হাইপোথেটিকো ডিডাকটিভ মডেল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

হাইপোথেটিকো ডিডাকটিভ মডেল হচ্ছে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির একটি প্রস্তাবিত বর্ণনা। বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধানের মতে এটা (বর্ণনা) দৃশ্যায়িত তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে সবকিছুকে এমনভাবে সংগঠিত করে, যার ফলে একটি প্রকল্পকে (হাইপোথিসিস) মিথ্যা প্রমাণ করা যায়। প্রতিটা হাইপোথিসিস থেকে কিছু ভবিষ্যৎবাণী করা যায়, হাইপোথিসিসকে মিথ্যা প্রমাণ করার জন্য এমন কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষা করা যায়, যার ফলাফল হাইপোথিসিসের বিরুদ্ধে যায়। একে বলা হয় প্রকল্পটির অসত্যকরণ। পরীক্ষাটা যদি সম্পন্ন হয় কিন্তু তার ফলাফল প্রকল্পটির সাথে সাংঘর্ষিক না হয়, তাহলে তা প্রকল্পটিকে দৃঢ়ভাবে সত্যায়িত করে। তখন অন্য ভবিষ্যৎবাণী করা প্রকল্পগুলোর সাথে, এই প্রকল্পটিকে তুলনা করা হয় এবং দেখা হয় কোন প্রকল্পটি অধিকতর শ্রেয়ভাবে ভবিষ্যৎবাণী করতে পারছে।

উদাহরণ[সম্পাদনা]

হাইপোথিটিকো ডিডাক্টিভ মডেলের একটা এলগরিদমিক উদাহরণ নীচে উল্লেখিত হলো:[১]

. নিজের অভিজ্ঞতা ব্যবহার করুনঃ সমস্যা নিয়ে বিবেচনা করুন এবং একে বিশ্লেষন করুন। উপাত্ত সংগ্রহ করুন ও পুর্বের ব্যাখ্যাগুলোকে পর্যবেক্ষণ করুন। যদি এটা আপনার জন্য নতুন সমস্যা হয়, তাহলে দ্বিতীয় ধাপ অনুসরণ করুন।
. একটা অনুমান নির্ভর প্রকল্প (হাইপোথিসিস) গঠন করুন, যখন কোনোকিছুই জানা যায় নি, তখন একটি ব্যখ্যা অন্য কাওকে দিন অথবা নিজের নোটবুকে উল্লেখ করুন।
. প্রকল্প থেকে ভবিষ্যৎ অনুমান করো, যদি এটা স্বতঃসিদ্ধভাবে মেনে নাও তোমার অনুমান সঠিক, তাহলে পরবর্তী ধাপ অনুসরণ করো।
. পরীক্ষা (অথবা পরীক্ষণ): প্রমাণ খোঁজা হয় যাতে করে তা নং ধাপ থেকে যে ভবিষ্যৎ গুলো অনুমান করা হয়েছে, তার সাথে সাংঘর্ষিক হয়। এটা আসলে করা হয়, যাতে করে নং ধাপে যে ভবিষ্যৎ অনুমান করা হয়েছে, তার সত্যতা খুঁজে পাওয়া যায়। এরকম প্রথাগত হেত্বাভাষকে বলা হয় ক্রমবিন্যাসের সত্যায়িতকরণ[২]

এই মডেলের একটি সম্ভাব্য ক্রমবিকাশ হচ্ছে , , , । যদি নং ধাপের মাধ্যমে নং ধাপকে অপ্রমাণিত করা না যায়, তাহলে , , অনুসরণ করে, পরবর্তী ভবিষ্যৎ পুনঃপুন অনুমান করা ও পরীক্ষণ করতে হবে, কিন্তু যদি নং ধাপের মাধ্যমে নং ধাপ মিথ্যা প্রমানিত হয় তাহলে নং ধাপে ফিরে যেতে হবে ও নতুন করে ২ নং ধাপ আবিষ্কার করতে হবে (হাইপোথিসিস দেওয়া)। এবং ৩ নং ধাপে অনুমান ও ৪ নং ধাপে পরীক্ষানিরীক্ষা করতে হবে।

উল্লেখ করার মত বিষয় হলো, এই পদ্ধতিতে নং ধাপ সম্পুর্ণভাবে প্রমাণ করা হয় না। এটা শুধুমাত্র নং ধাপকে অসত্যায়িত করে।[৩] (এই কারণেই আইন্সটাইন বলেছেন, "পরীক্ষণের বিরাট রকমের প্রাচুর্যতা কখনোই আমাকে সঠিক প্রমাণ করতে পারে না, বরঞ্চ একটা সাধারণ পরীক্ষণ আমাকে ভুল প্রমাণ করতে পারে।"[৪])

আলোচনা[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

অনুমিতির ধরণ[সম্পাদনা]

সাইটেশন[সম্পাদনা]

  1. Peter Godfrey-Smith (2003) Theory and Reality, p. 236.
  2. Taleb 2007 e.g., p. 58, devotes his chapter 5 to the error of confirmation.
  3. "I believe that we do not know anything for certain, but everything probably." —Christiaan Huygens, Letter to Pierre Perrault, 'Sur la préface de M. Perrault de son traité del'Origine des fontaines' [1763], Oeuvres Complétes de Christiaan Huygens (1897), Vol. 7, 298. Quoted in Jacques Roger, The Life Sciences in Eighteenth-Century French Thought, ed. Keith R. Benson and trans. Robert Ellrich (1997), 163. Quotation selected by Bynum ও Porter 2005, পৃ. 317 Huygens 317#4.
  4. As noted by Alice Calaprice (ed. 2005) The New Quotable Einstein Princeton University Press and Hebrew University of Jerusalem, আইএসবিএন ০-৬৯১-১২০৭৪-৯ p. 291. Calaprice denotes this not as an exact quotation, but as a paraphrase of a translation of A. Einstein's "Induction and Deduction". Collected Papers of Albert Einstein 7 Document 28. Volume 7 is The Berlin Years: Writings, 1918-1921. A. Einstein; M. Janssen, R. Schulmann, et al., eds.

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Philosophy of science