শিবাকার্তিকেয়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শিবাকার্তিকেয়ন
২০১৯ সালে শিবাকার্তিকেয়ন
জন্ম
শিবাকার্তিকেয়ন দোস

(1985-02-17) ১৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫ (বয়স ৩৮)
অন্যান্য নামএসকে, প্রিন্স
শিক্ষাজে. জে. কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি, ত্রিচি (বি.ই.)
পেশা
  • অভিনেতা
  • গায়ক
  • চলচ্চিত্র প্রযোজক
  • গীতিকার
  • টেলিভিশন উপস্থাপক
কর্মজীবন২০০৭ – বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীআরতি (বি. ২০১০)
সন্তান
সম্মাননাকালাইমামণি (২০২০)

শিবাকার্তিকেয়ন (ইংরেজি: Sivakarthikeyan) (জন্ম ১৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫) হলেন একজন ভারতীয় অভিনেতা, গায়ক, চলচ্চিত্র প্রযোজক, গীতিকার এবং টেলিভিশন উপস্থাপক, যিনি মূলত তামিল চলচ্চিত্রে তার কাজের জন্য পরিচিত।[১] তিনি তার প্রযোজনা সংস্থা শিবাকার্তিকেয়ন প্রোডাকশনের অধীনে চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন।[২]

প্রারম্ভিক জীবন এবং শিক্ষা[সম্পাদনা]

শিবাকার্তিকেয়ন ভারতের তামিলনাড়ুর শিবগঙ্গা জেলার সিঙ্গাম্পুনারিতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ত্রিচির জে.জে. কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজিতে শিক্ষা গ্রহণ করেন এবং একই কলেজ থেকে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ডিগ্রি অর্জন করেন।[৩]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

শিবকার্থিকেয়ন একজন বহু-প্রতিভাবান শিল্পী যিনি ভারতীয় বিনোদন শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। তিনি শুধু একজন অভিনেতাই নন একজন গায়ক, চলচ্চিত্র প্রযোজক, গীতিকার এবং টেলিভিশন উপস্থাপকও। তার বহুমুখী প্রতিভা তাকে তার ভক্তদের হৃদয়ে একটি বিশেষ স্থান অর্জন করেছে।

একজন অভিনেতা হিসেবে, তিনি অসংখ্য তামিল চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন, ২০০৭ সালে তার কর্মজীবন শুরু করে এবং বর্তমান দিন পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে। তার উল্লেখযোগ্য কিছু চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে "কেদি বিল্লা কিল্লাদি রাঙ্গা," "রেমো," "ভেলাইক্কারন," "কানা" এবং "ডক্টর।"

শিবকার্থিকেয়ন তার প্রযোজনা সংস্থা, শিবকার্থিকেয়ন প্রোডাকশন এর জন্যও পরিচিত, যার অধীনে তিনি বেশ কয়েকটি সফল চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন।[৪]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

শিবকার্থিকেয়ন ২৭ আগস্ট ২০১০-এ আরতিকে বিয়ে করেছিলেন, এবং এই দম্পতি দুটি সন্তান রয়েছে: আরাধনা নামে একটি কন্যা, ২০১৩ সালের অক্টোবরে জন্মগ্রহণ করেন এবং ২০২১ সালের জুলাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন গুগান দোস নামে একটি পুত্র৷ মজার বিষয় হল, আরাধনা এমনকি একটি গান গাইতে তার বাবার সাথে যোগ দিয়েছিলেন কানা ফিল্ম থেকে ভায়াদি পেথা পুল্লা শিরোনাম।[৫]

ফিল্মগ্রাফি[সম্পাদনা]

ডিস্কোগ্রাফি[সম্পাদনা]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

বিতর্ক[সম্পাদনা]

শিবকার্থিকেয়ন তার কর্মজীবনে বিতর্ক থেকে মুক্ত ছিলেন না। ২০১৬ সালে, *রেমো*-এর সাফল্যের সময়, তিনি ছবিটি মুক্তিতে বাধার সম্মুখীন হন। কিছু প্রযোজকের কাছ থেকে প্রতিশ্রুতি পূরণ না করার অভিযোগ ছিল। ২০২২ সালে, কোরিয়ান লোকদের সম্পর্কে তার মন্তব্য বর্ণবাদের অভিযোগ সহ প্রতিক্রিয়া পেয়েছিল।[৬]

শিবকার্থিকেয়নের কর্মজীবন ভারতীয় বিনোদন শিল্পে তার প্রতিভা এবং বহুমুখীতার প্রমাণ, এবং তিনি তামিল সিনেমার একজন প্রিয় ব্যক্তিত্ব হিসেবে অবিরত আছেন। অভিনেতা, প্রযোজক, গায়ক এবং গীতিকার হিসাবে তাঁর নৈপুণ্যের প্রতি তাঁর উত্সর্গীকরণ এবং অবদান তাঁকে ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতে একটি বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব করে তোলে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Sivakarthikeyan - BookMyShow"। BookMyShow। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০৯-১৬ 
  2. "Sivakarthikeyan News: Latest News and Updates on Sivakarthikeyan at Times of India"। Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০৯-১৬ 
  3. "Sivakarthikeyan - Filmibeat"। Filmibeat। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০৯-১৬ 
  4. "Sivakarthikeyan: If I don't accept my failures, you won't accept my victories"। The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০৯-১৬ 
  5. "Sivakarthikeyan - Bollywood Life"। Bollywood Life। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০৯-১৬ 
  6. "Sivakarthikeyan - Indian Express"। Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০৯-১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]


টেমপ্লেট:SIIMA Award for Best Actor