লিয়াওনিং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Varyag under tow
The hull of the Varyag, the future Liaoning, under tow in Istanbul in 2001.
কর্মকাল (China)
নাম: Liaoning
নামকরণ: Liaoning Province, China
নির্মাতা: Nikolayev South
Designer: Nevskoye Planning and Design Bureau
নির্মাণের সময়: December 6, 1985
অভিষেক: December 4, 1988
সম্পন্ন: 2011
কমিশন লাভ: 25 September 2012
বর্তমান অবস্থা: in active service
সাধারণ বৈশিষ্ট্য are for the Varyag as originally designed
প্রকার ও শ্রেণী: Admiral Kuznetsov-ক্লাস aircraft carrier
ওজন: ৫৩,০০০ থেকে ৫৫,০০০ টন (৫২,০০০ থেকে ৫৪,০০০ লং টন) standard
৬৬,০০০ থেকে ৬৭,৫০০ টন (৬৫,০০০ থেকে ৬৬,৪০০ লং টন) full load
দৈর্ঘ্য: ৩০৪.৫ মি (৯৯৯ ফু) o/a
২৭০ মি (৮৯০ ফু) w/l
প্রস্থ: ৭৫ মি (২৪৬ ফু) o/a
৩৮ মি (১২৫ ফু) w/l
ড্রাফট: ১০.৫ মি (৩৪ ফু)
প্রচলক: Steam turbines, 8 boilers, 4 shafts, ২,০০,০০০ অশ্বশক্তি (১৫০ মেওয়াট)
2 × ৫০,০০০ অশ্বশক্তি (৩৭ মেওয়াট) turbines
9 × ২,০১১ অশ্বশক্তি (১,৫০০ কিওয়াট) turbogenerators
6 × ২,০১১ অশ্বশক্তি (১,৫০০ কিওয়াট) diesel generators
4 × fixed pitch propellers
গতিবেগ: ৩২ নট (৫৯ কিমি/ঘ; ৩৭ মা/ঘ)
সীমা: ৩,৮৫০ নটিক্যাল মাইল (৭,১৩০ কিমি; ৪,৪৩০ মা) at 32 knots
সহনশীলতা: 45 days
লোকবল: 1,960 crew
626 air group
40 flag staff
3,857 rooms
রণসজ্জা:


After refit:
• 3 x Type 1030 CIWS
• 4 x FL-3000N (18 Cell Missile system)
• 2 x ASW 12 tube rocket launchers


As designed:
• 8 × AK-630 AA guns (6×30 mm, 6,000 round/min/mount, 24,000 rounds)
• 8 × CADS-N-1 Kashtan CIWS (each 2 × 30 mm Gatling AA plus 16 3K87 Kortik SAM)
• 12 × P-700 Granit SSM
• 18 × 8-cell 3K95 Kinzhal SAM VLS (192 vertical launch missiles; 1 missile per 3 seconds)
RBU-12000 UDAV-1 ASW rocket launchers (60 rockets)
বিমান বহন: Shenyang J-15
As designed:
× 30 fixed wing aircraft[১]
× 24 helicopters

লিয়াওনিং চীনের প্রথম বিমানবাহী রণতরি।[২][৩] বিমানবাহী জাহাজটি ৩০০ মিটার (৯৯০ ফুট) দীর্ঘ।[৩] পূর্ব চীন সাগর নিয়ে জাপান, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়াসহ কয়েকটি দেশের সঙ্গে উত্তেজনাপূর্ণ সময়ে চীনের এই জাহাজ আনুষ্ঠানিকভাবে মোতায়েন করা হয়েছে। সমুদ্রে বিরোধ নিয়ে জাপানের সঙ্গে উত্তেজনাপূর্ণ সময়ে লিয়াওনিংয়ের সাগরে ভাসাকে সমুদ্রসীমা নিয়ে চীনের উচ্চাকাঙ্ক্ষার বিষয়টি প্রকাশিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। [২] সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নে নির্মিত একটি জাহাজ কিনে সংস্কার করে এ রণতরি তৈরি করা হয়েছে। চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এখন জাহাজটি কোনো অভিযানে অংশ নেবে না। এটি প্রশিক্ষণের কাজে ব্যবহার করা হবে।[৩]

চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানিয়েছে, চীনের প্রেসিডেন্ট হু জিনতাও, প্রধানমন্ত্রী ওয়েন জিয়াবাওসহ শীর্ষ নেতাদের উপস্থিতিতে ডালিয়ান বন্দরে বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে লিয়াওনিং নৌবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়। চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, আমাদের সার্বিক যুদ্ধের সামর্থ্য বাড়াতে নৌবাহিনীতে এই বিমানবাহী জাহাজের সংযোজন খুব গুরুত্বপূর্ণ। এটি আমাদের নিরাপত্তা, গভীর সমুদ্রে বিভিন্ন ধরনের হুমকি মোকাবিলা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার সামর্থ্য বাড়াবে।[৩]

লিয়াওনিংয়ের পূর্ব নাম ছিল ভ্যারেজ। ১৯৮০ সালে সোভিয়েত নৌবাহিনী এটি তৈরি করে। তবে কাজ অসম্পূর্ণ ছিল। ১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের সময় এটি ইউক্রেনে ছিল। চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির (পিএলএ) সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত একটি চীনা প্রতিষ্ঠান জাহাজটি কিনে নেয়। প্রতিষ্ঠানটির উদ্দেশ্য ছিল জাহাজটি দিয়ে ম্যাকাও দ্বীপে ভাসমান বিনোদনকেন্দ্র স্থাপন করা। তবে চীন ২০০১ সালে জাহাজটি নিয়ে নেয় এবং ২০১১ সালের জুন মাসে চীনের সামরিক বাহিনী নিশ্চিত করে, সংস্কার করে এটিকে চীনের প্রথম বিমানবাহী জাহাজ হিসেবে ব্যবহার করা হবে। জাহাজটি অভিযানের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত করতে আরও কয়েক বছর সময় লাগতে পারে। [৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://behindthewall.nbcnews.com/_news/2012/09/25/14092055-china-brings-its-first-aircraft-carrier-into-service-joining-9-nation-club
  2. ২.০ ২.১ চীনের কড়া হুঁশিয়ারি!, বিবিসি ও রয়টার্স, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ২৬-০৯-২০১২ খ্রিস্টাব্দ।
  3. ৩.০ ৩.১ ৩.২ ৩.৩ ৩.৪ সাগরে ভাসল চীনের বিমানবাহী রণতরি, বিবিসি, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ২৬-০৯-২০১২ খ্রিস্টাব্দ।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]