সাবাং, আচেহ

স্থানাঙ্ক: ৫°৫৩′৩৯″ উত্তর ৯৫°১৯′৯″ পূর্ব / ৫.৮৯৪১৭° উত্তর ৯৫.৩১৯১৭° পূর্ব / 5.89417; 95.31917
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সাবাং শহর
Kota Sabang
শহর
Other প্রতিলিপি
 • Jawoëسابڠ
রুবিয়াহ দ্বীপ, সাবাং
রুবিয়াহ দ্বীপ, সাবাং
সাবাং শহর Kota Sabang অফিসিয়াল সীলমোহর
সীলমোহর
আচেহ -এ অবস্থান
আচেহ -এ অবস্থান
সাবাং শহর Kota Sabang Sumatra-এ অবস্থিত
সাবাং শহর Kota Sabang
সাবাং শহর
Kota Sabang
সাবাং শহর Kota Sabang ইন্দোনেশিয়া-এ অবস্থিত
সাবাং শহর Kota Sabang
সাবাং শহর
Kota Sabang
সাবাং শহর Kota Sabang বঙ্গোপসাগর-এ অবস্থিত
সাবাং শহর Kota Sabang
সাবাং শহর
Kota Sabang
বঙ্গোপসাগরে এবং ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রায় অবস্থান।
স্থানাঙ্ক: ৫°৫৩′৩৯″ উত্তর ৯৫°১৯′৯″ পূর্ব / ৫.৮৯৪১৭° উত্তর ৯৫.৩১৯১৭° পূর্ব / 5.89417; 95.31917
দেশ ইন্দোনেশিয়া
প্রদেশ আচেহ
সরকার
 • মেয়রনজরুদ্দীন
 • ভাইস মেয়রসুরাদজি
আয়তন[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
 • মোট১৫৩.০০ বর্গকিমি (৫৯.০৭ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (mid 2019 Estimate)[১]
 • মোট৩৪,৩৩৩
 • জনঘনত্ব২২০/বর্গকিমি (৫৮০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলIndonesia Western Time (ইউটিসি+৭)
এরিয়া কোড(+৬২) ৬৫২
ওয়েবসাইটsabangkota.go.id

সাবাং হলো একটি শহর যা মূল দ্বীপ (ওয়েহ দ্বীপ) এবং সুমাত্রার উত্তর দিক থেকে বেশ কয়েকটি ছোট দ্বীপ নিয়ে গঠিত। দ্বীপপুঞ্জগুলি ইন্দোনেশিয়ার আচেহ বিশেষ অঞ্চলের মধ্যে একটি শহর তৈরি করে। প্রশাসনিক কেন্দ্রটি ওয়েহ দ্বীপে অবস্থিত  ও বান্দা আচেহ থেকে ১৭ কিমি উত্তরে। শহরটির আয়তন ১৫৩.০ বর্গকিলোমিটার এবং ২০১০ এর আদম শুমারি অনুসারে ৩০,৬৫৩ জন লোক ছিল;[২] সর্বশেষতম অনুমান অনুযায়ী জনসংখ্যা (জুলাই ২০১৯ অনুযায়ী) ৩৪,৩৩৩ জন।[৩] সাবাং ইন্দোনেশিয়ার উত্তরতম এবং পশ্চিমতম শহর হিসাবেও পরিচিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জাপানিরা এই দ্বীপটি দখল করে নিয়েছিল এবং অসংখ্য বাঙ্কার, দুর্গ ও বন্দুকের স্থাপনা স্থাপন করেছিল। তাদের অবশিষ্টাংশগুলি এখনও দেখা যায়, যদিও বেশিরভাগই পুনরায় সংস্কার বা অপসারণ করা হয়েছে।

ভূগোল[সম্পাদনা]

দ্বীপপুঞ্জ[সম্পাদনা]

ইন্দোনেশিয়ার নীচের দ্বীপগুলি সাবংকে ঘিরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে:

  1. ক্লাহ দ্বীপ (০.১৮৬) কিলোমিটার)
  2. রন্ডো দ্বীপ (০.৬৫০) কিলোমিটার)
  3. রুবিয়া দ্বীপ (০.৩৫৭) কিলোমিটার)
  4. সুলাকো দ্বীপ (০.০৫৫) কিলোমিটার)
  5. ওয়েহ দ্বীপ (১২১) কিলোমিটার)

প্রশাসনিক জেলা[সম্পাদনা]

২০১০ সালের আদমশুমারিতে শহরগুলি তাদের অঞ্চল এবং জনসংখ্যার সাথে নীচে তালিকাভুক্ত দুটি জেলাতে ( কেচামতান ) বিভক্ত:

কেচামতন ক্ষেত্রফল
(বর্গ কিমি)
জনসংখ্যা
২০১০ এর
আদমশুমারি [৪]
সংখ্যা
(গ্রামে)
সুকাজায়া ৭২.৩ ১৫,৫৪২ ১০
সুকাকার্য ৫২.৫ 1১৫,১১১

