ব্যবহারকারী:MD LEION HASSAN

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

কোরাল সাগর

কোরাল সাগর (ফ্রেঞ্চঃ মার ডি কোরাল) দক্ষিণ প্রশান্তমহাসাগরের একটি প্রান্তীয় সাগর যা অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পূর্ব উপকূলে অবস্থিত, যা অস্ট্রেলিয়ার অভ্যন্তরীণ বাস্তুতান্ত্রীক ও ভূতাত্ত্বিক অংশের অন্তর্ভুক্ত। কোরাল সাগর অস্ট্রেলিয়ায় ২,০০০ কিলোমিটার (১,২০০ মাইল) দক্ষিণ-পূর্ব উপকূলীয় এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত।

এর পশ্চিমে কুইন্সল্যান্ডের পূর্ব উপকূল, পূর্বে ভানুয়াতু (পূর্বের নাম নতুন হেবরাইডিস) এবং ক্যালেডোনিয়া, এবং উত্তর-পূর্বাংশের দিকে সলোমন দ্বীপগুলোর দক্ষিণাঞ্চল। দক্ষিণ-পশ্চিমে এটি নিউ গিনির দক্ষিণ উপকূল পর্যন্ত বিস্তৃত এবং গালফ অব পাপুয়া এর অন্তর্ভুক্ত। কোরাল সাগর দক্ষিণে তাসমান সাগর, উত্তরে সলোমন সাগর, ও পূর্বে প্রাশান্ত মহাসাগর দ্বারা বেষ্টিত। পশ্চিমে কুইন্সল্যান্ডের মূল উপকূল দ্বারা বেষ্টিত এবং দক্ষিণ-পশ্চিমে টরেস প্রণালীর মাধ্যমে এরাফিউরা সাগর এর সাথে সংযুক্ত।

কোরাল সাগর উষ্ণ ও স্থিতিশীল জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন; ঘন বৃষ্টি এবং ক্রান্তীয় ঘূর্ণীঝড় যার অন্তর্ভুক্ত। এতে রয়েছে অনেক দ্বীপ ও প্রবাল। যেমনঃ পৃথিবীর সর্ববৃহৎ প্রবাল পুঞ্জ গ্রেট বেরিয়ার রিফ (জিবিআর)এতে অবস্থিত, যা ১৯৮১ সালে ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় স্থান পায়।

১৯৭৫ সালে গ্রেট বেরিয়ার রিফ (জিবিআর)-এ সমস্ত তেল অনুসন্ধানী প্রকল্পগূলো বাতিল করা হয় এবং মাছ ধরাও সীমাবদ্ধ করে দেওয়া হয়। কোরাল সাগরের প্রবাল ও দ্বীপ সমূহ পাখি ও অন্যান্য জলজ জীব বৈচিত্রে সমৃদ্ধ এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র।    


ভূতত্ত্ব

কোরাল সাগরের অববাহিকা আনুমানিক ৫৮ থেকে ৪৮ মিলিয়ন বছর আগে গঠিত হয়েছিল, যখন কুইন্সল্যান্ডের মহীসোপানটি উন্নিমিত হয়েছিল, একই সময়ে ভূতাত্ত্বিক বিভাজক পরিসীমা ও মহাদেশীয় ব্লকটি তৈরি হয়। গ্রেট বেরিয়ার রিফের প্রবালের বড় উৎস হলো কোরাল সাগর, প্রবাল গঠন ও সমুদ্রস্তর হ্রাসের সময়।

ভূতাত্ত্বিক গঠনের এই প্রক্রিয়া এখনও চলমান, যা আংশিকভাবে সিসমিক (ভূকম্পন জনিত) কার্যকলাপ দ্বারা প্রমাণিত। কুইন্সল্যান্ড ও কোরাল সাগরে ১৮৮৬-২০০০ সাল পর্যন্ত কয়েকশ ভূমিকম্প সংঘটিত হয়েছে ২-৬ মাত্রার। ২০০৭ সালের ২ এপ্রিল সলোমন দ্বীপপুঞ্জে এক প্রলয়ঙ্করী ভূমিকম্প আঘাত হানে, যা কয়েক মিটার উচ্চতা সম্পন্ন সুনামির সৃষ্টি করে। ৮.১ মাত্রার এই ভূমিকম্পটির কেন্দ্র ছিল হনিয়ারা থেকে ৩৪৯ কিলোমিটার (২১৭ মাইল) দক্ষিণ-পশ্চিমে, ১০ কিলোমিটার (৬.২ মাইল) গভীরে। এটি ৪৪ টি ৫ মাত্রার বা মাত্রার বেশি ভূকম্পনের পর সৃষ্টি হয়। এই সুনামির ফলে অন্তত ৫২ জন মারা যায় এবং ৯০০ এর বেশি ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়।

প্রচুর প্রবাল (কোরাল) জন্মানোর কারণেই এর নামকরণ করা হয়েছে কোরাল সাগর। এতে রয়েছে পৃথিবীর সর্ববৃহৎ প্রবাল প্রাচীর গ্রেট বেরিয়ার রিফ, যা অস্ট্রেলিয়ায়র  দক্ষিণ-পূর্ব উপকূল জুড়ে প্রায় ২,০০০ কিলোমিটার (১,২০০ মাইল) পর্যন্ত বিস্তৃত এবং  পৃথক পৃথকভাবে এতে প্রায় ২,৯০০ প্রবাল প্রাচীর রয়েছে।