ব্রেভ (২০১২-এর চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ব্রেভ
A girl with long, curly red hair stares at the viewer holding a bow and an arrow. Behind her is the film's title while at the left shows a bear staring at her.
পোস্টার
পরিচালক মার্ক এন্ড্রু্স
ব্র্যান্ডা চ্যাপমেন
প্রযোজক ক্যাথরিন সারাফিয়ান
চিত্রনাট্যকার মার্ক এন্ড্রু্স
স্টিভ পুরসেল
ব্র্যান্ডা চ্যাপমেন
ইরিন মেচি
গল্পকার ব্র্যান্ডা চ্যাপমেন
অভিনেতা ক্যালি মেকডোনাল্ড
বিলি কোনোলি
এমা থোমস্পোন
জুলিয়ে ওয়াল্টার্স
রোবি কোল্ট্রেইন
কেভিন ম্যাককিড
ক্রেইগ ফার্গুসন
সুরকার পেট্রিক ডোয়েল
সম্পাদক নিকোলাস সি স্মিথ
স্টুডিও ওয়াল্ট ডিজনি পিকচার্স
পিক্সার অ্যানিমেশন স্টুডিও
পরিবেশক ওয়াল্ট ডিজনি স্টুডিওস
মোশন পিকচার্স
মুক্তি
  • ১০ জুন ২০১২ (২০১২-০৬-১০) (এসআইএফএফ)
  • ২২ জুন ২০১২ (২০১২-০৬-২২) (যুক্তরাষ্ট্র )
দৈর্ঘ্য ৯৩ মিনিট [১]
দেশ  যুক্তরাষ্ট্র
ভাষা ইংরেজি
নির্মাণব্যয় ১৮.৫ কোটি ডলার[২]
আয় ৫৩,৮১,৮৩,২০৭ ডলার[৩]

ব্রেভ হচ্ছে একটি মার্কিন কম্পিউটার এনিমেটেড কাল্পনিক চলচ্চিত্র, যা পিক্সার অ্যানিমেশন স্টুডিও দ্বারা প্রযোজিত এবং ওয়াল্ট ডিজনি পিকচার্স কর্তৃক মুক্তিপ্রাপ্ত। এই চলচ্চিত্রটি লেখক এবং পরিচালক ব্র্যান্ডা চ্যাপমেনের কল্পনা প্রসূত, এই ছবিটি তিনি তার নিজের মেয়ের সাথে তার সম্পর্কের অনুপ্রেরণা থেকে তৈরি। পিক্সারের দীর্ঘ দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র পরিচালকদের মধ্যে চ্যাপমেনই প্রথম নারী পরিচালক। [৪] ব্রেভ ছবিটি লিখেছেন ব্র্যান্ডা চ্যাপমেন, মার্ক এন্ড্রু্স, স্টিভ পুরসেলইরিন মেচি এবং পরিচালনা করেছেন চ্যাপমেন ও এন্ড্রু্স। [৪] এর সহকারী পরিচালক ছিলেন স্টিভ পার্সেল। এই ছবিতে কণ্ঠ দিয়েছেন ক্যালি মেকডোনাল্ড, বিলি কোনোলি, এমা টম্পসন, জুলিয়া ওয়াল্টার্স, রোবি কোল্ট্রেইন, কেভিন ম্যাককিডক্রেইগ ফার্গুসন। ছবিতে সর্বোচ্চ ভিজ্যুয়াল আনার জন্য পিক্সার পঁচিশ বছরের মধ্যে প্রথম বারের মতো নতুন ভাবে তাদের অ্যানিমেশন ব্যবস্থা সাজায়। ব্রেভ-ই প্রথম চলচ্চিত্র যার শব্দ বিন্যাস ব্যবস্থার ক্ষেত্রে ডল্‌বি অ্যাটমস ব্যবহার করে। [৫]

ছবিটি স্কটিশ উচ্চভূমিকে কেন্দ্র করে। এই ছবির মূল চরিত্রে রয়েছে মেরিডা যে পুরনো আমলের বৈবাহিক প্রথা মেনে না নেওয়ার ফলে রাজ্যে অশান্তি সৃষ্টি হয়। এক জাদুকরীর সাহায্যে সে তার মা অর্থাৎ রাণীকে ভালুকে পরিণত করে এবং তার পর জানতে পারে যে দু'দিনের মধ্যে একটি ধাঁধার সমাধান করতে না পারলে রাণী আর তাঁর আসল চেহারা ফিরে পাবেন না। ব্রেভ প্রথম ২০১২ সালের ১০ জুন সিয়াটল আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে মুক্তি পায়। এটি অস্কার, গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ড, ও বাফটা পুরস্কারে শ্রেষ্ঠ অ্যানিমেশন চলচ্চিত্র হিসেবে নির্বাচিত হয়। [৬][৭][৭]

পূর্বের মতো এবারও পিক্সারের চলচ্চিত্রের সাথে একটি স্বল্পদৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র লা লুনা প্রকাশিত হয়। [৮]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. McCarthy, Todd (জুন ১০, ২০১২)। "Brave: Film Review"The Hollywood Reporter। সংগৃহীত জুন ১১, ২০১২ 
  2. "Brave (2012)"Box Office Mojo। সংগৃহীত ডিসেম্বর ১৪, ২০১২ 
  3. "Brave (2012)"Box Office Mojo। সংগৃহীত সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৩ 
  4. "'Brave' director Brenda Chapman breaks silence: Getting taken off film 'heartbreaking... devastating... distressing'"। আগস্ট ১৫, ২০১২।  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "Entertainment_Weekly" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  5. Stein, Joel (March 5, 2012). "Pixar's Girl Story". টাইমস. Retrieved August 1, 2012.
  6. "Best Animated Film: 'Brave' Wins At 2013 Academy Awards"huffingtonpost.com। ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৩। সংগৃহীত অক্টোবর ৬, ২০১৩ 
  7. Globe, Golden (Thursday ১৩ ডিসেম্বর ২০১২ ১৪.৩২ GMT)। "Golden Globes 2013: full list of nominations"দ্য গার্ডিয়ান। সংগৃহীত জানুয়ারি ৩, ২০১৩ 
  8. Rizvi, Samad (আগস্ট ১৯, ২০১১)। "D23 2011: La Luna Will Play Before Brave, New Toy Story Toon Title Announced"। The Pixar Times। সংগৃহীত জানুয়ারি ২৪, ২০১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]