরিকান দেশে পাওয়া যায়। এছাড়া পাওয়া যায় সামোয়াতে , যেখানে এটি জাতীয় ফুল, এবং স্থানীয় নাম তেউইলা (teuila)।[১]

দক্ষিণ ফ্লোরিডাতে ও লাল আদা চাষ করা যেতে পারে। সাধারণত, অঞ্চলটির তাপমাত্রা হিমায়িত তাপমাত্রার নিচে নামে না। এটি আংশিক ছায়া এবং আর্দ্র অবস্থা পছন্দ করে। যদিও এটি কিছু জলবায়ুতে পূর্ণ সূর্যকে সহ্য করতে পারে। এটি বেশি জল দিতে হয় ।

ব্যবহার[সম্পাদনা]

লাল আদা হাউসপ্লান্ট হিসাবেও বাড়তে পারে এবং এর কাটা ফুলগুলি সাজানোতে ব্যবহার করা যেতে পারে।

আদার পাশাপাশি এই ফুলও মসলা হিসেবে ব্যবহার করা হয়। বৈজ্ঞানিক নাম Etlingera elatior, যা ইন্দোনেশিয়ায় বুঙ্গা কেকোমব্রাঙ্গ নামে পরিচিত। মাছের তরকারি রান্না করতে এই ফুল ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আবার মরিচের সস/সাম্বল তৈরিতে এবং সালাদেও এটি ব্যবহার করা হয়।

গ্যালারি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "আদা ফুল - পেজ [1] - বিশ্ব বিশ্বকোষীয় জ্ঞান"bn.swewe.net। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৪-০৮ 

বাহ্যিক লিঙ্ক[সম্পাদনা]