ভূ-বেড়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
একটি জিপিএস অ্যাপ্লিকেশনে দুটি ভূ-বেড়া সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে

একটি ভূ-বেড়া হল একটি বাস্তব-বিশ্বের ভৌগোলিক অঞ্চলের কাল্পনিক পরিধি। [১] একটি গতিমান ভূ-বেড়াকে সংজ্ঞায়িত করা হয় কোনো বিন্দু অবস্থানকে বেষ্টনকারী পরিধির সাহায্যে, অথবা কোনো নির্দিষ্ট অঞ্চলের পূর্বনির্ধারিত সীমানা সমষ্টিকেও (যেমন বিদ্যালয় অঞ্চল বা আশেপাশের সীমানা) ভূ-বেড়া হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। ভূ-বেড়ার ব্যবহারকে ভূ-পরিবেষ্টিনী বা জিও-ফেন্সিং বলা হয় এবং এর একটি উল্লেখযোগ্য উদাহরণ হল, কোনো কোনও অবস্থান-ভিত্তিক পরিষেবার সাথে সংযুক্ত অবস্থান সচেতনকারী যন্ত্র যা পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত গ্রাহককে কোনো নির্দিষ্ট ভূ-বেড়া পরিবেষ্টিত অঞ্চলে প্রবেশ ও প্রস্থান সম্পর্কে সচেতন করে। এই পরিষেবার মাধ্যমে ভূ-বেড়ায় প্রবেশকারী পরিষেবা অন্তর্ভুক্ত গ্রাহক এবং সেই ভূ-বেড়া সমন্বিত অঞ্চলের কার্যকারক উভয়কেই সতর্কবার্তা পাঠানো হয়। পরিষেবা গ্রাহকের ব্যবহারকারী যন্ত্রের অবস্থান জেনে মোবাইল টেলিফোন বা ই-মেইল একাউন্ট -এর মাধ্যমে এই সতর্কবার্তা প্রেরণ করা হয়।

ব্যবহার[সম্পাদনা]

  • জিও-ফেন্সিং(ভূ-পরিবেষ্টনী) -এর সাহায্যে পিতামাতা তাদের অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশু ও সন্তানের অবস্থানের উপর নজর রাখতে পারেন। শিশু যদি কোনো নির্দিষ্ট অবস্থানের বাইরে প্রস্থান করে তাহলে পিতামাতা সেই ব্যাপারে সতর্ক হতে পারেন। [২]
  • ভূ-বেড়া ও ভূ-পরিবেষ্টনী ব্যবহারের মাধম্যে কোনো আগ্নেয়াস্ত্রকে কেবলমাত্র নির্দিষ্ট অঞ্চল ও নির্দিষ্ট লক্ষ্যে ব্যবহারের জন্য সীমাবদ্ধ করা সম্ভব হয়,সেই নির্দিষ্ট সীমা ও লক্ষ্যের বাইরে আগ্নেয়াস্ত্রের কোনো কার্যকারিতা থাকেনা।
  • টেলিম্যাটিক্স-এর ক্ষেত্রে এর বিশেষ ব্যবহার আছে। এর মাধ্যমে পরিষেবার ব্যবহারকারীরা নিজের কাজের জায়গা, গ্রাহকের অবস্থান এবং সুরক্ষিত অঞ্চলের আশেপাশে অঞ্চল চিহ্নিত করতে পারেন। চিহ্নিত ভূ-বেড়াগুলিকে যখন কোনও যানবাহন বা ব্যক্তি অতিক্রম করে তখন ব্যবহারকারীর নিকট এসএমএস বা ইমেলের মাধ্যমে একটি সতর্কবার্তা প্রেরণ করা হয়।
  • কিছু সংস্থার মানবসম্পদ বিভাগ বিশেষ স্থানে কর্মরত কর্মচারী, বিশেষত যারা বহিঃক্ষেত্রে কাজ করে তাদের নিরীক্ষণের জন্য জিওফেনসিং ব্যবহার করেন। জিওফেন্সিং প্রযুক্তি ব্যবহার করে, সংস্থার কোনও কর্মী বহিঃক্ষেত্রের একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলে কাজ করার সময় একটি জিপিএস-সক্ষম ডিভাইস ব্যবহার করে তার উপস্থিতি তালিকাভুক্ত করতে পারে।
  • এই প্রযুক্তির অন্যান্য উল্লেখযোগ্য ব্যবহারগুলি হল, কোনও গাড়ি চুরি হয়ে গেলে সতর্কতা প্রেরণ,[৩] এবং কোনো অরণ্য অঞ্চলে বন্যজীবীরা যখন কৃষিজমিতে প্রবেশ করে তখন রেঞ্জারদের সতর্ক করা, এই সকল কাজ এই প্রযুক্তির মাধ্যমে করা সম্ভব হয়। [৪]
