পাখির তালিকা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নিওর্নিথিস 
 প্যালিওগন্যাথি 

স্ট্রুথিওনিফর্মিস




রিইফর্মিস



টিনামিফর্মিস




কাসুয়ারিফর্মিস



অ্যাপ্টেরিজিফর্মিস





 নিওগন্যাথি 

নিওঅ্যাভিস


 গ্যালোয়ানসেরি 

আন্সারিফর্মিস



গ্যালিফর্মিস





নিওঅ্যাভিস 
 মিরান্ডর্নিথিস 

পোডিসিপেডিফর্মিস



ফিনিকপ্টেরিফর্মিস




ফিথোন্টিফর্মিস



টেরোক্লিডিফর্মিস



মেসিটর্নিথিফর্মিস



কলাম্বিফর্মিস



ইউরিপিজিফর্মিস


 সিপ্সেলোমর্ফি 

ক্যাপ্রিমালজিফর্মিস




অ্যাপোডিফর্মিস



ইগোথিলিফর্মিস





অপিস্টোকোমিফর্মিস




গ্রুইফর্মিস



কুকুলিফর্মিস



মিউসোফ্যাজিফর্মিস



ইকিউঅর্নিথিস





কারাড্রিফর্মিস



"উচ্চতর ভূচর পক্ষীসমূহ"




ইকিউঅর্নিথিস 

গ্যাভিফর্মিস





স্ফেনিসসিফর্মিস



প্রোসেলারিফর্মিস





সিকোনিফর্মিস




সুলিফর্মিস



পেলিক্যানিফর্মিস






"উচ্চতর ভূচর পক্ষীসমূহ

অ্যাসসিপিট্রিফর্মিস



স্ট্রিজিফর্মিস



কলিফর্মিস




লেপ্টোসোমাটিফর্মিস



ট্রোগোনিফর্মিস


 পিকোকোরাসিই 

বিউসেরোটিফর্মিস




কোরাসিফর্মিস



পিসিফর্মিস






ক্যারিয়ামিফর্মিস


 ইউফ্যালকনিমর্ফি 

ফ্যালকনিফর্মিস


 সিটাকোপ্যাসারি 

সিটাসিফর্মিস



প্যাসারিফর্মিস





সাম্প্রতিক গবেষণার ভিত্তিতে আধুনিক পক্ষীবর্গসমূহের ফাইলোজেনেটিক তালিকা[১][২][৩]
এটি জীবিত সকল প্রজাতির পাখি সম্পর্কিত একটি তালিকা। বিলুপ্ত পাখি সম্পর্কে জানার জন্য দেখুন বিলুপ্ত পাখিসমূহের তালিকা, প্রাগৈতিহাসিক পাখিজীবাশ্মীভূত পাখি। বাংলাদেশের পাখি সম্পর্কে জানার জন্য দেখুন বাংলাদেশের পাখির তালিকা

এই নিবন্ধটিতে শুধুমাত্র জীবিত পাখিদের বর্গগোত্রের উল্লেখ করা হয়েছে। এসব গোত্র ধরে গণ ও একক প্রজাতি সম্পর্কে জানা যাবে।

নতুন ধরনের ডিএনএ বিশ্লেষণ আবিষ্কৃত হওয়ার ফলে বিভিন্ন প্রজাতির পাখি সম্পর্কে নতুন নতুন তথ্য জানা যাচ্ছে এবং তাদের গণ, গোত্র ও বর্গ সম্পর্কে যথেষ্ট পরিমাণ বিতর্কের সূত্রপাত হচ্ছে। উদাহরণস্বরূপ একটু ভিন্ন সিবলি-অ্যালকিস্ট শ্রেণীবিন্যাস-এর কথা উল্লেখযোগ্য যেখানে কয়েকটি গোত্রকে ভিন্ন বর্গে স্থান দেওয়া হয়েছে।

পরিচ্ছেদসমূহ

প্যালিওগন্যাথি[সম্পাদনা]

স্ট্রুথিওনিফর্মিস বর্গভূক্ত পাখিদের পায়ের গঠন ও পালকের বিন্যাস অন্য যেকোন বর্গের পাখির তুলনায় অন্যরকম। এরা একত্রে রেটাইট নামে পরিচিত। টিনামিফর্মিস বর্গের সাথে মিলে এটি প্যালিওগন্যাথি মহাবর্গটি গঠন করেছে। প্যালিওগন্যাথি শব্দটির অর্থ প্রাচীন চোয়াল

স্ট্রুথিওনিফর্মিস[সম্পাদনা]

আফ্রিকা ও অস্ট্রেলেশিয়া; ২টি প্রজাতি

রিইফর্মিস[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আমেরিকা; ২টি প্রজাতি

টিনামিফর্মিস[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আমেরিকা; ৪৫টি প্রজাতি

কাসুয়ারিফর্মিস[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলেশিয়া; ৪টি প্রজাতি

