বিষয়বস্তুতে চলুন

অ্যাথলেটিক্স উইকলি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অ্যাথলেটিক্স উইকলি
অ্যাথলেটিকস উইকলি মাস্টহেড
সম্পাদকজেসন হেন্ডারসন
বিভাগট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড
প্রকাশনা সময়-দূরত্বসাপ্তাহিক
প্রকাশকঅ্যাথলেটিকস উইকলি লিমিটেড
প্রতিষ্ঠার বছর১৯৪৫
প্রথম প্রকাশডিসেম্বর ১৯৪৫
দেশযুক্তরাজ্য
ভাষাইংরাজী
ওয়েবসাইটঅ্যাথলেটিক্স উইকলি
আইএসএসএন০০০৪-৬৬৭১

অ্যাথলেটিক্স উইকলি একটি ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড সংক্রান্ত সাপ্তাহিক পত্রিকা।

অ্যাথলেটিকস উইকলি লিমিটেড দ্বারা যুক্তরাজ্য থেকে প্রকাশিত এই পত্রিকায় ট্র্যাক এবং ফিল্ড, ক্রস-কান্ট্রি, রোড রেসিং দৌড় এবং রেস ওয়াকিং সংক্রান্ত যাবতীয় সংবাদ, ফলাফল, ফিক্সচার, কোচিং এবং পণ্য পরামর্শ পরিবেশিত হয়।

জিমি গ্রিন বছর (১৯৪৫ থেকে ১৯৪৭)[সম্পাদনা]

১৯৪৫ সালে পিডব্লিউ "জিমি" গ্রিন মাসিক পত্রিকা হিসাবে এর সূচনা করে ছিলেন। কেন্টের একটি বাংলোর পিছনের শয়নকক্ষ থেকে প্রথম কয়েকটি প্রকাশিত সংখ্যা উৎপাদিত হয়েছিল। সেখানে গ্রিন তাঁর স্ত্রী পামের সাথে বাস করতেন।

যুদ্ধ-পরবর্তী সময়ে কাগজ রেশনিং তখনও কার্যকর থাকায় গ্রিন দৃঢ় সংকল্প এবং চালাকির আশ্রয়ে তাঁর প্রথম স্ব-প্রকাশিত সংস্করণ চালু করতে সক্ষম হয়েছিলেন। এটিকে দ্বিতীয় খণ্ডের প্রথম সংখ্যা হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছিল। এতে যুদ্ধের আগে পত্রিকাটির অস্তিত্ব ছিল এটা বুঝিয়ে সরকারকে বোকা বানানোর ইচ্ছাকৃত ত্রুটি রাখা হয়েছিল। অবশ্যই পত্রকাটির প্রথম খণ্ড কখনই ছিল না।

গ্রিনকে অ্যাথলেটিকস এবং প্রকাশনা বিশেষজ্ঞরাও বলেছিলেন যে তাঁর ধারণাটি কখনই কার্যকর হবে না। গ্রিন বলেছিলেন, “আমি তাঁদের পরামর্শের জন্য তাঁদের ধন্যবাদ জানাই এবং এটিকে সম্পূর্ণ উপেক্ষা করেছি"। গ্রিনের পত্রিকাটি ১৯৫০ সালের জানুয়ারিতে সাপ্তাহিক হিসাবে শুক্রবারে প্রকাশিত হয়েছিল এবং তারপর থেকে তা প্রকাশিত হতে কখনই ব্যর্থ হয় নি।

১৯৬৮ সালে গ্রিন (যিনি ১৯৯৮ সালে ৮৮ বছর বয়সে মারা গিয়েছিলেন) সম্পাদনার দায়িত্বটি উৎসাহী এবং জ্ঞানী মেল ওয়াটম্যানের কাঁধে চাপিয়ে দেন। ইনি তাঁর প্রায় ২০ বছরের কার্যকালে কিছুটা সাফল্যের সাথে খেতাবটি বহন করে চলেছিলেন এবং যথার্থতা ও কর্তৃত্বের সাথে খ্যাতি অর্জন অব্যাহত রেখেছিলেন।

