জাতক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ভূটানে অঙ্কিত আনুমানিক অষ্টাদশ অথবা ঊনবিংশ শতাব্দীর থাঙ্কা চিত্রে জাতকের কাহিনি বর্ণিত হয়েছে, ফাজোদিং গুম্ফা, থিম্পু, ভূটান

ভারতের প্রাচীনতম গল্পসংগ্রহের নাম হল "জাতক" বা পালি ভাষায় "জাতকত্থ বন্ননা"। জাতক হল ভগবান শাক্যমুনি বুদ্ধের পূর্বজন্মের কাহিনির সঙ্কলন। অনেকের মতে 'জাতক' হল পৃথিবীর সমস্ত ছোট গল্পের উৎস। কথিত আছে বৌদ্ধধর্ম প্রচারের জন্য সম্রাট অশোকের পুত্র মহেন্দ্র (পালি: মহেন্দ) যখন সিংহলে গিয়েছিলেন তখন তার সঙ্গে ছিল জাতকের কাহিনিগুলি। সেই মূল গ্রন্থ এখন বিলুপ্ত। সিংহলি ভাষায় যে জাতক প্রচলিত আছে, বর্তমানের "জাতকমালা" তারই অনুবাদ। কারও মতে পঞ্চম শতাব্দীতে সিংহলি ভাষা থেকে পালি ভাষায় এ রূপান্তর নাকি ঘটিয়েছিলেন বুদ্ধ ঘোষ। কিন্তু আধুনিক গবেষকগণ কেউই এই কথা সম্পূর্ণরূপে মেনে নিতে পারেননি। এই গল্পগুলির রচনাকাল সম্পর্কে সাহিত্যিক নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায় যা লিখেছিলেন তার কিছু অংশ এখানে তুলে দেওয়া হল -"বর্তমান জাতক কাহিনিমালা যাঁরই অনুদিত হোক এগুলি যে ভারতের প্রাচীনতম সঙ্কলন এবং এদের অনেকগুলিই যে খ্রিস্টজন্মের দ্বিতীয় বা তৃতীয় শতকের পূর্ববর্তী এ সম্বন্ধে সকলেই একমত হয়েছেন। এদের কিছু কিছু কাহিনি বুদ্ধের জন্মের পূর্ব থেকেই চলিত, কতগুলি বুদ্ধের সমকালীন, কতগুলি বা পরবর্তী। মোটের উপর খ্রিস্টপূর্ব তৃতীয় শতক থেকে খ্রিস্টীয় পঞ্চম শতক পর্যন্ত জাতককাহিনির নির্মিতিকাল বলে ধরে নেওয়া যেতে পারে।" জাতকের রচনাকৌশল মধ্যযুগীয় ইউরোপের অনেক রচনাতে গ্রহণ করা হয়েছিল। মূল গল্পেরও অনেকগুলিই পাওয়া যায় 'আরব্য উপন্যাস' বা 'দেকামেরোন'-এ। অবশ্য পথ পরিক্রমায় মূল গল্প অনেক পরিবর্তিত হয়েছে। আর্য জাতির প্রাচীনতম গল্প সঙ্কলন- এ সম্মান জাতকের যথার্থই প্রাপ্য। জাতকে প্রায় সাড়ে পাঁচশ গল্প অন্তর্ভুক্ত আছে। এ সব গল্পে ধরা পড়েছে প্রায় সহস্র বছর ব্যাপী ভারতে প্রচলিত বিভিন্ন রীতিনীতি, আচার ব্যবহার তথা জীবনচর্যা। প্রতিটি জাতকে আছে পাঁচটি অঙ্গ। সেগুলি হল: (১) পচ্চুপ্পন বত্থু (অর্থাৎ সূচনাপর্ব, বর্তমানের পটভূমি), (২) অতীত বত্থু (গদ্যে বোধিসত্ত্বের অতীত জন্মগত মূল কাহিনিটির বর্ণনা), (৩) গাথা-কবিতায় কাহিনির মর্মবীজ (এইগুলিই জাতকের প্রাচীনতম উপকরণ, এদের উপর ভিত্তি করেই পরবর্তীকালে কাহিনির ভাষ্যরূপ), (৪) বেজ্জকরণ (এতে গাথার আক্ষরিক অর্থ ব্যাখ্যা করা হয়েছে), (৫) সমবধান বা যোগ রচনা (পাত্রপাত্রীদের সঙ্গে বর্তমানের ঐক্য বিনিময় করা হয়েছে।