অনিতা বসু পাফ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অনিতা বসু পাফ
Anita Bose Pfaff.jpg
২০১৩ সালে, কলকাতায়, অনিতা বসু পাফ।
জন্মঅনিতা শেঙ্কল
(১৯৪২-১১-২৯) ২৯ নভেম্বর ১৯৪২ (বয়স ৭৬)
ভিয়েনা, অস্ট্রিয়া
সন্তান
  • পিটার অরুণ
  • থমাস কৃষ্ণ
  • মায়া কারিনা
পিতা-মাতা

অনিতা বসু পাফ (জন্ম ২৯ নভেম্বর ১৯৪২ সাল) একজন জার্মান অর্থনীতিবিদ, যিনি পূর্বে অগ্সবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক ছিলেন এবং জার্মানির সোশাল ডেমোক্রেটিক পার্টির একজন রাজনীতিক। তিনি ভারতীয় জাতীয়তাবাদী ও মুক্তিযোদ্ধা সুভাষচন্দ্র বসু (?) (১৮৯৭-১৯৪৫) এবং তাঁর স্ত্রীর[২][ক][৪][খ] এমিলি শেঙ্কলের কন্যা।[২][গ] অনিতা ১৯৪২ সালে ইউরোপের অস্ট্রিয়ার ভিয়েনা শহরে জন্মগ্রহন করেন। পরে তিনি জার্মানিতে চলে আসেন।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

অনিতা পাফ হলেন এমিলি শেঙ্কল এবং সুভাষচন্দ্র বসুর একমাত্র সন্তান। অনিতার পিতা জাপানের সহায়তায় ব্রিটিশ রাজের উপর স্বাধীনতা সংগ্রামের জন্য একটি দৃষ্টিভঙ্গি রেখেছিলেন। সুভাষচন্দ্র বসু ইউরোপে এমিলি শেঙ্কল ও অনিতা পাফকে রেখে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় চলে আসেন, যখন অনিতা চার মাস বয়সী ছিলেন।[৬][ঘ] অনিতা তাঁর মায়ের কাছে বেড়ে উঠেছিলেন, যিনি যুদ্ধোত্তর বছরগুলিতে পাফের দিদিমা সহ পরিবারের সহায়তা করার জন্য ট্রাঙ্ক অফিসে বদলির কাজ করেন। পরিবার পালনে পাফের দিদার পেনশন ও সাহায্য করত।[৭] পাফের জন্মের সময় তার পিতার পদবী দেওয়া হয়নি, এবং তিনি অনিতা  শেনকেল হিসাবে বড় হয়ে ওঠেন। তাঁর বাবা সেখানে তাঁর সাথে ছিলেন না, কারণ তিনি তাঁর সেনাবাহিনী আজাদ হিন্দ ফৌজের সাথে ব্যস্ত ছিলেন এবং পাফ তাঁর মা এমিলি শেনকেলের নিকট বড় হন।[৭]

শিক্ষা জীবন[সম্পাদনা]

পাফ আউগ্সবুর্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি অনুষদের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন।

বিবাহ ও পরিবার[সম্পাদনা]

অনিতা পাফ বিবাহ করেন প্রফেসর মার্টিন পাফকে, যিনি পূর্বে বুন্দেস্তাগ (জার্মান সংসদ) এসপিডি-তে প্রতিনিধিত্বমূলক সদস্য ছিলেন। তাঁদের তিনটি সন্তান রয়েছে: পিটার অরুণ, থমাস কৃষ্ণ এবং মায়া কারিনা।[৮]

মিডিয়া[সম্পাদনা]

বলিউড চলচ্চিত্র নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোস: দ্য ফরগট্‌ন হিরোতে পাফকে উল্লেখ করা হয়েছে।[৮][৯]

বিতর্ক[সম্পাদনা]

অনিতা বসু পাফ রেনকোজি মন্দিরে রাখা তার পিতা সুভাষচন্দ্র বসুর চিতাভস্মের ডিএনএ পরীক্ষা ইচ্ছা প্রকাশ করেন।[১০]

