মাইকা ক্রিস্টেনসেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মাইকা ক্রিস্টেনসেন
২০১২ সালের প্যারাঅলিম্পিকে দলীয় ছবি
ব্যক্তিগত তথ্য
জাতীয়তাঅস্ট্রেলিয়া
জন্ম (1989-02-24) ২৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৯ (বয়স ৩০)
উত্তর উইনাম, কুইন্সল্যান্ড
ক্রীড়া
দেশঅস্ট্রেলিয়া
ক্রীড়াগোলবল

মাইকা ক্রিস্টেনসেন (জন্মঃ ফেব্রুয়ারি ২৪, ১৯৮৯) একজন অস্ট্রেলিয়ান গোলবল খেলোয়াড়। ২০০৪ সালে তিনি খেলা শুরু করেন, একই বছর জাতীয় দলে তার অভিষেক হয়। জাতীয় দল থেকে ৩ বছর বিরতি নেয়ার পড় ২০১০ সালে জাতীয় দলের অধিনায়ক হিসেবে খেলা শুরু করেন এবং গোলবল ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণ করেন। ২০১২ সালে গ্রীষ্মকালীন প্যারাঅলিম্পিকে গোলবল দলের অধিনায়ক হিসেবে অস্ট্রেলিয়াকে প্রতিনিধিত্ব করার জন্য নির্বাচিত হন। 

ব্যক্তিগত[সম্পাদনা]

ক্রিস্টেনসেন ১৯৮৯ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি কুইন্সল্যান্ডের উত্তর উইনাম শহরে জন্মগ্রহণ করেন।[১][১][২][৩][৪] তিনি আংশিক দৃষ্টিশক্তির অধিকারী।[৫] [৬] তিনি ২০০৪ সালে কেভেন্ডিশ রোড স্টেট হাইস্কুলে যোগদান করেন এবং সেখানেই গোলবল খেলায় হাতেখড়ি।[৬][৭] এছাড়াও স্কিইংসহ অন্যান্য খেলাতেও তিনি অংশগ্রহণ করতেন[১] ২০০৫ সালে তিনি কুইন্সল্যান্ডের ব্রিকডেলে বসবাস করতেন,[৬] পরবর্তীতে ২০১১ থেকে আবার ওয়ালিংটন পয়েন্টে বসবাস সুরু করেন।[১] ২০১১ সালে তিনি রয়্যাল ব্রিসবেন এন্ড উইমেন্স হসপিটালে একজন প্রশাসক হিসেবে কাজ করতেন।[১][২]

গোলবল[সম্পাদনা]

ক্রিস্টেনসেন একজন গোলবল খেলোয়াড় ,[১] তিনি বি৩ শ্রেণীবদ্ধ খেলোয়াড়।[১] ২০০৪ সালে ১৫ বছর বয়সে ক্রিস্টেনসেন খেলা শুরু করেন। [১][৮] ২০০৫ সালে নিউজিল্যান্ড জাতীয় গোলবল প্রতিযোগিতায় তিনি কুইন্সল্যান্ড মহিলা দলের হয়ে অংশগ্রহন করেন। [৬]

ক্রিস্টেনসেন ২০০৪ সালে খেলা শুরু করলেও সেই বছরই তার জাতীয় দলে অভিষেক ঘটে যখন তিনি সুইডেন জাতীয় মহিলা গোলবল দলের বিপক্ষে সুইডেনের মালমো তে মালমো উইমেন্স ইন্টারন্যাশনাল কাপে খেলতে নামেন।[৬][৭][৮][৯][১০] এই টুর্নামেন্ট ছিল ১০ দলের একটি টুর্নামেন্ট যেখানে ২০০৪ সালে প্যারা অলিম্পিকে অংশ নেয়ার যোগ্যতা অর্জনকারী ৭ টি দলও অংশ নেয়। [৯] এই প্রতিযোগিতায় ক্রিস্টেনসেনের কোচ ছিলেন রবিন স্টিফেন্স।[৯] ২০০৪ সালের সেসের দিকে তিনি নিজের লক্ষ্য হিসবে ২০০৮ সালের গ্রীষ্মকালীন প্যারাঅলিম্পিকে অংশ নেয়াকে ঠিক করেন।[৬] কিন্তু অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দল যোগ্যতা অর্জন করতে ব্যর্থ হয়।[১১][১২] ক্রিস্টেনসেন ২০১০ সালে জাতীয় দলের অধিনায়ক নির্বাচিত হন।[২][৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]