বেরিবেরি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
বেরিবেরি
Beriberi USNLM.jpg
বিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে বেরিবেরিতে আক্রান্ত এক রোগী।
শ্রেণীবিভাগ এবং বহিঃস্থ সম্পদ
বিশিষ্টতা স্নায়ুবিদ্যা, কার্ডিওলজি, শিশুরোগবিদ্যা
আইসিডি-১০ E৫১.১
আইসিডি-৯-সিএম ২৬৫.০
ডিজিসেসডিবি ১৪১০৭
মেডলাইনপ্লাস ০০০৩৩৯
ইমেডিসিন ped/229 med/২২১
পেশেন্ট ইউকে বেরিবেরি
মেএসএইচ D০০১৬০২ (ইংরেজি)

বেরিবেরি (ইংরেজি: Beriberi) হচ্ছে কতকগুলো লক্ষণসমষ্টি যা মূলত ভিটামিন বি১ বা থায়ামিনের অভাবে হয়। শরীরের কোন সিস্টেমকে আক্রান্ত করছে তার উপর ভিত্তি করে বেরিবেরিকে তিনটি শ্রেণীতে ভাগ করা হয়। ঐতিহাসিকভাবে যেসব এলাকায় খোসা ছাড়ানো চকচকে চাল প্রধান খাদ্য হিসেবে ব্যবহৃত হয় সেই এলাকায় বেরিবেরি রোগের প্রাদুর্ভাব বেশি।[১]

উপসর্গ[সম্পাদনা]

বেরিবেরির উপসর্গগুলোর মধ্যে রয়েছে ওজন কমে যাওয়া, আবেগজনিত সমস্যা, সংবেদী অনুভূতি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া, মাংসপেশির দুর্বলতা, হাত ও পায়ে ব্যথা, অনিয়মিত হৃৎস্পন্দন, শরীর ফুলে যাওয়া ইত্যাদি। বেরিরির সাথে ভারনিকে এনসেফালোপ্যাথি(Wernicke encephalopathy) নামক আরেকটি রোগ হতে পারে যেটিও থায়ামিনের অভাবে হয়।[২] বেরিবেরি কে চারটি শ্রেণীতে ভাগ করা হয় যার প্রথম তিনটি ঐতিহাসিক এবং চতুর্থটি ২০০৪ সালে স্বীকৃতি পেয়েছে:

  • ড্রাই বেরিবেরি (Dry beriberi): প্রান্তীয় স্নায়ুতন্ত্রকে আক্রান্ত করে।
  • ওয়েট বেরিবেরি (Wet beriberi): কার্ডিওভাস্কুলার সিস্টেমকে আক্রান্ত করে।
  • ইনফ্যান্টাইল বেরিবেরি (Infantile beriberi): অপুষ্টির স্বীকার মায়ের গর্ভজাত বাচ্চার এই রোগ হয়।
  • গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টিনাল বেরিবেরি (Gastrointestinal beriberi): পরিপাকতন্ত্র আক্রান্ত হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

গ্রন্থতালিকা[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]