অ্যামি লি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অ্যামি লি
Amy Lee in São Paulo 2.jpg
প্রাথমিক তথ্য
জন্ম নামঅ্যামি লাইন লি
উদ্ভবলিটল রক, আর্কান্সাস, আমেরিকা
ধরনঅল্টারনেটিভ মেটাল
পেশাসঙ্গীতশিল্পী, গায়িকা, গানলেখিকা, পিয়ানোবাদক
বাদ্যযন্ত্রসমূহভোকাল, পিয়ানো, অরগান
কার্যকাল১৯৯৫-বর্তমান
লেবেলউইন্ড-আপ রেকর্ডস
সহযোগী শিল্পীইভানেসেন্স
ওয়েবসাইটwww.Evanescence.com

অ্যামি লাইন হার্টজলার একজন আমেরিকান গায়িকা, সঙ্গীত রচয়িতা ও ক্ল্যাসিক্যাল পিয়ানোবাদক যার জন্ম ১৯৮১ সালের ১৩ই ডিসেম্বর। তিনি সহকারী প্রতিষ্ঠাতা ও মূল গায়িকা রক ব্যান্ড ইভানেসেন্স-এর। তার সঙ্গীত ভুবনের অণুপ্রেরণা হলেন মোজার্ট থেকে আধুনিক কালের বজর্ক, টরি আমোস, ড্যানি ইলফ ম্যান[১] ও প্লাম্ব।[২]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

তার বাবা জন লি ছিলেন একজন ডিস্ক জকি ও টেলিভিশন ব্যাক্তিত্ব ও মার নাম ছিল সারা কারগিল। ক্যারি ও লরি নামের তার দুইজন বোন ছিল ও রবি নামের একজন ভাই ছিল।একটি দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত হয়ে ১৯৮৭ সালে তার একটি ছোট বোন ৩ বছর বয়সে মারা যায়।[৩] হ্যালো গানটি যা ফলেন অ্যালবামের ও দ্যা ওপেন ডোর অ্যালবামের লাইক ইউ গান দু’টি তার বোনকে উদ্দেশ্য করে লেখা হয়।[৪] তিনি নয় বছর ধরে পিয়ানো শেখেন। তার পরিবার নানা স্থানে ভ্রমণ করে ফ্লোরিডা থেকে ইলিনোয়িস পর্যন্ত এবং আরকানাসের লিটল রকে তারা স্থায়ী হয়।[৫] তিনি মিডল টেনিসি স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ে গানের তত্ত্ব ও গঠন সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত শিক্ষা লাভ করেন এবং পরে ইভানেসেন্স ব্যান্ডে মনোযোগ দিতে গিয়ে পড়াশোনার ইতি টানেন।[৬]

ফ্লোরিডার মিয়ামীতে ২০০৭ সালে অ্যামি লি

বাগদান ও বিয়ে[সম্পাদনা]

মাচ মিউজিক নামের একটি সরাসরি গানের অনুষ্ঠানে ২০০৭ সালের ৯ই জানুয়ারি তিনি স্বীকার করেন আগের দিন তিনি বাগদান সেরে ফেলেছেন। জোস হার্টজলার নামের একজন থেরাপিস্ট ও দীর্ঘদিনের বন্ধু তাকে প্রস্তাব করেন।[৭] পরে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন যে গুড এ্যানাফ ও ব্রিং মি টু দ্যা লাইফ গান ২টি তাকে উদ্দেশ্য করে করা হয়েছে।[৮] ৬ই জানুয়ারি ২০০৭ সালে তারা বিয়ে সম্পন্ন করেন ও তাদের মধুচন্দ্রিমা সম্পন্ন হয় বাহামা দ্বীপ পুঞ্জের কাছে।[৯] পরে তিনি বলেন এখন তিনি দাপ্তরিকভাবে মিসেস অ্যামি হার্টজলার।[১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Interview with Evanescence singer Amy Lee" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৪ নভেম্বর ২০০৬ তারিখে. gURL.com. Retrieved 2006-11-07.
  2. Farias, Andree (2006-04-10). "Pre-Evanescence". Christianity Today (Christianity Today International). Retrieved 2006-11-07.
  3. Odell, Michael (April 2004)."Survivor!" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৪ এপ্রিল ২০১০ তারিখে. Blender magazine. Retrieved 2006-10-18.
  4. "Evanescence: Amy Lee Explains the New Songs". VH1.com. 2006-10-08.
  5. "Amy's bio". OutoftheShadows.com. Retrieved 2006-11-07.
  6. Morse, Steve (May 23, 2003). "Evanescence is No Disappearing Act". The Boston Globe.
  7. "www.evthreads.com/showpost"। ২৮ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১৮ 
  8. Amy Lee: Back in Black
  9. Evanescence Singer Amy Lee Gets Married
  10. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২ সেপ্টেম্বর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]