হায়দার পাশা মসজিদ

স্থানাঙ্ক: ৩৫°১০′৩৯″ উত্তর ৩৩°২১′৫৮″ পূর্ব / ৩৫.১৭৭৫° উত্তর ৩৩.৩৬৬১° পূর্ব / 35.1775; 33.3661
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হায়দার পাশা মসজিদ
Χαϊντάρ-πασά τζαμί
Haydarpasha Mosque (St. Catherine Church), Nicosia (4).JPG
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিসুন্নি ইসলাম
অঞ্চলসাইপ্রাস
অবস্থান
অবস্থানউত্তর নিকোসিয়া, সাইপ্রাস
দেশতুরস্ক
স্থানাঙ্ক৩৫°১০′৩৯″ উত্তর ৩৩°২১′৫৮″ পূর্ব / ৩৫.১৭৭৫° উত্তর ৩৩.৩৬৬১° পূর্ব / 35.1775; 33.3661
স্থাপত্য
ধরনমসজিদ
স্থাপত্য শৈলীইসলামী স্থাপত্য
প্রতিষ্ঠার তারিখ১৪শতক
অভ্যন্তর

হায়দার পাশা মসজিদ (গ্রিক: Χαϊντάρ-πασά τζαμί Chaintár-pasa Tzamí, তুর্কী: Haydarpaşa Camii), পূর্বে সেন্ট ক্যাথেরিনের চার্চ হচ্ছে সাইপ্রাসের উত্তর নিকোসিয়ায় অবস্থিত একটি মসজিদ‌। আয়া সোফিয়া এর পরে এটি নিকোসিয়ার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভবন, কারণ পূর্বে নিকোসিয়ার ফরাসি(ল্যাটিন) ক্যাথলিক গির্জা ছিলো।[১]এটিকে হ্যারি চার্লস লুক ঐ দ্বীপের ভবনগুলোর অন্যতম সেরা ভবন হিসাবে বর্ণনা করেছেন।

ভবনটি ১৪ শতকে নির্মিত হয় তৎকালীন ফরাসি উপনিবেশ সাইপ্রাস রাজ্যে এবং তখন এটি সেন্ট ক্যাথেরিনের গির্জা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় ‌।[২]১৫৭০ সালে অটোমানদের দ্বারা নিকোসিয়া জয়ের পর এটি একটি মসজিদে রূপান্তরিত হয়। এটিকে ঐতিহাসিকভাবে "আগালার কামিসি" নামেও ডাকা হত যার অর্থ "প্রভুর মসজিদ" কারণ এটি তুর্কি স্থানীয় অভিজাতরা ঘন ঘন যাতায়াত করতো যারা এর আশেপাশে বসবাস করত।[৩]এটি কির্লিজাদ সড়কে অবস্থিত।[৪]

ভবনের ডানদিকে সেই জায়গা যাকে সেন্ট ক্যাথরিন বলা হয় সেখানে ১৯ শতকেও দেখা গেছে গ্রীক সাইপ্রিয়টরা প্রায়ই এসে তাদের তেলের বাতি জালিয়েছে। সামনের দরজাটি একটি সূক্ষ্ম গথিক শৈলীতে যার খিলানযুক্ত কার্নিসটি পপি-মাথায় শেষ হয়। এটির উপরে একটি ক্যাথরিন চাকাও রয়েছে। ডানদিকে একটি মিনার রয়েছে যা আয়া সোফিয়ার পরে পুরানো শহরের সবচেয়ে উঁচু মিনার।[৫] দুটি মজবুত দরজা আছে। পশ্চিম দরজায় একটি মার্বেল কারুকাজ আছে যেখানে দুটি ড্রাগনের মাঝে তিনটি গোলাপ খচিত। দক্ষিণ দিকে আরেকটি মজবুত দরজা আছে।[১]

বাম দিকে আছে মসজিদ সংলগ্ন একটি অর্ধ ধ্বংসপ্রাপ্ত ভবন যার মধ্যে শুধুমাত্র কয়েকটি গথিক খিলান অবশিষ্ট আছে। ডানদিকে লতাপাতার কারুকার্য খচিত একটি দরজা রয়েছে। তিনটি গথিক জানালা যার মধ্যে দুটি সরু স্তম্ভ দ্বারা বিভক্ত আলম্ব ও শীর্ষ মর্কট আকৃতির। মসজিদের বাম দিকে একই ধরনের গুচ্ছ বর্গাকার বুরুজ রয়েছে।

অভ্যন্তরীণ চুনকাম অনেকটা ঝরে পড়েছিল [৫]যা ২০ শতকে তুলে ফেলে রং করার হয়‌।[১] দুটি গথিক খিলান মূল খিলানটিকে সমর্থন করে যার। এপস ছয় পাঁজরে একটি গুচ্ছ কলামের উপর খিলানের মধ্যপ্রস্তর থেকে উৎস পর্যন্ত।[৫]এপস-এর উত্তরে একটি স্যাক্রিস্টি রয়েছে যার খিলানটি সূক্ষ্মভাবে খোদাই করা ।[১]এই মসজিদের ডানদিকে মিহরাব ও মিম্বার রয়েছে।[৫]এটি এখন একটি আর্ট গ্যালারি হিসাবে ব্যবহৃত[৬] এবং পূর্বে একটি বিবাহ নিবন্ধন অফিস ছিল‌।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Historic Cyprus - A Guide to its Towns and Villages, Monasteries and Castles", by Rupert Gunnis (former Inspector of Antiquities in Cyprus), pub 1936, reprinted 1973 by Halkin Sesh Ltd, Nicosia. Pp 58-60
  2. "Haydarpasha Mosque (St Catherine's Church)"। Cypnet। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১৫ 
  3. Keshishian, Kevork K.। Nicosia: Capital of Cyprus Then and Now (2nd সংস্করণ)। Nicosia: The Moufflon Book and Art Centre। পৃষ্ঠা 186। 
  4. Gürkan, Haşmet Muzaffer। Dünkü ve Bugünkü Lefkoşa (Turkish ভাষায়) (3rd সংস্করণ)। Galeri Kültür। পৃষ্ঠা 128–132। আইএসবিএন 9963660037 
  5. Levkosia, the capital of Cyprus" by Archduke Louis Salvator, 1881
  6. Lonely Planet Cyprus, By Lonely Planet, Josephine Quintero, 2012