প্লেইং বাই হার্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
প্লেইং বাই হার্ট
Playing by heart.jpg
পরিচালক উইলার্ড ক্যারল
প্রযোজক উইলার্ড ক্যারল
মেগ লিবারম্যান
রচয়িতা উইলার্ড ক্যারল
অভিনেতা জিলিয়ান অ্যান্ডারসন
এলেন বার্সটিন
শন কনারি
অ্যান্থনি অ্যাডওয়ার্ডস
অ্যাঞ্জেলিনা জোলি
জায় মোর
রায়ান ফিলিপ
ডেনিস কুয়েইড
জেনা রোল্যান্ডস
জন স্টুয়ার্ট
ম্যাডেলিন স্টো
মাইকেল এমারসন
সুরকার জন ব্যারি
চিত্রগ্রাহক ভিলমস সিগমন্ড
সম্পাদক পিয়েত্রো স্কেলিয়া
বণ্টনকারী মিরাম্যাক্স ফিল্মস
মুক্তি ১৮ ডিসেম্বর, ১৯৯৮
দৈর্ঘ্য ১২১ মিনিট

প্লেইং বাই হার্ট (ইংরেজি: Playing by Heart) হচ্ছে ১৯৯৮-এ নির্মিত একটি কমেডি-ড্রামা চলচ্চিত্র। এ ছবিটিতে বিভিন্ন চরিত্রের কাহিনী বিধৃত হয়েছে, যদিও তাঁদের মধ্যে কোনো যোগাযোগ থাকে না।

কাহিনীসংক্ষেপ[সম্পাদনা]

এই চলচ্চিত্রে বিভিন্ন রকম জুটির জীবন ফুটে উঠেছে। এর মধ্যে আছে বয়স্ক দম্পতির (শন কনারিজেনা রোল্যান্ডস) নিজেদের পরস্পরের কাছে পুনর্প্রতিজ্ঞা; সমাজবিরোধী নারী (জিলিয়ান অ্যান্ডারসন) ও অদ্ভুত ব্যক্তির (জন স্টুয়ার্ট) মধ্যে গড়ে ওঠা প্রেম; এইডস-এ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুপথযাত্রী এক ছেলে (জায় মোর) ও তাঁর মা (এলেন বার্সটিন), যে কি না তাঁর ছেলেকে বাঁচাতে উন্মুখ; দুইজন ক্লাবার (রায়ান ফিলিপঅ্যাঞ্জেলিনা জোলি), একটি নাইট ক্লাবে যাদের পরস্পরের সাথে দেখা হয়; প্রেমরত জুটি (অ্যান্থনি এডওয়ার্ডস ও (ম্যাডেলিন স্টো]]; এবং একজন নিঃসঙ্গ ব্যক্তি (ডেনিস কুয়েইড) যে কিনা তাঁর জীবনের কষ্টের কথা শোনায় বারে দেখা হওয়া এক নারীকে (প্যাট্রিসিয়া ক্লার্কসন), কিন্তু তাঁর কাহিনী শুনে তাঁর মনে হয় আরেকজন রহস্যময় নারীর সাথে সম্ভবত এ ঘটনার কোনো সংযোগ আছে। এভাবেই গল্প আগাতে থাকে, এবং আস্তে আস্তে চরিত্রগুলোর পরস্পরের সাথে সম্পর্ক তৈরি হয়।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]