সুভাষচন্দ্র বসুর মৃত্যু ও বিমান দুর্ঘটনা নিয়ে বহু বিতর্ক রয়েছ। তিনি মনে করেন, তাইহোকু বিমান দুর্ঘটনায় সুভাষচন্দ্র বসুর মৃত্যুর সম্ভাবনাই সব চেয়ে বেশি। তবে তাঁর মৃত্যু নিয়ে বিতর্ক মেটাতে টোকিওর রেনকোজি মন্দিরে রাখা চিতাভস্মের ডিএনএ পরীক্ষা করা উচিত বলে মনে করেন তিনি। কিন্তু ওই চিতাভস্ম আদৌ নেতাজির নয় বলে দাবি অনেকর। অনিতার মতে, ‘‘ডিএনএ পরীক্ষা হলে কিছু প্রমাণ পাওয়া যেতে পারে। তবে হাড় যদি বেশি পুড়ে গিয়ে থাকে তা হলে ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভব নাও হতে পারে।’’ [১০]

নোট[সম্পাদনা]

  1. How the Bose family discovered Netaji had a child
  2. Hayes 2011, পৃ. ১৫।
  3. Hayes 2011, পৃ. 15।
  4. Gordon 1990, পৃ. ৩৪৪–৩৪৫।
  5. Gordon 1990, পৃ. 344–345।
  6. Hayes 2011, পৃ. 159।
  7. Madhuri Bose (১২ নভেম্বর ২০১৫)। The Bose Brothers and Indian Independence: An Insider’s Account। SAGE Publications। আইএসবিএন 978-93-5150-396-5 
  8. Netaji's daughter speaks!
  9. Netaji Subhas Chandra Bose: The Forgotten Hero (2005) - IMDb
  10. "Netaji's daughter wants DNA test of ashes in Renkoji temple"। সংগ্রহের তারিখ ১৬ মার্চ ২০১৮ 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "While writing The Indian Struggle, Bose also hired a secretary by the name of Emilie Schenkl. They eventually fell in love and married secretly in accordance with Hindu rites."[৩]
  2. "Although we must take Emilie Schenkl at her word (about her secret marriage to Bose in 1937), there are a few nagging doubts about an actual marriage ceremony because there is no document that I have seen and no testimony by any other person. ... Other biographers have written that Bose and Miss Schenkl were married in 1942, while Krishna Bose, implying 1941, leaves the date ambiguous. The strangest and most confusing testimony comes from A. C. N. Nambiar, who was with the couple in Badgastein briefly in 1937, and was with them in Berlin during the war as second-in-command to Bose. In an answer to my question about the marriage, he wrote to me in 1978: 'I cannot state anything definite about the marriage of Bose referred to by you, since I came to know of it only a good while after the end of the last world war ... I can imagine the marriage having been a very informal one ...'... So what are we left with? ... We know they had a close passionate relationship and that they had a child, Anita, born 29 November 1942, in Vienna. ... And we have Emilie Schenkl's testimony that they were married secretly in 1937. Whatever the precise dates, the most important thing is the relationship."[৫]
  3. "Apart from the Free India Centre, Bose also had another reason to feel satisfied-even comfortable-in Berlin. After months of residing in a hotel, the Foreign Office procured a luxurious residence for him along with a butler, cook, gardener and an SS-chauffeured car. Emilie Schenkl moved in openly with him. The Germans, aware of the nature of their relationship, refrained from any involvement. The following year she gave birth to a daughter.[২]
  4. "By the time Bose left, he had more or less obtained what he wanted: a submarine to go off to Asia, limitations as to how and where the Legion could be used (the only one in fact not directed at the Soviet Union), Luftwaffe training, at a time when Germany suffered a serious dearth in aircraft, acceptance of left-wing Indians in high-ranking positions and even racial exemptions to marry German women? Bose himself was the prime example, living and conceiving a child openly as he did with Emilie Schenkl, in complete defiance of Nazi racial laws."[৬]

উদ্ধৃতিসমূহ[সম্পাদনা]

  • Love in the Time of War: Subhas Chandra Bose's Journeys to Nazi Germany (1941) and towards the Soviet Union (1945), ২০০৫ 
  • His Majesty's Opponent: Subhas Chandra Bose and India's Struggle against Empire, ২০১১ 
  • Brothers against the Raj: a biography of Indian nationalists Sarat and Subhas Chandra Bose, ১৯৯০ 
  • Subhas Chandra Bose in Nazi Germany: Politics, Intelligence and Propaganda 1941-1943, ২০১১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  1. Subhash Chandra Bose Wife Story
  2. Anita Bose-Daughter of SC Bose speaks