  • ভূ-বেড়া পর্যটন সুরক্ষা এবং যোগাযোগের জন্য অবস্থান ভিত্তিক বার্তাপ্রেরণের কাজেও ব্যবহার করা যেতে পারে। [৫]
  • ভূ-বেড়া প্রযুক্তির মাধ্যমে একটি সুরক্ষা কৌশল মডেলের ওয়্যারলেস লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্ক বা স্থানীয় অন্তর্জাল পরিষেবা -গুলিকে সুরক্ষা প্রদান করা হয়। এটি কোনো বিশেষ স্থানের পূর্বনির্ধারিত সীমানা ব্যবহার করে করা হয়(উদাহরণ:একটি বিশেষ প্রোগ্রামযুক্ত সার্ভারের অবস্থান নির্ধারণ প্রযুক্তির মাধ্যমে কোনো অফিস বা দপ্তরের নির্দিষ্ট পরিধি সমন্বিত ক্ষেত্রকে সংজ্ঞায়িত ও নিয়ন্ত্রিত করা। এর ফলে অফিস স্পেস বা দপ্তরের কার্যক্ষেত্রটি মনোনীত ব্যবহারকারী এবং ওয়্যারলেস মোবাইল ডিভাইসের জন্য অনুমোদিত স্থান হয়ে ওঠে। [৬][পৃষ্ঠা নম্বর প্রয়োজন])।
  • ২০১৫ সালে মার্কিন সেনেটর চার্লস শুমার একটি আইন পাস করেছিলেন যার মাধ্যমে ড্রোনে নির্মাতাদের জিওফেনসিং প্রযুক্তির সীমাবদ্ধতার প্রয়োগ করে এক বিশেষ ধরনের মানববিহীন স্বয়ংক্রিয় বিমান প্রস্তুত করার নির্দেশ দেওয়া হয়। এই উড়ুক্কু যন্ত্র বা বিমানের বৈশিষ্ট ছিলো এই যে এর বিশেষ ন্যাভিগেশন সিস্টেম বিমানটিকে কেবলমাত্র একটি পূর্বপরিকল্পিত সীমানার মধ্যে থাকতে বাধ্য করবে, সুতরাং কোনো অপটু ব্যক্তির হাতে যদি এই যন্ত্র চালনার দায়িত্ব পরে তা হলে তার ভুল আদেশ অগ্রাহ্য করা হবে এবং বিমানটি কোনোভাবেই ভুলবশতঃ কোনো রক্ষিত বা নিষিদ্ধ আকাশসীমায় প্রবেশ করবেনা। [৭][৮]
  • জিও-ফেন্সিং -এর ব্যবহার বিজ্ঞাপন ও বিপণনের ক্ষেত্রেও দেখা যায়। জিওফেন্সিং সমাধান সরবরাহকারীরা বিপণনকারী এবং বিজ্ঞাপনদাতাদের তাদের বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের জন্য সঠিক ভৌগোলিক অবস্থান চয়ন করার অনুমতি দেয়। ভূ-বেড়া প্রযুক্তি কোনো ভৌগোলিক অবস্থানকে চিহ্নিত করতে জিপ কোড,রাস্তার ঠিকানা,জিপিএস স্থানাঙ্ক সরবরাহকারী অক্ষাংশ এবং দ্রাঘিমাংশ, আইপি ঠিকানা ইত্যাদির ব্যবহার করে। ভূ-পরিবেষ্টনী প্রযুক্তি বিজ্ঞাপনদাতাদের এবং বিপণনকারীদের প্রতিযোগিতামূলক বিপণন কৌশল নির্ধারণে সাহায্য করে, বাজারের ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে তাদের বিপণনকেন্দ্র বা স্টোর-এর অবস্থান কিরকম হওয়া উচিত তা নির্ধারণ করতে প্রায়শই জিওফেন্সিঙের ব্যবহার হয়। এছাড়াও তাদের বড় মাপের্ অনুষ্ঠান বা ইভেন্ট(যেমন সংগীতানুষ্ঠান, ক্রীড়া অনুষ্ঠান, বার্ষিক আলোচনাসভা) -এর জন্য সম্মেলন কেন্দ্রের সঠিক অবস্থান নির্ণয় যা তাদের বিপণনের ক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা দেবে, -এই কাজেও ভূ-বেড়া প্রযুক্তির ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়।
