দ্বিতীয় মার্গারেথ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
দ্বিতীয় মার্গারেথ
৭ সেপ্টেম্বর, ২০০৫ খ্রিস্টাব্দে হান্দিজ পরিদর্শনে রাণী
ডেনমার্কের রাণী
সময়কাল ১৪ জুলাই, ১৯৭২ - বর্তমান
পূর্বসূরী নবম ফ্রেদেরিক
দৃশ্যতঃ উত্তরাধিকার ক্রাউন প্রিন্স ফ্রেদেরিক
প্রধানমন্ত্রীগণ তালিকার জন্য দেখুন:
দাম্পত্য সঙ্গী হেনরিক, প্রিন্স কনসর্ট অফ ডেনমার্ক (১৯৬৭-বর্তমান)
ইশু
ক্রাউন প্রিন্স ফ্রেদেরিক
প্রিন্স জোয়াচিম
পূর্ণ নাম
মার্গারেথ আলেকজান্দ্রাইন থরহিলদার ইনগ্রিদ
বাসগৃহ হাউজ অব সেসউইগ-হলস্টেইন-সনডারবার্গ-গ্লুকসবার্গ[১]
পিতা নবম ফ্রেদেরিক
মাতা ইনগ্রিদ অফ সুইডেন
জন্ম (১৯৪০-০৪-১৬) ১৬ এপ্রিল ১৯৪০ (বয়স ৭৪)
অ্যামালিয়েনবর্গ প্যালেস, ডেনমার্ক
ধর্ম চার্চ অফ ডেনমার্ক
দ্বিতীয় মার্গারেথ, ডেনমার্কের রাণী
রাজকীয় styles
Coat of Arms of Denmark.svg
উদ্ধৃতিকরণের রীতি মহারাজ্ঞী
কথ্যরীতি মহারাণী
বিকল্প রীতি মেম
ড্যানীয় রাজ পরিবার
Royal coat of arms of Denmark.svg

HM The Queen
HRH The Prince Consort


HRH Princess Benedikte
HM The Queen of the Hellenes


HH Princess Elisabeth


ডেনমার্কের দ্বিতীয় মার্গারেথ (ডেনীয়: Margrethe Alexandrine Þórhildur Ingrid; জন্ম: ১৬ এপ্রিল, ১৯৪০) রাণী হিসেবে ডেনমার্কের বর্তমান রাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন। তবে তাঁর নামকে খুব কমই ইংরেজি বাগধারামাফিক দ্বিতীয় মার্গারেট নামে ডাকা হয়। তিনি রাজা নবম ফ্রেদেরিকসুইডেনের ইনগ্রিদের জ্যেষ্ঠা কন্যা। ১৪ জানুয়ারি, ১৯৭২ খ্রিস্টাব্দে পিতার মৃত্যুর পর তিনি ক্ষমতায় আরোহণ করেন। এরফলে তিনি ১৩৭৫-১৪১২ সময়কালে স্ক্যান্ডিনেভিয়ার দেশের কালমার ইউনিয়নের দায়িত্বে নিয়োজিত প্রথম মার্গারেথের পর ডেনমার্ক সাম্রাজ্যের প্রথম নারী হিসেবে পরিচিত পান।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

ডেনমার্কের অ্যামালিয়েনবর্গ প্যালেসে প্রিন্সেস মার্গারেথ জন্মগ্রহণ করেন। তিনি পরিবারের প্রথম সন্তান। ১৪ মে, ১৯৪০ খ্রিস্টাব্দে কোপেনহেগেনের নেভাল চার্চে খ্রিষ্টধর্মে নামাঙ্কিত করা হয় তাঁর। মাতৃসম্পর্কীয় দিদি মার্গারেথ, পিতৃসম্পর্কীয় আলেকজান্দ্রাইন ও মা ইনগ্রিদকে একত্রিত করে তাঁর নাম রাখা হয়। পিতৃপক্ষীয় দাদা দশম ক্রিস্টিয়ান তৎকালীন সময়ে আইসল্যান্ডের রাজা ছিলেন। ঐসূত্রে মার্গারেথ আইসল্যান্ডের রাজকুমারী ছিলেন। আইসল্যান্ডের লোকদের স্মরণে রাখতে থরহিল্ডার নাম গ্রহণ করেন।[২] তাঁর অন্যান্য বোন হচ্ছেন - প্রিন্সেস বেনেডিক্টে, প্রিন্সেস অ্যানি ম্যারি

১৯৬০-এর দশকের মধ্যভাগে সুইডেননরওয়ের রাজকুমারীদের সাথে তিনিও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণ করেন। লস অ্যাঞ্জেলস, ক্যালিফোর্নিয়া এবং প্যারামাউন্ট স্টুডিও পরিদর্শনের সময় ডিন মার্টিন, জেরি লুইস এবং এলভিস প্রেসলি-সহ অনেকের সাথে স্বাক্ষাৎ করেন।

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

ইংল্যান্ডের হ্যাম্পশায়ারে অবস্থিত মেয়েদের বোর্ডিং স্কুল নর্থ ফোরল্যান্ড লজে পড়াশোনা করেন।[৩] এরপর মার্গারেথ ১৯৬০-৬১ সালে কেমব্রিজের গিরটন কলেজে প্রাগৈতিহাসিক বিষয়রূপে প্রত্নতত্ত্ব বিষয়ে পড়াশোনা করেন। ১৯৬১ থেকে ১৯৬২ সালের মধ্যে আরহাস বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে। ১৯৬৩ সালে অধ্যয়ন করেন সরবোনের প্যারিস বিশ্ববিদ্যালয়ে। এছাড়াও ১৯৬৫ সালে লন্ডন স্কুল অফ ইকোনমিক্সে অধ্যয়ন করেন।

