শত্রু সম্পত্তি আইন, ১৯৬৮

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শত্রু সম্পত্তি আইন, ১৯৬৮
Emblem of India.svg
ভারতীয় সংসদ
প্রণয়নকারীভারতীয় সংসদ
গৃহীত হয়১৯৬৮
প্রণয়নকাল১৯৬৮
উপস্থাপনকারীকিরেন রিজিজু
অবস্থা: বলবৎ

শত্রু সম্পত্তি আইন, ১৯৬৮ হল ভারতের সংসদের একটি আইন, যা পাকিস্তানি নাগরিকদের মালিকানাধীন ভারতে সম্পত্তি বণ্টনকে বৈধকরণ ও নিয়ন্ত্রণ করে। আইনটি ১৯৬৫-এর ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের পরে পাস করা হয়েছিল। আইন অনুযায়ী ভারতের জন্য শত্রু সম্পত্তির জিম্মাদারের মালিকানা একটি সরকারি বিভাগকে দেওয়া হয়।[১] শত্রু সম্পত্তি হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ অস্থাবর সম্পত্তিগুলো রয়েছে।[১]

সংশোধনী: শত্রু সম্পত্তি (সংশোধন ও বৈধতা) আইন, ২০১৭[সম্পাদনা]

মোদি সরকারের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কিরেন রিজিজু শত্রু সম্পত্তি (সংশোধনী ও বৈধতা) বিল, ২০১৬ উত্থাপন করেন। এই সংশোধনী ৭ জানুয়ারী ২০১৬ এ জারি করা একটি অধ্যাদেশ প্রতিস্থাপন করার উদ্দেশ্যে উত্থাপিত হয়েছিল।[২]

২০১৬-এর বিলের ধারাগুলো নিম্নরূপ:

  • বিলটি শত্রু সম্পত্তি আইন, ১৯৬৮ সংশোধন করেছে, যাতে শত্রু সম্পত্তির উপর সমস্ত অধিকার, শিরোনাম এবং স্বার্থ ভারতের জন্য শত্রু সম্পত্তির রক্ষকের হাতে ন্যস্ত করা হয়।
  • বিলটি আইনের অধীনে পরিচালিত শত্রু দ্বারা শত্রু সম্পত্তি হস্তান্তরকে বাতিল বলে ঘোষণা করে। এটি ১৯৬৮ সালের আগে বা পরে সংঘটিত স্থানান্তরের ক্ষেত্রে পূর্ববর্তীভাবে প্রযোজ্য।
  • বিলটি দেওয়ানি আদালত এবং অন্যান্য কর্তৃপক্ষকে শত্রু সম্পত্তি সম্পর্কিত বিরোধগুলো উপভোগ করতে নিষেধ করে।[৩]

বিলটি ১০ মার্চ ২০১৭ তারিখে রাজ্যসভায় পাস হয়েছিল।[৪] বিলটি রাজ্যসভায় সংশোধনী সহ, ১৪ মার্চ ২০১৭-এ লোকসভা দ্বারা পাস হয়।[৫]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Lok Sabha passes bill to amend Enemy Property Act", The Economic Times, ৯ মার্চ ২০১৬ 
  2. "Bill to amend Enemy Property Act introduced in Parliament", The Economic Times, ৮ মার্চ ২০১৬ 
  3. "No court appeal, no succession law: How Bill keeps enemy property with Custodian"The Indian Express। ২০১৬-০৩-১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৬-১৪ 
  4. Correspondent, Special। "Enemy Property Bill passed amid Opposition walkout"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৭ 
  5. "Parliament passes Enemy Property bill"The Indian Express। ১৪ মার্চ ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৭