সালেহ আল-মুহায়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Saleh Al-Muhaya
صالح المحيا
জন্ম১৯৩৯
আর রাস, আল কাসিম প্রদেশ, সৌদি আরব 
আনুগত্য সৌদি আরব
সার্ভিস/শাখা সৌদি আরব সেনাবাহিনী
কার্যকাল১৯৫৯-২০১১ (৫৪ বছর) 
পদমর্যাদাজেনারেল 
নেতৃত্বসমূহ
যুদ্ধ/সংগ্রামগালফ যুদ্ধ
ইয়েমেনে শিয়া বিদ্রোহ

ফিল্ড মার্শাল সালেহ আল-মুহায়া (আরবি: صالح المحيا‎‎) সৌদি আরবিয় সেনাবাহিনীর সাবেক চিফ অব দ্যা জেনারেল স্টাফ ছিলেন।[১][২] তিনি  সৌদি সশস্ত্র বাহিনীর ভাইস-কমান্ডার হিসেবেও কাজ করেছেন। গালফ যুদ্ধের সময় ফিল্ড মার্শাল প্রিন্স খালিদ বিন সুলতান সৌদি আরবের সেনাবাহিনীকে নেতৃত্বে দিয়েছিলেন। তার সাথে সালেহ আল-মুহায়াও নেতৃত্ব দিয়েছেন। তাদের অধীনে সৌদি আরবের মিত্রবাহিনী যুদ্ধ করেছে। ইয়েমেনে শিয়া বিদ্রোহ শুরু হলে সৌদি আরব ইয়েমেন আক্রমণ করে। সৌদি আরব ইয়েমেনে সেনা প্রেরণ করে। এই সেনার দায়িত্বে ছিলেন ফিল্ড মার্শাল সালেহ আল-মুহায়া। তিনি এই যুদ্ধে অসাধারণ বীরত্ব দেখিয়েছিলেন, যদিও তখন তিনি তার চাকরীর মেয়াদ প্রায় শেষ করে ফেলেছিলেন। ২০১১ সালে তিনি অবসর গ্রহণ করেন। অবসরের পূর্ব পর্যন্ত তিনি ইয়েমেনে সৌদি আরবের সেনাবাহিনীকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।[৩] তার সর্বোচ্চ পদবী ছিলো জেনারেল।

জীবনী[সম্পাদনা]

ফিল্ড মার্শাল সালেহ আল-মুহায়া ১৯৩৯ সালে সৌদি আরবের আল কাসিম প্রদেশের আর রাস এ জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মানবিক বিভাগ থেকে তার মাধ্যমিক শিক্ষা সম্পন্ন করেন। তিনি বাদশাহ আব্দুল আজিজ মিলিটারি একাডেমীতে ভর্তি হন ও ১৯৫৭ সালে উক্ত প্রতিষ্ঠান থেকে স্নাতক ডিগ্রী অর্জন করেন। তিনি উচ্চশিক্ষার জন্য যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, চিন ইত্যাদি দেশে ভ্রমণ করেন। ব্রিটেনের কমান্ড ও স্টাফ কলেজ থেকে তিনি একটি মিলিটারি প্রশিক্ষণ কোর্স করেন। একই ধরনের কোর্স তিনি সৌদি আরব থেকেও করেন।

অবস্থান[সম্পাদনা]

১৯৭৫ সাল থেকে তিনি এয়ার ডিফেন্স স্কুলের কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এরপর তাকে কমান্ডার ইন চিফের অফিস ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। ১৯৭৯ সালে তিনি উক্ত দায়িত্ব পান। এর তিন বছর ১৯৮২ সালে পর তাকে পরিকল্পনা ও বাজেট বিভাগের পরিচালক করা হয়। ১৯৮৯ সালে তিনি পুর্ব অঞ্চলের বাহিনীর কমান্ডার হিসেবে নিযুক্ত হন। সেখান থেকে তিনি যান রাজকীয় সৌদি ভূ বাহিনীতে। তিনি উক্ত বাহিনীর কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর তাকে সৌদি আরব সেনাবাহিনীর প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। তিনি সৌদি আরবের সেনাপ্রধানদের মধ্যে অন্যতম সফল একজন সেনাপ্রধান। তার নেতৃত্বে সৌদি আরব গালফ যুদ্ধ ও ইয়েমেনে শিয়া বিদ্রোহ দমনে সেনা প্রেরণ করেছিলো। সালেহ আল-মুহায়া মুসলিম বিশ্বে সমধিক পরিচিত ব্যাক্তিত্ব। তিনি সন্ত্রাসবাদ দমনে অতুলনীয় ভূমিকা পালন করেন। 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Indian Express, ফেব্রুয়ারি 10, 1998
  2. "আরব নিউজ, মে 30, 2007"। ১৬ জুন ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ নভেম্বর ২০১৭ 
  3. "রাজকীয় সৌদি আরবের দূতাবাস, ওয়াশিংটন, ডিসি, মে 20, 2011"। ২২ মে ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ নভেম্বর ২০১৭