সোসাইটি অফ এন্টিকোয়ারিস অফ লন্ডনের ফেলো তিনি। রাণী মার্গারেথ ড্যানীয়, ফরাসি, ইংরেজি ও জার্মান ভাষায় বিশুদ্ধভাবে কথা বলতে পারেন।[৪]

রাজ্যাভিষেক[সম্পাদনা]

জন্মগ্রহণের সময় তিনি ডেনমার্কের উত্তরাধিকারী ছিলেন না এবং ভাই ছিল না। ঐ সময় শুধুমাত্র পুরুষেরাই ডেনমার্কের উত্তরাধিকারিত্বের অধিকারী ছিলেন। ১৯৪৭ সালে সংবিধান পরিবর্তনে পদক্ষেপ গ্রহণ শুরু হয়। পরবর্তীতে ২৭ মার্চ, ১৯৫৩ সালে গ্লুক্সবার্গ সভায় নতুন অধ্যাদেশ জারি করে উত্তরাধিকারের জটিলতা নিরসন করে ভবিষ্যতের বাঁধা দূর করা হয়। তা নাহলে তাঁর চাচা প্রিন্স নুড ক্ষমতায় আরোহণ করতেন। ১৬ এপ্রিল, ১৯৫৮ খ্রিস্টাব্দে মার্গারেথের অষ্টাদশ জন্মদিনে স্টেট কাউন্সিলের সদস্য মনোনীত করা হয়। রাজার অনুপস্থিতিতে তিনিই সভায় সভাপতিত্ব করতেন।

১৯৭২ সালে রাজা নবম ফ্রেদেরিক মৃত্যুবরণ করেন। এরফলে ড্যানীয় সাম্রাজ্যের প্রথম নারী রাষ্ট্রপ্রধান হন রাণী মার্গারেথ।[৫]

বৈবাহিক জীবন[সম্পাদনা]

১০ জুন, ১৯৬৭ খ্রিষ্টাব্দে ফরাসি কূটনীতিবিদ কাউন্ট হেনরি ডি লাবোর্দে ডি মনপেজাতের সাথে কোপেনহেগেনের চার্চ অফ হলম্যানে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন প্রিন্সেস মার্গারেথ। লাবোর্দে ডি মনপেজাতকে ড্যানীয় সিংহাসনের সাথে জড়িত থাকতে মহামান্য রাজকুমার ডেনমার্কের হেনরিক নতুন পদবী প্রদান করা হয়।

২৬ মে, ১৯৬৮ খ্রিষ্টাব্দে এ দম্পতির প্রথম সন্তান জন্ম নেয়। সনাতনী ধারায় স্বয়ংক্রীয়ভাবে ড্যানীয় রাজাদের নাম হবে ফ্রেদেরিক অথবা ক্রিস্টিয়ান। তিনি ক্রিস্টিয়ানের পরিবর্তে জ্যেষ্ঠ সন্তানের নাম রাখেন ফ্রেদেরিক। দ্বিতীয় সন্তান জোয়াচিমের জন্ম হয় ৭ জুনা, ১৯৬৯ তারিখে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Maclagan, M & Louda, J., Lines of Succession, London, Orbis Publishing, 1981 Tables 20 and 22
  2. "Those Apprentice Kings and Queens Who May – One Day – Ascend a Throne," New York Times. 14 November 1971.
  3. The Illustrated London News, vol. 227, Issue 2 (1955), p. 552
  4. "The Danish Monarchy"। সংগৃহীত 11 May 2010 
  5. Queen Margrete I ruled Denmark, Norway and later also Sweden between 1387 and 1412. She was a Danish princess, who married the King of Norway, and thus became Queen. She had a baby boy, and when her husbond died, the little boy was formally chosen to be king of both Norway and Denmark. Because the new king was still very young, his mother, Queen Margrete ruled in his name. The young king died when he was 17 years old, but his mother continued to rule both countries, and from 1397 Sweden was added, and she became the ruler of all of Scandinavia. She was however never a Sovereign.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

দ্বিতীয় মার্গারেথ
ওল্ডেনবার্গ হাউজ এর ক্যাডেট শাখা
জন্ম: ১৬ এপ্রিল ১৯৪০
Regnal titles
পূর্বসূরী
নবম ফ্রেদেরিক
ডেনমার্কের রাণী
১৯৭২-বর্তমান


দায়িত্ব/অবশ্য কর্তব্য
দৃশ্যতঃ উত্তরাধিকারী:
ফ্রেদেরিক
উত্তরাধিকারসূত্রে লাইন
পূর্বসূরী
কাউন্টেস কাসা বার্নাদোতে
ব্রিটিশ রাজমুকুটে উত্তরাধিকার
ভিক্টোরিয়ার পুত্র আর্থারের বংশোদ্ভূত


উত্তরসূরী
দ্য ক্রাউন প্রিন্স অফ ডেনমার্ক

টেমপ্লেট:Monarchs of Denmark টেমপ্লেট:Danish princesses টেমপ্লেট:Heads of state of the European Union Member states