মাতাইল্দ ইউসল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

মাতাইল্দ ইউসলে মাওরতুয়া (জন্ম: ১৯৭২ - মৃত্যু: ২৪ নভেম্বর, ২০০৮) মাদ্রিদে জন্মগ্রহণকারী বিশিষ্ট স্পেনীয় প্রমিলা স্থপতি ছিলেন। প্রথম মহিলা হিসেবে স্পেনে স্থাপত্যকলায় সনদপ্রাপ্ত হন। ২০০৪ সালে তাকে প্রিমিও ন্যাশিওনাল দ্য আর্কুইটেকচুরা দ্য ইস্পানা (স্পেনের জাতীয় স্থাপত্য পুরস্কার) প্রদান করা হয়।[১]

বিশিষ্ট আইনজীবী এনরিক সাঞ্জ ও তদ্বীয় পত্নী পুরা ইউসলে মাওরতোয়া লম্বেরার জ্যেষ্ঠা কন্যা ছিলেন তিনি। লাজ, মার্গারিটা ওয়াই কারম্যান ইউসলে তার বোন ছিলেন। মা পুরে মাওরতোয়া ফেদেরিকো গার্সিয়া লরকার প্রিয় বন্ধু ছিলেন। তিনি লিসিয়াম ক্লাবের দায়িত্বে ছিলেন ও থিয়েটার কোম্পানি আনফিস্তোরার প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন।

ইনস্টিটুটো - এস্কুয়েলা থেকে তিনি তার বাক্কালরেট লাভ করেন। ১৯৩১ সালে মাদ্রিদ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন আর্কিটেকচার বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। সেখানে তিনি ফেদারেশিও ইউনিভারসিতারিয়া এস্কুলারের (এফইউই) সক্রিয় সদস্য ছিলেন তিনি। ইউসলে পড়াশোনায় দ্বৈত উত্তোরণ ঘটান। এরফলে নির্ধারিত সময়ের এক বছর পূর্বেই জুন, ১৯৩৬ সালে শিক্ষা কার্যক্রম সম্পন্ন করেছিলেন।

১০ জুলাই ন্যাশনাল হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্পেনের প্রথম মহিলা হিসেবে স্থাপত্যকলায় স্নাতক ডিগ্রী লাভ করায় তার শুভানুধ্যায়ী ও বন্ধুরা তাকে সম্বর্ধনা দেয়। ঐ অনুষ্ঠানে তৎকালীন অন্তর্বর্তীকালীন মন্ত্রী আমোস সালভাদোর কারেরাস উপস্থিত ছিলেন। একই বছরে আগস্ট থেকে অক্টোবর (নভেম্বর) পর্যন্ত তিনি মাদ্রিদের মহিলা স্থপতিদের সংস্থার পরিচালনা পরিষদের সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। এ সময়েই তার পরিবার ভ্যালেন্সিয়ায় স্থানান্তরিত হয়।

জানুয়ারি, ১৯৩৭ সালে মাদ্রিদে র সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান, বিশিষ্ট আইনজীবী ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা জোস রুইজ কাস্তিলোর সাথে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হন তিনি। তার বাবা বিবলিওটিকা নুয়েভার স্বত্ত্বাধিকারী ছিলেন যা পরবর্তীকালে রুইজ মালিকানাস্বত্ত্ব লাভ করেন। তাদের সংসারে জোস এনরিক ও জাভিয়ের নামে দুই সন্তান ছিল।

১৯৯৮ সালে অ্যাসোসিয়াসিও লা মুজের কনস্ট্রায়ে ( ওম্যান বিল্ড অ্যাসোসিয়েশন) স্পেনের প্রথম স্নাতকধারী স্থপতি হিসেবে ইউসলেকে গণসম্বর্ধনা দেয়। দুই বছর পর স্পেনের প্রতিনিধি হিসেবে ভেনিস বাইনেলেতে যোগ দেন।

২৪ নভেম্বর, ২০০৮ তারিখে মাদ্রিদে তার দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Sánchez de Madariaga, Inés (২৬ নভেম্বর ২০০৮)। "Matilde Ucelay Maórtua, la primera arquitecta española - Obtuvo el Premio Nacional de Arquitectura 2004"। El Pais। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৫ 

গ্রন্থপঞ্জী[সম্পাদনা]

  • Sánchez de Madariaga, Inés (Dir). 2012. Matilde Ucelay Maórtua. Una vida en construcción. Premio Nacional de Arquitectura. Madrid: Ministerio de Fomento. আইএসবিএন ৯৭৮-৮৪-৪৯৮-০৯২০-০
  • Sánchez de Madariaga, Inés (2010): "Amigos del alma. Matilde Ucelay y Félix Candela. La incautación del Colegio de Madrid y la represión de los arquitectos durante el franquismo", en del Cueto Ruiz-Funes, J.-I. (ed.) Félix Candela 1910-2010, Instituto Valenciano de Arte Moderno-Sociedad Estatal de conmemoraciones Culturales, pp. 121–138. আইএসবিএন ৯৭৮-৮৪-৯২৮২৭-৯৫-৪.
  • Sánchez de Madariaga, Inés (2008): "El papel de las mujeres en la arquitectura y el urbanismo, de Matilde Ucelay a la primera generación universitaria en paridad", en Leboreiro, Marian (ed.), La arquitectura y el urbanismo desde la perspectiva de las arquitectas, Ministerio de Vivienda- ETSAM, Madrid, pp. 69–77. আইএসবিএন ৯৭৮-৮৪-৬৯১-৯১৬৮-২.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]