বিমান প্রত্নতত্ত্ব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বিমান প্রত্নতত্ত্ব পুরাতত্ত্ব ও ডুবো পুরাতত্ত্বের একটি স্বীকৃত উপশাখা।[১] এটি কার্যকরভাবে খোঁজার কাজে, নিবন্ধীকরণে, পুনরুদ্ধারে এবং বিমান চালনা ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলির সংরক্ষণের জন্য উৎসাহীরা এবং শিক্ষাবিদরা চর্চা করেন। অধিকাংশ ক্ষেত্রে অংশ জন্য, এই স্থানগুলি মূলত বিমান অবশেষ এবং ক্র্যাশ সাইট, তাছাড়াও বিমান চালনা সম্পর্কিত সুবিধা এবং কাঠামোও আছে। কিছু জায়গায় এটি দৃষ্টিকোণের উপর নির্ভর করে বিমান পুরাতত্ত্ব বা মহাকাশ পুরাতত্ত্ব নামে পরিচিত এবং ক্র্যাশ শিকার (crash hunting), ডুবো বিমান পুনরুদ্ধার (underwater aircraft recovery), রেক দৌড়ানো (wreck chasing) বা wreckology নামেও বর্ণনা করা হয়েছে।

বিমান প্রত্নতত্ত্ব ও বর্তমান সমস্যার ইতিহাস[সম্পাদনা]

The remains of a Royal Canadian Air Force DC-3 Dakota crashed on 19 January 1946.

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরবর্তীকালে ইউরোপ যখন, দ্বন্দ্বের পরে, অনেক বিমান ধ্বংসাবশেষ পল্লিঅঞ্চলে এখানে ওখানে খচিত ছিল। অনেক বার দুর্ঘটনায় জড়িতদের স্মারক ব্যক্তিবিশেষ, পরিবার, জমির মালিক, বা সম্প্রদায় দ্বারা একত্রিত হ্ত। যুক্তরাজ্য, যার জমিতে শত্রু বিমান ছড়ানো ছিল, ছাঁট ধাতু উদ্যোগ চালু করল যা এর নিষ্পত্তিকে উৎসাহিত করল। সাধারণ পাবলিক যারা বিমান সাইট পেল, বিশেষত কৃষকরা যারা তাদের খনন করতে পারছিল, ছাঁট ধাতু বিক্রি করে উপকারে পাচ্ছিল।

1970 সালে প্রারম্ভে, বিশেষ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এবং যুক্তরাজ্য়ে, বিমান ধ্বংসস্থানে লুটপাটের ফলে সাধারণ জনতা বিরক্ত হত। বেশি হয়ে গেলে কিছু এলাকায় অনধিকারপ্রবেশ এবং "যুদ্ধ সমাধিক্ষেত্রে" প্রবেশের মত আইন এবং প্রবিধান তৈরি করা হয়।

ধ্বংসস্থান আকারে এবং বিষয়বস্তুর বিচারে বিভিন্নরকম হত; কিছু জায়গায় fuselages, ইঞ্জিন ও যন্ত্রাংশ এবং ধ্বংসাবশেষ পাওয়া যেত। অন্যান্য স্থানে, যেমন বেসামরিক / বাণিজ্যিক দুর্ঘটনাস্থানে, ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন(Federal Aviation Administration) ও জাতীয় পরিবহন নিরাপত্তা বোর্ড (NTSB—National Transportation Safety Board) প্রায় সমস্ত বিমান এবং ধ্বংসাবশেষ সরিয়ে দিত; যা বিমান পুরাতত্ত্বকে আরো কঠিন করে দিত। সামরিক বিমানের ধ্বংসাবশেষ বিভিন্ন বিমান পুনরূদ্ধার দল সরিয়ে দিত, বিশেষত যদি বিমানের অধিকাংশ অক্ষত অবস্থায় পাওয়া যায়। সাধারণভাবে, নুতন (1980 সাল থেকে) বিমান ধ্বংসাবশেষ পরিবেশগত প্রবিধান কারণে সম্পূর্ণরূপে সরিয়ে ফেলা হয়, সামান্য ধ্বংসাবশেষ রেখে দেওয়া হত অস্তিত্ব নির্দেশ করার জন্য।

উদাহরণস্বরূপ, আরিজোনাতে ঘটিত সামরিক দুর্ঘটনায় অসংখ্য বিমান ঘাঁটি, অতীত এবং বর্তমান থেকে উদ্ভূত হত। উষ্ণ এবং মনোরম আবহাওয়ার কারণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আর্মি এয়ার ফোর্সেস ফ্লাইট প্রশিক্ষণ বেশিরভাগই এখানে অবস্থিত ছিল, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে এবং পরে। অসংখ্য বিমান ঘাঁটি সেখানে গড়ে ওঠে -- ফলে প্রশিক্ষণ দুর্ঘটনার পরিবেশ তৈরি হয়।[২] প্রাচীন পরিত্যক্ত মার্কিন সেনাবাহিনীর এয়ার Corp বিভাগ সহায়ক ক্ষেত্র এবং যেসব জায়গা শহর পৌর বিমানবন্দরে রূপান্তরিত হয়, সেসব জায়গাতে গবেষণা ও তদন্ত করা হয়।[৩]

