রুদ্রমা দেবী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রুদ্রমা দেবী
রুদ্রমা দেবী
রুদ্রমা দেবীর মূর্তি
পূর্বসূরিগানাপতিদেব
উত্তরসূরিপ্রতাপরুদ্রা
মৃত্যু১২৮৯ অথবা ১২৯৫
সম্ভবত চন্দুপাতলা
(এখন তেলঙ্গানা, ভারত)
দাম্পত্য সঙ্গীবীরভদ্র
রাজবংশকাকতীয়
পিতাগানাপতিদেব

রানী রুদ্রমা দেবী (১২৮৯ বা ১২৯৫ সালে মারা যান), অথবা রুদ্রদেব মহারাজা, কখনও কখনও রুদ্রমদেবী বা রুদ্রম-দেবী নামে ডাকা হয়, ১২৬৩ সাল থেকে তাঁর মৃত্যু পর্যন্ত দাক্ষিণ ভারতের কাকতীয় রাজবংশের শাসক ছিলেন। তিনি ভারতে সাম্রাজ্য শাসনকারী খুব অল্প কয়েকজন নারী মধ্যে একজন ছিলেন এবং সাম্রাজ্য শাসন করার জন্য করার জন্য নিজেকে একজন পুরুষ হিসাবে প্রচার করেছিলেন।[১]

শাসনকাল[সম্পাদনা]

রুদ্রমা দেবী সম্ভবত তাঁর পিতা, গণপতিদেবের সঙ্গে যৌথভাবে কাকতীয় রাজ্যের শাসন শুরু করেছিলেন। তিনি তাঁর পিতার সহকারী হিসাবে ১২৬১ থেকে ৬২ সাল রাজ্য শাসন করেন এবং ১২৬৩ সালে তিনি রাজ্য শাসনের সম্পূর্ণ সার্বভৌমত্ব গ্রহণ করেছিলেন।[২]

তার কাকতীয় পূর্বসূরিদেরকে উল্লিখিত করে, তিনি যোদ্ধা হিসাবে নিয়োগের জন্য বেছে নেন, যারা অনৈক্য ছিল না, তাদের সমর্থনের জন্য জমি রাজস্বের অধিকার তাদের প্রদান করা হয়। এটি একটি উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন ছিল। কাকতীয় রাজ্যের উত্তরাধিকারী এবং পরে বিজয়নগর সাম্রাজ্যের দ্বারা এই নীতি অনুসরণ করা হয়েছিল।[৩][৪]

রুদ্রমা দেবী তাঁর শাসন শুরু হওয়ার পরে পূর্ব গঙ্গা সাম্রাজ্য ও যাদবের থেকে মোকাবেলা করেছিলেন। ১২৭০-এর দশকের শেষ দিকে গোদাবরী নদী অতিক্রম করে তিনি পূর্বতীরের শাসকদের প্রত্যাহার করতে সক্ষম হন এবং তিনি যাদবেরও পরাজিত করেন, এবং পশ্চিমা অন্ধ্রের অঞ্চলটি থেকে তাদের চলে যেতে বাধ্য করা হয়। ১২৭৩ সালে তিনি কায়স্থা সেনাপতি আম্বদেভা দ্বারা তৈরি অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের সাথে মোকাবিলা করার ক্ষেত্রে ব্যর্থ হন। অম্বদেভা কাকতীয়দের অধীনস্থ হওয়ার প্রতিবাদ করেছিলেন এবং তিনি দক্ষিণ পশ্চিম অন্ধ্রের নিয়ন্ত্রণ অর্জন করেছিলেন এবং এখন এটি গুন্টুর জেলা।[৫]

পরিবার এবং উত্তরাধিকার[সম্পাদনা]

চাঁদুপাটলায় রানি রুদ্রমা দেবী মৃত্যুর প্রতিলিপিতে ১২৮৯ খ্রিস্টাব্দ উল্লেখ রয়েছে মৃত্যু তারিখ হিসাবে।

সম্ভবত রুদ্রমা দেবী ১২৪০ সালে চালুক্য রাজবংশের একটি ছোট শাখার সদস্য, বীরভদ্রকে বিয়ে করেছিলেন। এটি প্রায়শই তাঁর পিতার দ্বারা জোট গঠনের জন্য নকশা করা একটি রাজনৈতিক বিয়ে ছিল।[৬] বীরভদ্রক প্রায়শই ইতিহাসে নথিভুক্ত নন এবং প্রশাসনে কোন অংশ নেননি। এই দম্পতির দুই মেয়ে ছিল।[৪]

১২৮৯ খ্রিস্টাব্দে রুদ্রমা দেবী অম্বদেব যুদ্ধে মারা যান, যদিও কিছু সূত্র বলেছিলেন যে তিনি ১২৯৫ সাল পর্যন্ত মারা যাননি।[ক] তাঁর কন্যাদের একজন পুত্র প্রতাপরূদ্র্র রাজ্যের উত্তরাধিকারী ছিলেন, যিনি রুদ্রমা দেবীর থেকেও কম বয়সে চেয়ে সাম্রাজ্যের রাজত্ব পেয়েছিলেন যখন।[৪]

জনপ্রিয় সংস্কৃতিতে[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র নির্মাতা গুনাশেখর রুদ্রমা দেবী'র জীবনির উপর ভিত্তি করে রুদ্রমাদেবী নামে একটি চলচ্চিত্র নির্মান করেন। চলচ্চিত্রটিতে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেন অনুষ্কা শেট্টি, অল্লু অর্জুন, রানা দজ্ঞুবাতি এবং কৃষ্ণনাম রাজু[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

নোটস

  1. One ancient inscription discovered in 1994 suggests that Rudrama Devi died in battle at Chandupatla village on 27 November 1289 but more recent reliable sources make no mention of this and some sources claim she died in 1295.[২][৭] Two sculpture discovered in 2017 may possibly confirm the 1289 location and date.[৮]

উদ্ধৃতি

  1. Ramusack, Barbara N.; Sievers, Sharon L. (১৯৯৯)। Women in Asia: Restoring Women to History। Indiana University Press। পৃষ্ঠা 37। আইএসবিএন 978-0-25321-267-2 
  2. Talbot, Cynthia (২০০১)। Precolonial India in Practice: Society, Region, and Identity in Medieval Andhra। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 273। আইএসবিএন 978-0-19513-661-6 
  3. Talbot, Cynthia (২০০১)। Precolonial India in Practice: Society, Region, and Identity in Medieval Andhra। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 158। আইএসবিএন 978-0-19513-661-6 
  4. Smith, Bonnie G. (২০০৮)। The Oxford Encyclopedia of Women in World History1। Oxford University Press, USA। পৃষ্ঠা 612। আইএসবিএন 978-0-19514-890-9 
  5. Talbot, Cynthia (২০০১)। Precolonial India in Practice: Society, Region, and Identity in Medieval Andhra। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 133–134। আইএসবিএন 978-0-19513-661-6 
  6. Talbot, Cynthia (২০০১)। Precolonial India in Practice: Society, Region, and Identity in Medieval Andhra। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 155–156। আইএসবিএন 978-0-19513-661-6 
  7. Reddy, T. Karnakar (২০ নভেম্বর ২০১৪)। "Govt urged to observe death anniversary of Rani Rudrama Devi"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৮-১৮ 
  8. Venkateshwarlu, K. (৫ ডিসেম্বর ২০১৭)। "Two sculptures of Rani Rudrama Devi shed light on her death"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২০ 
  9. "Anushka to do a Tamil-Telugu period film?"। Times of India। ৬ অক্টোবর ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]