হাঙ্গেরির ভায়োলান্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পোলিশ রাণী, পোল্যান্ডের জোলেন্টা দেখুন।
হাঙ্গেরির ভায়োলান্ট
আরাগনের রাণীর সঙ্গী
হাঙ্গেরির ভায়োলান্টের সমাধি
সময়কাল ১২৩৫-১২৫১
দাম্পত্য সঙ্গী আরাগনের প্রথম জেমস
ইশু
ক্যাস্টিলের রাণী জোলান্ডা
ক্যাস্টিলের ইনফান্টা কনস্ট্যান্স
আরাগনের তৃতীয় পিটার
মাজোর্কার দ্বিতীয় জেমস
ফ্রান্সের রাণী ইসাবেলা
বাসগৃহ আর্পাডের বাড়ি
আরাগনের বাড়ি
পিতা হাঙ্গেরির দ্বিতীয় এন্ড্রু
মাতা জোলান্ডা দ্য কারটেনায়
জন্ম ১২১৫
মৃত্যু ১২৫১ (বয়স ৩৬)?
সমাধি সান্টা মারিয়া দ্য ভ্যালাবোনার মঠ, লিয়েডার প্রদেশ

হাঙ্গেরির ভায়োলান্ট (খ্রি. ১২১৬-১২৫১) আরাগনের রাণীর সঙ্গী এবং রাজা আরাগনের প্রথম জেমসপত্নী ছিলেন। তাঁকে হাঙ্গেরিয় ভাষায় জোলান্টা, কাতালানে আয়োলান্ডা বা স্প্যানিশে ভায়োলান্টা দ্য হাঙ্গ্রিয়া বলা হয়।

পরিবার[সম্পাদনা]

ভায়োলান্ট রাজা হাঙ্গেরির দ্বিতীয় এন্ড্রুরাণী কারটেনায়ের জোলান্ডার কন্যা এবং তিনি এজটারগমে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতামহ হাঙ্গেরির তৃতীয় বেলা ও পিতামহী এন্টিওচের আগনেস। তাঁর মাতামহ কারটেনায়ের দ্বিতীয় পিটার এবং মাতামহী (মাতামহের দ্বিতীয় পত্নী) ফ্লান্ডার্সের জোলান্ডা

ভায়োলান্ট বুলগেরিয়ার রাজরাজেশ্বরী অ্যানা মারিয়া, হাঙ্গেরির চতুর্থ বেলা, হাঙ্গেরির সেইন্ট এলিজাবেথগ্যালিসিয়া-লোডোমেরিয়ার সোলোমোনের সৎবোন।

১২৩৩ সালে ভায়োলান্টের মা পরলোকগমন করেন। তখন তাঁর বয়স সাত। তাঁর পিতা আবার বিয়ে করেন, বিট্রিস ডি'এস্তেকে। তাঁদের স্টিফেন বলে এক ছেলে ছিল।

বিয়ে[সম্পাদনা]

১২৩৫ সালে ভায়োলান্ট জেমসকে বিয়ে করেন।[১] জেমসের পূর্বেই আলফোনসো নামের এক ছেলে ছিল। আলফোনসোর মাতা ক্যাস্টিলের এলিয়ানর। জেমস এলিয়ানরের সাথে বিবাহ-বিচ্ছেদ ঘটিয়ে আবারও বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। তিনি ভায়োলান্টকেই বেছে নেন।[২][৩]

জেমস ও ভায়োলান্টের দশ সন্তান[৪] ছিল:

  1. আরাগনের ভায়োলান্ট[৫] (১২৩৬-১৩০১), ক্যাস্টিলের দশম আলফোনসোর সাথে ক্যাস্টিলের রাণীর বিয়ে হয়ে
  2. ভিলেনার লেডি, আরাগনের কনস্ট্যান্স
  3. আরাগনের তৃতীয় পিটার (১২৪০-১২৮৫)
  4. মাজোর্কার দ্বিতীয় জেমস (১২৪৩-১৩১১)
  5. আরাগনের ফার্দিনান্দ (১২৪৫-১২৫০)
  6. আরাগনের সাঞ্চা (১২৪৬-১২৫১)
  7. ফ্রান্সের রাণী ইসাবেলা (১২৪৭-১২৭১)
  8. আরাগনের মারিয়া (১২৪৮-১২৬৭), সন্ন্যাসিনী
  9. সাঞ্চো, টোলেডোর সর্বোচ্চ মার্গের দেবদূত (১২৫০-১২৭৫)
  10. আরাগনের এলিয়ানর (১২৫১-ও জন্ম, মৃত্যুর তারিখ অজানা; তরুণাবস্থায়ই মৃত্যু)

ভায়োলান্ট রাজা ফ্রান্সের চতুর্থ ফিলিপ এবং ভালওয়েসের কাউন্ট চার্লস-এর মাতামহী ছিলেন। চার্লস ফ্রান্সের সপ্তম ফিলিপ-এর পিতা।

জনকল্যাণমূলক কাজ[সম্পাদনা]

জোলান্ডা বুদ্ধিমতী এবং চরিত্রবান নারী ছিলেন। প্রথম জেমসের পর আরাগনের মুকুটধারী তিনিই ছিলেন গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক চরিত্র। তিনি রাজার সবচেয়ে মূল্যবান বুদ্ধিদাতাদের মধ্যে একজন ছিলেন এর ফলে তাঁর প্রভাবও ছিলে বেশি।