B-17 turbocharger, crash debris

ইন্টারনেট শেয়ারিং, রেকর্ডিং, পড়ানোর জন্য এবং বিমান পুরাতত্ত্ব প্রচারের একটি আদর্শ মাধ্যম, সেইসাথে স্থানীয় এবং রাজ্য চালিত ঐতিহাসিক দলের গবেষণা প্রকল্পের জন্যও। বিমানের ধরণ এবং নির্মাতার চিহ্নিতকরণের জন্য অংশ সংখ্যা[৪] এবং উৎপাদন পরিদর্শন চিহ্ন[৫] বিশ্লেষণ করা যেতে পারে। বিস্তারিত জিপিএস তথ্য ও মানচিত্র থেকে দুর্ঘটনার রিপোর্ট তথ্য়ের গবেষণা থেকে ঐতিহাসিক ঘটনার একটি সম্পূর্ণ ছবি তৈরি করা যেতে পারে। দুর্ঘটনার রিপোর্ট, যেমন সরকারী মার্কিন এয়ার ফোর্স দুর্ঘটনা প্রতিবেদন[৬] ফর্ম 14 পুরাতত্ত্ব গবেষণার ভিত্তি হয়ে ওঠে। সেখান থেকে, পত্রিকা নিবন্ধ, প্রাদেশিক কেরানির রেকর্ড, শেরিফ & করোনার রিপোর্ট, এবং লাইব্রেরি রেকর্ড এসব একটি বিমান প্রত্নতত্ত্ববিদকে তাদের গবেষণায় সাহায্য করে।

চিত্র:AircraftDebrisCloseup.jpg
Measure, photograph and log aircraft debris.
B-17 crash debris.

.

সুরক্ষা আইন এবং প্রবিধান[সম্পাদনা]

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র[সম্পাদনা]

বিমান ধ্বংসস্থানের আইনগত সুরক্ষা অত্যন্ত পরিবর্তনশীল। বিমান মালিকানা দ্বারা সুরক্ষা নিরিখে মার্কিন নৌসেনা সব নৌ বিমানের অনির্দিষ্ট মালিকানা রেখেছে, স্থলজ বা নিমজ্জিত সব ধ্বংসস্থান সহ।[৭] যদি না মানুষের দেহাবশেষ বা অস্ত্রসম্ভার ধ্বংসস্থানে অবশেষ থাকে, মার্কিন এয়ার ফোর্সের প্রাচীন বিমান ধ্বংসস্থানে ঝামেলা করার কোন নিয়ম নেই। প্রাচীন সামরিক বিমান সহ প্রাচীন বিমান, যেগুলি সাধারণত ধ্বংসাবস্থায় পরিত্যক্ত বলে মনে করা হয়, ধ্বংসস্থান এবং সব বিষয়বস্তুযুক্ত জমি সুরক্ষা আইনের আওতায় এসে পড়ে। সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য সুরক্ষা আইনের ভাষা বিমান নির্দিষ্ট নয়, তাই বিমান উড়ানস্থান সংক্রান্ত সব সুরক্ষা আইন ব্যাখ্যার উপর নির্ভর করে। অবশ্য বেশিরভাগ যুক্তরাষ্ট্রীয় ও রাজ্য আইন সাংস্কৃতিক সম্পদের বর্ণনা ব্যাপারে স্পষ্ট, যেমন 'বস্তু, সাইট, বা অন্যথায়, ঐতিহাসিক মূল্যের'[৮][৯] বা 'সামরিক বা সামাজিক ইতিহাস'[১০] এবং সময় সীমা পঞ্চাশ বছরের বেশি বিবেচনা করা হয়। যদি একটি বিমান ধ্বংসাবশেষ পঞ্চাশ বছরের বেশি হয়ে যায়, যাতে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের থেকে সব বিমান ধ্বংসাবশেষ অন্তর্ভুক্ত, এবং অধুনা যুক্তরাষ্ট্রীয় জমিতে ধ্বংস হয়েছে, সেইসব স্থান স্বয়ংক্রিয়ভাবে ন্যাশনাল পার্ক সার্ভিস আইন 36CFR2.1[১১]-এর অধীনে বিনা অনুমতিতে কোন ধরনের ঝামেলা থেকে সুরক্ষিত। যুক্তরাষ্ট্রীয় জমি উপর ধ্বংসস্থান ১৯৬৬ সালের জাতীয় ঐতিহাসিক সংরক্ষণ আইনের অধীনে নিরূপণভাবে সংরক্ষিত রয়েছে। এই আইন অনুসারে সব ঐতিহাসিক ধ্বংসস্থানকে ঝামেলা এড়াতে অনুচ্ছেদ 106 পর্যালোচনা অতিক্রম করতে হবে ঐতিহাসিক স্থানসমূহ জাতীয় নিবন্ধন (National Register of Historical Places) দ্বারা যোগ্যতা নির্ধারণার্থে। জাতীয় উদ্যান, জাতীয় বন, জাতীয় সামুদ্রিক অভয়ারণ্য ও দেশের ইঞ্জিনিয়ার্স মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আর্মি কর্পস (United States Army Corps of Engineers)-এর মালিকানাধীন জমি যুক্তরাষ্ট্রীয় জমির অন্তর্ভুক্ত। বিমান সাইট, উদাহরণস্বরূপ প্রস্তাবিত মহাসড়কের ধারে বিমানবন্দরে বা বিমান ধ্বংসস্থানে একটি বিমান বিশ্রামস্থল, অবিলম্বে অনুচ্ছেদ 106 পর্যালোচনার বিষয় যদি তারা এমন একটি প্রকল্প দ্বারা উপদ্রৃত হয় যাতে একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় পারমিটের প্রয়োজন হয় অথবা ফেডারেল তহবিল ব্যবহার করা হয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে, রাজ্য ঐতিহাসিক সংরক্ষণ অফিসার (State Historic Preservation Officer) নির্ধারণ করেন কোনো বিমান ধ্বংসস্থান নিবন্ধনযোগ্য কিনা।

