লোহিত জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লোহিত জেলা জেলা
অরুণাচল প্রদেশ জেলা
অরুণাচল প্রদেশ লোহিত জেলা-এর জেলার অবস্থান
দেশ  ভারত
রাজ্য অরুণাচল প্রদেশ
সদর দপ্তর তেজু
আয়তন
 • মোট ২,৪০২
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট [১]
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা ৬৯.৯%[১]
 • লিঙ্গানুপাত ৯০১[১]
ওয়েবসাইট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট

লোহিত জেলা হল ভারতের অরুণাচল প্রদেশ রাজ্যের একটি জেলা। এই জেলার সদর শহর হল তেজু। এই জেলা অরুণাচল প্রদেশের ১৬টি জেলার মধ্যে তৃতীয় বৃহত্তম জেলা (পাপুম পারেচংলং জেলার পরে)।[১]

ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

এই অঞ্চলের আগেকার নাম হল মিশমি পর্বতলোহিত নদের নামানুসারে এই জেলার নামকরণ করা হয়েছে। এই জেলা লোহিত নদের উপত্যকাতে অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বিংশ শতাব্দীর প্রথম দশকে অবোর ও মিশমি অভিযানের মাধ্যমে এই অঞ্চল ব্রিটিশদের অধীনে আসে।

১৯৮০ সালের জুন মাসে দিবাং উপত্যকা জেলাকে দ্বিখণ্ডিত করে লোহিত জেলা গঠিত হয়। পরে দিবাং উপত্যকা জেলাকে আবার ভেঙে নিম্ন দিবাং উপত্যকা জেলা গঠন করা হয়।[২] ২০০৪ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি, লোহিত জেলার উত্তর অংশটিকে নিয়ে পৃথক অনজো জেলা গঠিত হয়।[২]

বিভাগ[সম্পাদনা]

অরুণাচল প্রদেশ বিধানসভার চারটি আসন এই জেলায় অবস্থিত: তেজু, চোখাম, নামসাই ও লেকাং। এগুলি অরুণাচল পূর্ব লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত।[৩]

জনপরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে, লোহিত জেলার জনসংখ্যা ১৪৫,৫৩৮।[১] এই জনসংখ্যা সেন্ট লুসিয়া রাষ্ট্রের প্রায় সমান।[৪] জনসংখ্যার হিসেবে ভারতের ৬৪০টি জেলার মধ্যে এই জেলার স্থান ৬০১তম।[১] জেলার জনঘনত্ব ২৮ জন প্রতি বর্গকিলোমিটার (৭৩ জন/বর্গমাইল) ।[১] ২০০১-২০১১ দশকে জেলার জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ১৬.৪৪%.[১] লোহিত জেলার লিঙ্গানুপাতের হার প্রতি ১০০০ পুরুষে ৯০১ জন নারী।[১] জেলার সাক্ষরতার হার ৬৯.৮৮%।[১]

ভাষা[সম্পাদনা]

এই জেলার পূর্বাঞ্চলের ৩০,০০০ মানুষ বিলুপ্তপ্রায় সিনো-তিব্বতীয় ভাষা গালো ভাষায় কথা বলেন।[৫]

উদ্ভিদ ও প্রাণী[সম্পাদনা]

১৯৮৯ সালে লোহিত জেলায় কামলং বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য স্থাপিত হয়। এই অভয়ারণ্যের আয়তন ৭৮৩ কিমি (৩০২.৩ মা)।[৬]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ ১.৩ ১.৪ ১.৫ ১.৬ ১.৭ ১.৮ ১.৯ "District Census 2011"। Census2011.co.in। 
  2. ২.০ ২.১ Law, Gwillim (25 September 2011)। "Districts of India"Statoids। সংগৃহীত 11 October 2011 
  3. "Assembly Constituencies allocation w.r.t District and Parliamentary Constituencies"। Chief Electoral Officer, Arunachal Pradesh website। সংগৃহীত 21 March 2011 
  4. US Directorate of Intelligence। "Country Comparison:Population"। সংগৃহীত 1 October 2011। "Saint Lucia 161,557 July 2011 est." 
  5. M. Paul Lewis, সম্পাদক (2009)। "Galo: A language of India"Ethnologue: Languages of the World (16th edition সংস্করণ)। Dallas, Texas: SIL International। সংগৃহীত 28 September 2011 
  6. Indian Ministry of Forests and Environment। "Protected areas: Arunachal Pradesh"। সংগৃহীত 25 September 2011 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ২৮°০০′ উত্তর ৯৬°৩০′ পূর্ব / ২৮.০০০° উত্তর ৯৬.৫০০° পূর্ব / 28.000; 96.500