অ্যাপ্টেরিজিফর্মিস[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলেশিয়া; ৫টি প্রজাতি

নিওগন্যাথি[সম্পাদনা]

প্রায় সকল পাখিই নিওগন্যাথি (নতুন চোয়াল) মহাবর্গের অন্তর্ভূক্ত। এর মধ্যে প্রায় ৫,০০০ প্রজাতির পাখি প্যাসারিফর্মিস বর্গের অন্তর্গত।

আন্সারিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ১৫০টি প্রজাতি

গ্যালিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ২৫০টি প্রজাতি

পোডিসিপেডিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ১৯টি প্রজাতি; অনেকক্ষেত্রে ফিনিকপ্টেরিফর্মিসের অন্তর্গত

ফিনিকপ্টেরিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ৬টি প্রজাতি

মেসিটর্নিথিফর্মিস[সম্পাদনা]

মাদাগাস্কার, নব্যবিষুবীয় অঞ্চল, নিউ ক্যালিডোনিয়া; ৫টি প্রজাতি

টেরোক্লিডিফর্মিস[সম্পাদনা]

আফ্রিকা, ইউরোপ, এশিয়া; ১৬টি প্রজাতি; অনেকক্ষেত্রে কলাম্বিফর্মিসের অন্তর্গত

কলাম্বিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ৩০০টি প্রজাতি

ফিথোন্টিফর্মিস[সম্পাদনা]

মহাসাগরীয়; ৩টি প্রজাতি

ক্যাপ্রিমালজিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ৯০টি প্রজাতি

অ্যাপোডিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ৪০০টি প্রজাতি

ইগোথিলিফর্মিস[সম্পাদনা]

ওশেনিয়া; ১০টি প্রজাতি; অনেকক্ষেত্রে অ্যাপোডিফর্মিসের সাথে যুক্ত

কুকুলিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ১২৬টি প্রজাতি

অপিস্টোকোমিফর্মিস[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আমেরিকা; ১টি প্রজাতি

মিউসোফ্যাজিফর্মিস[সম্পাদনা]

আফ্রিকা; ২৩টি প্রজাতি

গ্রুইফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ১৯১টি প্রজাতি

গ্যাভিফর্মিস[সম্পাদনা]

উত্তর আমেরিকা, ইউরেশিয়া; ৫টি প্রজাতি

স্ফেনিসসিফর্মিস[সম্পাদনা]

অ্যান্টার্কটিকা ও দক্ষিণ মহাসাগর; ১৭টি প্রজাতি

প্রোসেলারিফর্মিস[সম্পাদনা]

আর্কটিক ও তৎসংলগ্ন মহাসাগরীয় অঞ্চল; ১২০টি প্রজাতি

সিকোনিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ১৯টি প্রজাতি

পেলিক্যানিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ১০৮টি প্রজাতি

সুলিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ৫৯টি প্রজাতি

কারাড্রিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ৩৫০টি প্রজাতি

অ্যাক্সিপিট্রিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ২০০টি প্রজাতি

স্ট্রিজিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ১৩০টি প্রজাতি

কোলিফর্মিস[সম্পাদনা]

সাব-সাহারান আফ্রিকা ; ৬টি প্রজাতি

ট্রোগোনিফর্মিস[সম্পাদনা]

সাব-সাহারান আফ্রিকা, আমেরিকা অঞ্চল, এশিয়া; ৩৫টি প্রজাতি

কোরাসিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ১৪৪টি প্রজাতি

বিউসেরোটিফর্মিস[সম্পাদনা]

পুরাতন বিশ্ব, নিউ গিনি; ৬৪টি প্রজাতি

লেপ্টোসোমাটিফর্মিস[সম্পাদনা]

মাদাগাস্কার; ১টি প্রজাতি

পিসিফর্মিস[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলেশিয়া ব্যতীত সমগ্র বিশ্ব; ৪০০টি প্রজাতি

ফ্যালকনিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ৬০টি প্রজাতি

ক্যারিয়ামিফর্মিস[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আমেরিকা; ২টি প্রজাতি

সিটাসিফর্মিস[সম্পাদনা]

বিষুবীয় অঞ্চল, দক্ষিণের উষ্ণ অঞ্চল; ৩৩০টি প্রজাতি

প্যাসারিফর্মিস[সম্পাদনা]

সমগ্র বিশ্ব; ৫০০০ প্রজাতি

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. A Phylogenomic Study of Birds Reveals Their Evolutionary History. Shannon J. Hackett, et al. Science 320, 1763 (2008).
  2. Metaves, Mirandornithes, Strisores and other novelties – a critical review of the higher-level phylogeny of neornithine birds. Gerald Mayr. J Zool Syst Evol Res (2010).
  3. Alexander Suh et al. (2011-08-23)। "Mesozoic retroposons reveal parrots as the closest living relatives of passerine birds"Nature Communications 2 (8)। ডিওআই:10.1038/ncomms1448পিএমআইডি 21863010পিএমসি 3265382