The National Register deems aviation wreck sites as “any aircraft that has been crashed, ditched, damaged, stranded, or abandoned”.[১২] It designates the protection terms for aviation history sites as well, including abandoned airfields or facilities sites, testing or experimental sites, land or water air terminals, or airway beacons and navigational aids.

State lands protection laws vary widely across the nation but the language describing a historical resource is the same as federal laws. Therefore, aviation properties and aircraft wrecks on State lands can be protected under various environmental, public resource, and historical property laws as outlined per state for the protection of archaeological and historic resources. Any archaeological survey, excavation, or activity that disturbs wither wreck or aviation property remains can, in some cases, be permitted on federal and state lands under a permitting process through the regulating entity. If an aircraft wreck, or the remains of any aviation property, is located on private land it is not automatically protected by any federal, state, or local law and any survey or excavation work must be permitted by the land owner.

Under the 'Sunken Military Craft Act’ (SMCA) of 2004, it is illegal to disturb, remove, or injure the wreck sites or associated contents of U.S. Naval or any submerged military aircraft.[১৩] The act identifies military craft as including any sunken military aircraft or military spacecraft that was owned or operated by a government when it sank, and includes the associated contents. Because of the U.S. Navy’s retaining of ownership of all military craft, the act applies to any U.S. Navy aircraft, even if in international or other country’s territorial waters. The act also applies to any foreign military craft in U.S. territorial waters. Persons wishing to conduct archaeological or research exploration of any submerged military aircraft can apply to the Naval History and Heritage Command’s Underwater Archaeology Branch for a permit. The SMCA includes penalties associated with any unauthorized disturbances of sunken military craft as a fine and a liability for the reasonable costs incurred in recovery of archaeological or cultural information, storage, restoration, care, maintenance, and conservation.

As a part of federal air regulations, NTSB Part 830, protects any aircraft whose accident cause is under investigation.[১৪][১৫] NTSB officials will routinely seize portions of wrecked aircraft for further analysis. Most of the time, after their study is complete, the sequestered debris is returned to the owners' representation - most often the aircraft's insurance company. However, examples like the reconstructed wreckage of TWA Flight 800 are held in perpetuity by the NTSB to education the public and future investigators on the NTSB's role in transportation safety.

যুক্তরাজ্য[সম্পাদনা]

The laws in the UK cover the remains of all aircraft which have crashed during military service (land or sea) are protected by the Protection of Military Remains Act 1986. This Act defines an offence of tampering with, damage to, moving, or unearthing the aircraft remains. Exceptions apply to those holding licences, which can be issued by the Secretary of State, authorising specific procedures to be performed.

For the wreck-chasing hobbyist there is a self-regulating body, the British Aviation Archaeological Council (BAAC),[১৬] which defines ethical standards of behaviour, coordinates activities and provides a forum for discussion for its member groups. Not all active groups in the UK are members of this organisation.