কেন্ট আর্ট প্রিন্টার্স দ্বারা স্বতন্ত্রভাবে একটি পৃথক এ৫ পকেট-আকারের সংস্করণে পত্রিকাটি প্রকাশিত হতে থাকে এবং ১৯৮০ এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছোয়। ১৯৮১ সালে প্রথম লন্ডন ম্যারাথন এর পরে ম্যারাথন দৌড়ের সাথে তাল রেখে পত্রিকাটি প্রতি সপ্তাহে প্রায় ২৫,০০০ কপি বিক্রি হয়েছিল।

ইম্যাপ বছর (১৯৮৭ থেকে ১৯৯৯)[সম্পাদনা]

১৯৮৭ সালে শিরোনামটি ইম্যাপ ক্রয় করে এবং কেন্ট থেকে পিটারবার্গ এ স্থানান্তরিত হয়। সেখানে পরিচালনবর্গ জনপ্রিয় শিরোনামের প্রকাশনাটির সাফল্যের পুনরাবৃত্তি ঘটান এবং কিশোরদের লক্ষ্য রেখে এ৪ আকারে এডব্লিউ পুনরায় চালু করার চেষ্টা করেন।

ইম্যাপের কিছু ব্যবসায়িক সিদ্ধান্তের কারণে পণ্যের মান হ্রাস পায় এবং পত্রিকার সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়। প্রথমত পূর্ববর্তী সম্পাদকীয় কর্মীদের ইম্যাপে আনা হয়নি। ফলে তাঁদের অভিজ্ঞতা এবং অভ্যন্তরীণ সংযোগগুলি হারিয়ে যায়। এর উপরে অনভিজ্ঞ সম্পাদকীয় দলটিকে বুধবারে প্রকাশনার তারিখের সাথে মোকাবিলা করতে হচ্ছিল যাতে প্রয়োজন হচ্ছিল সপ্তাহান্তের দ্রুত এবং ব্যয়বহুল কাজগুলি সেরে ফেলা যা সামাল দিতে তাঁদের সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। এই সিদ্ধান্তগুলির ফলে লাভজনক গ্রাহকসদস্য হারিয়ে গিয়ে পত্রিকাটির বিক্রিবাটাও গোঁত্তা খেয়ে পড়ে। ১৯৮৯ সালের শেষের দিকে পত্রিকার বিক্রি এক তৃতীয়াংশ হারিয়ে যায় এবং সম্পাদক হিসাবে ইম্যাপের পছন্দ কীথ নেলসনকে সরানো হয়।

অ্যাথলেটিক্স উইকলি এর পুনঃপ্রকাশের সাথে সাথে ঐ পত্রিকার অনুগত অনুসারীদের অসন্তুষ্টি সম্পর্কে সচেতন এডি কুলুকুন্ডিস ১৯৮৯ সালে রেন্ডাল নর্থহাম এবং মেল ওয়াটম্যানের যৌথ সম্পাদনায় আত্মপ্রকাশ ঘটান অ্যাথলেটিক্স টুডে নামের পত্রিকা। এই প্রথমবারের মতো অ্যাথলেটিক্স উইকলিপ্রতিযোগিতার মুখোমুখি হল।

১৯৯০-এর দশকে এই খেলার ক্রমাগত সাফল্যে এবং ১৯৯৩ সালে তার প্রতিদ্বন্দ্বীর চূড়ান্ত অবসান হওয়া সত্ত্বেও অ্যাথলেটিক্স উইকলি -কে তার ব্যাপকতা এবং নির্ভুলতার জন্য যে সুখ্যাতি ছিল তা ফিরে পেতে ব্যর্থ সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হচ্ছিল।

আরও কিছু হাত ফেরতার পর ২০১০ সালের মে মাসে পত্রিকার মালিকানা প্রকাশক রিচার্ড হিউজেসের সাথে তাঁর একটি নতুন সংস্থা "অ্যাথলেটিক্স উইকলি লিমিটেড" এর কাছে চলে যায়।[১] ২০১৫ সালে পত্রিকাটিকে দ্য গ্রেট রান সংস্থা কিনে নেয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Athletics Weekly (২০১০), Athletics Weekly now under new management, সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৫-০৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]