শীলা ভাটিয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শীলা ভাটিয়া
Sheila Bhatia.png
জন্ম১ মার্চ ১৯১৬
শিয়ালখট, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু১৭ ফেব্রুয়ারী ২০০৮
ভারত
পেশাকবি, নাটক লেখিকা, মঞ্ছ ব্যক্তিত্ব
যে জন্য পরিচিতপাঞ্জাবি অপেরা
পুরস্কারপদ্মশ্রী
সঙ্গীত নাটক একাডেমি এওয়ার্ড
পাঞ্জাবি একাডেমি পরম সাহিত সম্মান
দিল্লী প্রশাসনিক পুরস্কার
গালিব এওয়ার্ড
পাঞ্জাবি আর্টস কাউন্সিল এওয়ার্ড
ডি এ বেস্ট ডিরেক্টর এওয়ার্ড
উর্দু একাডেমি এওয়ার্ড
কালিদাস সম্মান
পরম সহিত সরকার সম্মান

শীলা ভাটিয়া একজন ভারতীয় কবি, নাটক লেখিকা,[১] মঞ্চ ব্যাক্তিত্ব[২][৩] এবং দিল্লী আর্ট থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন। এটি একটি ফোরাম যেটি ভারতীয় আর্ট এর ধরণকে উৎসাহিত করে।[৪] পাঞ্জাবি অপেরা, একটি ভারতীয় নৃত্য নাটকের ধরণ, এই ধরণটি শিলা ভাটিয়ার হাত ধরেই তৈরি হয়েছে।[৫][৬][৭][৮] ১৯৭১ সালে, ভারত সরকারের চতুর্থ ভারতীয় বেসামরিক পদক পদ্মা শ্রীতে ভূষিত হন।[৯] প্রায় এক যুগ পরে, ১৯৮২ সালে তিনি সঙ্গীত নাটক একাডেমি পুরস্কারে ভূষিত হন।[১০] ১৯৯৭ সালে কালিদাস সম্মান পুরস্কারে ভূষিত হন।[১১]

জীবনি[সম্পাদনা]

১৯১৬ সালের ১ মার্চ শিলা ভাটিয়া জন্মগ্রহণ করেন।[৫] তার জন্মস্থান ব্রিটিশ ভারতের শিয়ালকটে, বর্তমানে স্থানটি পাকিস্কনের অন্তর্ভুক্ত।[১১] বিএ ডিগ্রি লাভের পর তিনি শিক্ষায় ডিগ্রি অর্জন করেন এবং লাহোরে একজন গণিতের শিক্ষক হিসেনে জীবিকা শুরু করেন। তিনি নিজেকে ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামেও সম্পৃক্ত করেন।[৪] এরপরে তিনি দিল্লী ফিরে আসেন যেখানে তিনি দিল্লী আর্ট থিয়েটার প্রতিষ্ঠা করেন।[৫][১২] এছাড়া তিনি ডিপার্টমেন্ট হেড হিসেবে ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামাতেও চাকুরি করেন।[১১]

শিলা ভাটিয়ার প্রথম প্রডাকশন ছিল "উপতক্যার ডাক", যা ছিল সঙ্গীত নাটক।[৪][৫] এরপরে আরও ৬০ টি সৃষ্টিকর্ম তিনি তৈরি করেছেন।[১] যেমন হিয়ার রঞ্জা (১৯৫৭), দরদ আগেয়া ডাবে পাওন (১৯৭৯), সুলগাদা দারিয়া (১৯৮২), ওমর খৈয়াম (১৯৯০), নসীব (১৯৯৭), চান বদলা দে, লোহা কুট[১৩] গালিব কওন থা এবং পাঞ্জাবের নাদির শাহ, কেইসা ইয়েহ আওরাত হে (১৯৭২), হাওয়া সে হিপি টাক (১৯৭২), ইয়েহ মেরি ইশক নাহিন আসান (১৯৮০) উর্দুতে।[৫][১১][১২] তিনি ফাইজ আল ফাইজের ভক্ত ছিলেন।[১৪][১৫] এছাড়া ভাটিয়া ১০ টি বইও লিখেছেন।[১১]

১৯৭১ সালে ভারত সরকার তাকে পদ্মা শ্রী পদকে ভূষিত করেন।[৯] ১৯৮২ সালে সঙ্গীত নাটক একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন।[১০] পরের বছর পরপর পাঞ্জাবি আর্টস কাউন্সিল পুরস্কার এবং গালিব পুরস্কার লাভ করেন।[১১] ১৯৮৬ সালে দিল্লী প্রশাসনের পক্ষ থেকে শ্রেষ্ঠ পরিচালকের পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৯৭ সালে কালিদাস সম্মান পুরস্কার লাভ করেন।[১১] এছাড়া তিনি উর্দু একাডেমি এওয়ার্ডও লাভ করেন।[১১] ২০০০ সালে পাঞ্জাবি একাডেমি তাকে পরম সহীত সম্মান পদকে ভূষিত করেন।[১৬]

শিলা ভাটিয়া ১৭ই ফেব্রুয়ারী ২০০৮ সালে, ৯১ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Ananda Lal (ed.) (২০০৪)। The Oxford Companion to Indian Theatre। Oxford University Press। আইএসবিএন 9780195644463 
  2. "Aesthetics of Indian Feminist Theatre"। Rup Katha। ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৫ 
  3. Susie J. Tharu, Ke Lalita (১৯৯৩)। Women Writing in India: The twentieth century। Feminist Press। পৃষ্ঠা 688। আইএসবিএন 9781558610293 
  4. "Rich tributes paid to Sheila Bhatia"। The Hindu। ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৫ 
  5. "Shiela Bhatia – A legend of Indian Operas passes away"। Stage Buzz। ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৫ 
  6. Stanley Hochman (১৯৮৪)। McGraw-Hill Encyclopedia of World Drama। McGraw-Hill। পৃষ্ঠা 2900। আইএসবিএন 9780070791695 
  7. Colin Chambers (২০০৬)। Continuum Companion to Twentieth Century Theatre। A&C Black। পৃষ্ঠা 896। আইএসবিএন 9781847140012 
  8. Gurcharan Singh (১৯৯০)। Studies in Punjab History & Culture। Enkay Publishers। পৃষ্ঠা 281। আইএসবিএন 9788185148298 
  9. "Padma Shri" (PDF)। Padma Shri। ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০১৪ 
  10. "Sangeet Natak Akademi Award"। Sangeet Natak Akademi। ২০১৫। ৩০ মে ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৫ 
  11. Kartik Chandra Dutt (১৯৯৯)। Who's who of Indian Writers, 1999: A-M। Sahitya Akademi। পৃষ্ঠা 1490। আইএসবিএন 9788126008735 
  12. Manoj Sharma (১৬ নভেম্বর ২০১১)। "Capital's cultural affair began in 50s"। Hindustan Times। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৫ 
  13. Habib Tanvir (২০১৪)। Memoirs। Penguin। পৃষ্ঠা 400। আইএসবিএন 9789351182023 
  14. "India, whose love could have killed him"। Dawn। ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৫ 
  15. Amaresh Datta (১৯৮৮)। Encyclopaedia of Indian Literature, Volume 2। Sahitya Akademi। পৃষ্ঠা 987। আইএসবিএন 9788126011940 
  16. "Academy award for Harkishan Singh"। The Tribune। ১৮ মে ২০০০। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৫