হলুদ (মশলা)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হলুদ (বর্ণ) নিবন্ধের সাথে বিভ্রান্ত হবেন না।
হলুদ
Curcuma longa
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Plantae
(শ্রেণীবিহীন): Angiosperms
(শ্রেণীবিহীন): Monocots
(শ্রেণীবিহীন): Commelinids
বর্গ: Zingiberales
পরিবার: Zingiberaceae
গণ: Curcuma
প্রজাতি: C. longa
দ্বিপদী নাম
Curcuma longa
L.[১]
প্রতিশব্দ

Curcurma domestica Valeton

হলুদ বা হলদি (বৈজ্ঞানিক নাম-Curcuma longa) হলো হলুদ গাছের শিকড় থেকে প্রাপ্ত এক প্রকারের মশলা[২] ভারত , বাংলাদেশ এবং পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের রান্নায় এটি ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। এটি আদা পরিবারের (Zingiberaceae) অন্তর্গত একটি গুল্মজাতীয় উদ্ভিদ।

হলুদ গাছের আদি উৎস দক্ষিণ এশিয়া। এটি ২০ থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার মধ্যে জন্মে থাকে। হলুদ গাছের জন্য প্রচুর পরিমাণে বৃষ্টিপাতের দরকার হয়। বছরে সাধারণত একবার হলুদ গাছের শিকড় তোলা হয়। পরের বছর পুরানো শিকড় থেকে নতুন গাছ গজায়।

হলুদ গাছের শিকড়কে কয়েক ঘণ্টা সিদ্ধ করা হয়, তার পর গরম চুলায় শুকানো হয়। এরপর এই শিকড়কে চূর্ণ করে গাঢ় হলুদ বর্ণের গুঁড়া পাওয়া যায়। এই হলুদ গুড়া দক্ষিণ এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের নানা দেশের খাদ্য প্রস্তুতে ব্যবহার করা হয়। তবে ঐতিহ্যগতভাবে এই শিকড় ভালোভাবে ধৌতকরণের পর শিল-পাটায় পানি সহযোগে বেটে নিয়ে হলুদের লেই তৈরি করা হয় যা সরাসরি রান্নায় ব্যবহার করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Curcuma longa information from NPGS/GRIN"। ars-grin.gov। সংগৃহীত 2008-03-04 
  2. Chan, E.W.C. et al.; Lim, Y.Y.; Wong, S.K.; Lim, K.K.; Tan, S.P.; Lianto, F.S.; Yong, M.Y. (2009)। "Effects of different drying methods on the antioxidant properties of leaves and tea of ginger species"। Food Chemistry 113 (1): 166–172। ডিওআই:10.1016/j.foodchem.2008.07.090 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]