বুলগেরিয়ার প্রশাসনিক অঞ্চল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বুলগেরিয়ার প্রদেশসমূহ (বুলগেরীয়: области на България) বলতে বোঝায় বুলগেরিয়া রাষ্ট্রের প্রশাসনিক বিভাগের প্রথম স্তর।

১৯৯৯ খ্রীস্টাব্দ থেকে সমগ্র বুলগেরিয়াকে প্রশাসনিক ভাবে ২৮টি প্রদেশে (বুলগেরীয়: области –অব্‌লাস্টি; একবচন : област অব্‌লাস্ট; যার আক্ষরিক অর্থ হল "অঞ্চল") বিভক্ত করা হয়েছে, যা মোটামুটিভাবে ১৯৮৭ খ্রীস্টাব্দের পূর্বেকার ২৮টি জেলাকে (বুলগারিয় ভাষায়: окръг –ওক্‌রগ্‌, বহুবচন: окръзи –ওক্‌রজি ) নির্দেশ করে।

প্রদেশগুলিকে পুনরায় সর্বমোট ২৬৫টি পৌরসভায় (একবচন: община –অব্‌শ্চিনা, বহুবচন: общини –অব্‌শ্চিনি) ভাগ করা হয়েছে।

সোফিয়া- বুলগেরিয়ার রাজধানী শহর এবং দেশের সর্ববৃহৎ জনবসতি। এটি একাধারে সোফিয়া প্রদেশসোফিয়া শহর প্রদেশের প্রশাসনিক কেন্দ্রস্থল। এই রাজধানী অঞ্চলটি আরও ৩টি শহর ও ৩৪টি গ্রাম সহ সোফিয়া রাজধানী পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত, যার ৯০% জনসংখ্যাই সোফিয়ায় বসবাসকারী। এটি সোফিয়া নগররাজ্যের একমাত্র পৌরসভা।

পরিভাষা[সম্পাদনা]

বুলগেরিয়ার প্রদেশগুলির আইনগতভাবে (তাদের রাষ্ট্রপতির আদেশে) কোনও প্রাতিষ্ঠানিক নাম নেই। প্রত্যেক প্রশাসনিক কেন্দ্রের নামের সঙ্গে "অব্‌লাস্ট" কথাটি যোগ করে এগুলিকে ডাকা হয়ে থাকে। বুলগেরিয়ায় সাধারণত এগুলিকে "[প্রশাসনিক কেন্দ্রের নাম] অব্‌লাস্ট" হিসেবে নামকরণ করা হয়ে থাকে, তবে কখনও কখনও অব্‌লাস্ট [প্রশাসনিক কেন্দ্রের নাম] ক্রমও ব্যবহার করা হয়।

প্রদেশ সমূহ[সম্পাদনা]

প্রদেশসমূহ জন সংখ্যা (আদমশুমারি ২০০১)[১][২]
ব্লাগোয়েভগ্রাদ৩৪১,১৭৩
বুরগাস৪২৩,৫৪৭
ডোবরিচ২১৫,২১৭
গাবরোভো১৪৪,১২৫
হাসকোভো২৭৭,৪৭৮
কার্ডঝালি১৬৪,০১৯
কিউসটেনডিল১৬২,৫৩৪
লাভেচ১৬৯,৯৫১
মোন্টানা১৮২,২৫৮
পাজার্ডঝিক৩১০,৭২৩
পেরনিক১৪৯,৮৩২
প্লেভেন৩১১,৯৫৮
প্লোভডিভ৭১৫,৮১৬
রাজগ্রাদ১৫২,৪১৭
রুসে২৬৬,১৫৭
শুমেন২০৪,৩৭৮
সিলিসট্রা১৪২,০০০
স্লিভেন২১৮,৪৭৪
সমোলিয়ান১৪০,০৬৬
সফিয়া শহর১,১৭০,৮৪২
সফিয়া প্রদেশ২৭৩,২৪০
স্টারা জাগোরা৩৭০,৬১৫
টারগোভিশ্টে১৩৭,৬৮৯
ভারনা৪৬২,০১৩
ভেলিকো টারনোভো২৯৩,১৭২
ভিডিন১৩০,০৭৪
ভ্রা২৪৩
ইয়ামবোল১৫৬,০৭০
  1. "2011 Population Census - main result" (PDF)Nsi.bg। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০১৭ 
  2. "Представяме Ви резултатите от Преброяване 2011 за страната, по области и общини :"Censusresults.nsi.bg। ১৮ আগস্ট ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০১৭