  • উদাহরণস্বরূপ, একটি স্থানীয় অটো ব্যবসায়ী স্থানীয় গাড়ি ক্রেতাদের লক্ষ্য করার জন্য তার বিপননক্ষেত্রের অবস্থানকে কেন্দ্র করে কয়েক বর্গমাইলের মধ্যে এক কাল্পনিক সীমানা তৈরি করল। এইভাবে তারা উন্নততর আর.ও.আই পেতে এবং ক্রয়ের সম্ভাবনা বৃদ্ধি করতে তাদের সম্ভাব্য বিজ্ঞাপন ব্যয়কে সীমাবদ্ধ করে। ভূ-বেড়া ও ভূ-পরিবেষ্টনী প্রযুক্তির সাহায্যে তাদের বিজ্ঞাপন প্রদর্শিত হয়েছে এমন যন্ত্রগুলিকে তারা সনাক্ত করতে সক্ষম হয় এবং এভাবে তারা তাদের বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের হারের উপর নজর রাখতে পারে। সরল অর্থে এর মানে হল এই যে কোনো কোম্পানি তাদের কোন কোন ক্রেতা বিজ্ঞাপন দেখে তাদের পণ্যবস্তু সম্পর্কে আগ্রহ প্রকাশ করেছে এবং তাদের বিপণনকেন্দ্রে এসেছে তা সনাক্ত করতে সক্ষম হয় এই প্রযুক্তির ব্যবহারে। প্রযুক্তির এই পরিষেবার ফলে কোম্পানি তাদের বিজ্ঞাপনের খরচ ও ক্রয়-বিক্রয়ের মাত্রা আরো ভালোভাবে বিশ্লেষণ করতে পারে।
  • কোনো কোনো স্থানীয় ব্যবসায়ী কেবলমাত্র একটি নির্দিষ্ট পরিষেবা অঞ্চল এবং তার অনর্ভুক্ত সম্ভাব্য ক্রেতাদের ব্যাপারেই আগ্রহী হয়। তাই তাদের ব্যবসার ব্যাপক সম্প্রচার বা বিজ্ঞাপনের তাদের কাছে শক্তি, সময়, অর্থ এবং সুযোগের অপচয়। এক্ষেত্রে বৈদ্যুতিন বিজ্ঞাপনের সাথে ভূ-বেড়া প্রযুক্তির ব্যবহার পছন্দসই ক্রেতা ও বিশেষ অঞ্চল সনাক্ত করতে এবং লক্ষ্য করতে তাদের সাহায্য করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Rouse, Margaret (ডিসেম্বর ২০১৬)। "What is geo-fencing (geofencing)?"WhatIs.com (ইংরেজি ভাষায়)। Newton, Massachusetts: TechTarget। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জানু ২০২০ 
  2. De Lara, Eyal; Anthony LaMarca; Mahadev Satyanarayanan (২০০৮)। Location Systems: An Introduction to the Technology Behind Location Awarenessসীমিত পরীক্ষা সাপেক্ষে বিনামূল্যে প্রবেশাধিকার, সাধারণত সদস্যতা প্রয়োজন। Synthesis Lectures on Mobile and Pervasive Computing, Lecture #4। Morgan & Claypool Publishers। পৃষ্ঠা 88। আইএসবিএন 978-1-59829-581-8 – Google Books-এর মাধ্যমে। 
  3. "Motorcycle Tracker Updates Every 15 Seconds"Motorcycle USA। ২৩ জানুয়ারি ২০০৯। জানুয়ারি ৩১, ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০১-২৬Courtesy True Tracker Pro 
  4. "Kenya's elephants send text messages to rangers"। CBS News। Associated Press। অক্টোবর ১১, ২০০৮। ৮ নভেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জানু ২০২০ 
  5. "Location Based Messaging for Tourist Safety and Communication" (PDF)। UgoRound Australia Pty Ltd। জুলাই ২০১৭। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জানু ২০২০ 
  6. Hamid Jahankhani, A G Hessami, Feng Hsu: Global security, safety, and sustainability : 5th international conference, ICGS3 2009, London, UK, September 1-2, 2009 : proceedings. আইএসবিএন ৯৭৮-৩-৬৪২-০৪০৬১-০
  7. "Todd Humphreys: Don't Overregulate Drones"Alcalde। ১৮ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৪-০৫ 
  8. Schumer, Charles (১৯ আগস্ট ২০১৫)। "Schumer proposes law"। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫ 

অতিরিক্ত তথ্য[সম্পাদনা]