তিনি বেশকিছু আন্তর্জাতিক চুক্তিতে হস্তক্ষেপ করেন যেমনঃ ভ্যালেন্সিয়ার সমর্পনকৃত জায়ান ইবনে মারডানিশ কর্তৃক সাক্ষরকৃত ক্যাস্টিলের আলমিজরার চুক্তি (১২৪৪)। সেখানে সে গর্বিতভাবে তাঁর স্বামীর সাথে ৯ই অক্টোবর, ১২৩৮ সালে প্রবেশ করেন।

মৃত্যু ও দাফন[সম্পাদনা]

তিনি সালাসের নিয়ম ভেঙে জ্বরাক্রান্ত হয়ে হুয়েস্কার নিকট ১২৫১ সালে মৃত্যুবরণ করেন। সম্ভবত তাঁর কনিষ্ঠতম সন্তান, রাজপুত্র ফার্দিনান্দের প্রতিই তাঁর বিশ্বাস ছিল এবং তিনিই মৃত্যুর সময় ভায়োলান্টের সাথে ছিলেন।

ভায়োলান্ট ১২৫৩ সালে মারা যান।[৬] ভায়োলান্ট এবং তাঁর কন্যা সাঞ্চা কাতালোনিয়াসান্টা মারিয়া দ্য ভ্যালাবনার মঠ-এ চিরনিদ্রায় চিরকালের মত শায়িত হন।

তিনিই ভ্যালাবনার মঠকে দাফনের জন্য বেছে নেন এবং উক্ত স্থানের হিতকারী ছিলেন তিনি।

তাঁর সমাধিটি বেদির ডানদিকের দেয়াল ঘিরে বিরাট আকারে রয়েছে।

সমাধিটি দুটো পিলারের ওপর ভিত্তি করে প্রতিষ্ঠিত। সেখানে সুন্দর সোনার ক্রস বৃত্তাকার রক্তবর্ণের মধ্যে খোদাইকৃত যা নিরাপদ এবং তার ছাদ বাদামিপাথর, বাদামি ত্রিকোণ এবং শ্বেতপাথরের তৈরি।

সেখানের একমাত্র ডিজাইন হল একটি ক্রস যা পিলারের ন্যায় একই চরিত্রসম্পন্ন, (কিছুটা বড় এবং বর্ণহীন) ছাদের মাঝে রয়েছে। উক্ত স্থানে রাজকীয় অস্ত্রময় তাঁর স্বামীর তিনটি কোট রয়েছে এবং তা বাক্সের প্রান্ত থেকে দেখা যায়।

রাণীর অবশিষ্ট সামগ্রী ১২৭৫ সালে সমাধিতে নেয়া হয় যা বাক্সের প্রান্তে খোদাইকৃত ( ফুইট ট্রান্সলাটা দোনা | ভায়োলান রেজিনা | আরাগোনাম | আনো ১২৭৬ )। জোলান্ডা আর্পাড রাজবংশের একমাত্র সদস্য, যার সামগ্রী এখনও অক্ষত রয়েছে।

তাঁর স্বামী আরো একবার বিয়ে করেন, তেরেসা গিল দ্য ভিডাউরেকে যিনি একদা জেমসের উপপত্নী ছিলেন।

পূর্বপুরুষ[সম্পাদনা]

Ancestors of Violant of Hungary.png

সম্মান[সম্পাদনা]

তাঁর নামাঙ্কিত রাস্তা রয়েছে বার্সেলোনা, জারাগোজাআরাগনের বাড়ির বিভিন শহরে (উনবিংশ শতক থেকে)।

রোমান্টিক যুগ থেকে সেন্ট ডোনি ভ্যালেন্সিয়ার সময় মধুর ফল এবং সবজি উপহারের অংশ হয়ে গেছে। সেন্ট ডোনি ভ্যালেন্সিয়া বার্ষিকভাবে বিজয়ের বার্ষিকীতে অনুষ্ঠিত হয় এবং অনুষ্ঠানটি ভ্যালেন্সিয়ান মুসলিম কর্তৃক জ্যাউম ও ভায়োলান্টকে প্রদানকৃত ফল ও সব্জির উপহারের মাধ্যমে গড়ে উঠেছে। তাঁরা জ্যাউম ও ভায়োলান্টকে উপহারটি দেয় যখন তারা শহরকে ঘিরেছিল।

২০০২ সালে হাঙ্গেরীয় সরকার তাঁর সমাধির পুনঃর্নিমানের অর্থ প্রদান করে যার মূল্য প্রায় ১২, ০০০ ইউরো। তবে সন্ন্যাসী সম্প্রদায় এর আভ্যন্তরীণ পাঠের অনুমতি নাকচ করে দেয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

হাঙ্গেরির ভায়োলান্ট
জন্ম: সিরকা ১২১৫ মৃত্যু: ১২ অক্টোবর ১২৫১
রয়েল পদবী
পূর্বসূরী
ক্যাস্টিলের এলিয়ানর
আরাগনের রাণীর সঙ্গী
১২৩৫–১২৫৩


উত্তরসূরী
সিসিলির কনস্ট্যান্স
নতুন পদবী মাজোর্কার রাণীর সঙ্গী
1১২৩৫–১২৫৩


ভ্যালেন্সিয়ার রাণীর সঙ্গী
১২৩৫–১২৫৩


বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]