গ্রাম[সম্পাদনা]

সাবাংয়ের দুটি জেলায় ১৮ টি গ্রাম রয়েছে (সুকাজায়া এবং সুকাকার্যা)। সুকাযায় ১০ টি গ্রাম এবং সুকাকারায় ৮ টি গ্রাম ছিল। ২০১৬ এর উপাত্ত অনুসারে সাবাংয়ের সমস্ত গ্রামের নাম সহ নীচে তালিকাবদ্ধ:

গ্রাম কেচামতন
পায়া সুকাজায়া
কেওনকাই সুকাজায়া
বেওরওয়ান সুকাজায়া
জাবোই সুকাজায়া
বালোহান সুকাজায়া
খাট আবেউক সুকাজায়া
খাট বাউ সুকাজায়া
আনোই ইতম সুকাজায়া
উজং কারেং সুকাজায়া
আই মিউল সুকাজায়া
ইবোহহ সুকাকার্য
বাটে শোক সুকাকার্য
পয়া সেউনারা সুকাকার্য
ক্রুং রায়া সুকাকার্য
আনিউক লাওট সুকাকার্য
কোটা বাওয়াহ তৈমুর সুকাকার্য
কোটা বাওয়াহ বারাত সুকাকার্য
কোটা আতস সুকাকার্য
গাপাং বিচ, সাবাং

জলবায়ু[সম্পাদনা]

সাবাংয়ের একটি গ্রীষ্মমণ্ডলীয় রেইন ফরেস্ট জলবায়ু (আফগ) থাকে। ফেব্রুয়ারি থেকে আগস্ট মাসে মাঝারি বৃষ্টিপাত এবং সেপ্টেম্বর থেকে জানুয়ারী পর্যন্ত ভারী বৃষ্টিপাত হয়।

সাবাং-এর আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য
মাস জানু ফেব্রু মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টে অক্টো নভে ডিসে বছর
সর্বোচ্চ গড় °সে (°ফা) ২৭.৪
(৮১.৩)
২৮.৩
(৮২.৯)
৩০.৮
(৮৭.৪)
৩১.৮
(৮৯.২)
২৯.৪
(৮৪.৯)
৩০.০
(৮৬.০)
২৯.৭
(৮৫.৫)
৩০.৫
(৮৬.৯)
২৯.৭
(৮৫.৫)
৩০.১
(৮৬.২)
২৮.৫
(৮৩.৩)
২৭.৫
(৮১.৫)
২৯.৫
(৮৫.১)
দৈনিক গড় °সে (°ফা) ২৫.৮
(৭৮.৪)
২৬.২
(৭৯.২)
২৭.৩
(৮১.১)
২৮.২
(৮২.৮)
২৭.৩
(৮১.১)
২৭.৯
(৮২.২)
২৭.৪
(৮১.৩)
২৮.২
(৮২.৮)
২৭.২
(৮১.০)
২৭.৮
(৮২.০)
২৬.৬
(৭৯.৯)
২৬.১
(৭৯.০)
২৭.২
(৮০.৯)
সর্বনিম্ন গড় °সে (°ফা) ২৪.২
(৭৫.৬)
২৪.২
(৭৫.৬)
২৩.৮
(৭৪.৮)
২৪.৭
(৭৬.৫)
২৫.৩
(৭৭.৫)
২৫.৯
(৭৮.৬)
২৫.২
(৭৭.৪)
২৬.০
(৭৮.৮)
২৪.৮
(৭৬.৬)
২৫.৬
(৭৮.১)
২৪.৮
(৭৬.৬)
২৪.৭
(৭৬.৫)
২৪.৯
(৭৬.৯)
বৃষ্টিপাতের গড় মিমি (ইঞ্চি) ১৮৩
(৭.২)
১১২
(৪.৪)
১০০
(৩.৯)
১০০
(৩.৯)
১৫৪
(৬.১)
১১০
(৪.৩)
১১৪
(৪.৫)
৯৯
(৩.৯)
১৭৪
(৬.৯)
২১৭
(৮.৫)
২৪১
(৯.৫)
৩৩৯
(১৩.৩)
১,৯৪৩
(৭৬.৪)
উৎস: Climate-Data.org[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Badan Pusat Statistik, Jakarta, 2019.
  2. Seta,William J। Atlas Lengkap Indonesia dan Dunia (untuk SD, SMP, SMU, dan Umum)। Pustaka Widyatama। পৃষ্ঠা 7। আইএসবিএন 979-610-232-3 
  3. Badan Pusat Statistik, Jakarta, 2019.
  4. Biro Pusat Statistik, Jakarta, 2011.
  5. "Climate: Sabang"। Climate-Data.org। সংগ্রহের তারিখ ২৯ অক্টোবর ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]