Types of Aviation Archaeology Sites[সম্পাদনা]

Terrestrial Sites[সম্পাদনা]

Aviation history sites on land that can be subject to archaeological survey or excavation can include airports (which can contain hangars, terminal, other facilities, etc.), crash sites, monuments, or even properties associated with important persons or events in aviation history. Some examples of potential and current archaeological sites:

Aircraft Crash Sites[সম্পাদনা]

The Loon Lake B-23 Dragon crash site in Payette National Forest, Idaho is a remarkably intact example of an aircraft wreck. The crew survived and was rescued, and some avionics removed from the site, and it currently is the subject of a teaching aviation archaeology field school in various years.

Abandoned airfields[সম্পাদনা]

Arlington Auxiliary Army Airfield: high view from the SW corner of the triangular runway[১৭] looking WNW, Arlington, CO, 2006
Arlington Airfield: E/W runway looking west, notice the large sections of asphalt and the vegetation changes along and on the runway, 2006

Abandoned airfields can yield much information of historic information about aviation and related industries. From civilian airfields to military airfields, aviation archaeologists can find, uncover, and recover a variety of artifacts, just to name a few: aircraft parts with serial numbers, equipment parts, asphalt or runway material, variety of contamination, structures and foundations, businesses and economics, to community and cultural changes. With the closure of a military airbase, the street system and runways become local expansion of city streets and business; one example is the community conversion of Lowry Air Force Base to a local residential, commercial, and educational environment. Other bases, like the Arlington Auxiliary Army Airfield reverted to farming and ranching.

In 1990, 1994, and 1998, archaeologists investigated, using airborne remote sensing studies and limited excavation, a vintage hangar of the Huffman Prairie Flying Field Site at Wright-Patterson Air Force Base, Ohio. The investigations were “designed to provide information needed for site management by Wright-Patterson Air Force Base and the Dayton Aviation Heritage National Historical Park of the National Park Service. The geophysical and remote sensing investigations revealed magnetic, electromagnetic, and ground penetrating radar anomalies and infrared thermal images associated with the hangar structure. The archaeological excavations located an in situ wood post, posthole features, and artifacts which represent archaeological remains of the actual hangar”.[১৮] Huffman Prairie Flying Field is listed on the National Register of Historic Places.

Another example is Hamilton Army Airfield in Novato, California. It was in use from 1929 until 1976. It was eventually turned over to the city of Novato for development of housing. The runway is also part of tidal wetland restoration effort currently underway by the U.S. Army Corps of Engineers, California Coastal Conservancy, and the San Francisco Bay Conservation and Development Commission.

Abandoned missile silos and sites[সম্পাদনা]

California has missile launch sites abandoned by the US Army.[১৯] Archaeological research includes these sites throughout the United States. Exploring and hiking around abandoned silos and sites may constitute trespassing as well as being dangerous.[২০] Permission from current land owners or caretakers is imperative. Research and formal site investigations adds to the historical record of the Cold War. One such site is the Minuteman Missile National Historic Site.[২১]

In the Golden Gate National Recreation Area is a decommissioned Cold War era Nike Missile base, Nike Missile Site SF-88. In 1954, it was armed with Nike Ajax missiles. In 1958, it was converted to Nike Hercules nuclear missiles. After it was shut down in 1974, it was turned over to the National Park Service. It is now open for tours on the first Saturday of every month from 12:30-3:30. [১]

Underwater crash sites[সম্পাদনা]

A B-29 "Superfortress" Serial No. 45-21847 ditched in Lake Mead in 1949. This particular aircraft is listed in the National Register under Criterion C as an example of a significant type of aircraft construction and under Criterion D for it potential to yield important information.

The remains of the USS Macon Airship and its associated F9C Sparrowhawks are located at around 1500 feet in the Monterey Bay National Marine Sanctuary. The National Oceanic and Atmospheric Administration (NOAA) has run survey expeditions to the site, creating photomosaics to track deterioration. The wreck site is listed on the National Register.

Underwater surveying and recovery[সম্পাদনা]

Underwater search and recovery is a complex aspect of aviation archaeology. Dive and recovery team have to do extensive research and planning before any recovery is performed. The aircraft site may be left as a memorial and not recovered. Once an aircraft has been located, an underwater survey is conducted before recovery operations begin. Many tasks are established and the research is a long process that requires the detailed review numerous and various sources of information. The complexities include a great deal of preparation, extensive training, precise planning, and very technical equipment and coordination. Conservation has often proved very difficult[২২]

Australia[সম্পাদনা]

The Australian focus has been on underwater aviation archaeology,[২৩] partly as a result of the interest of the relatively large number of maritime archaeologists and shipwreck conservators in the field. This has resulted in numerous studies and reports, including some cross-fertilization or ideas, theory and techniques with practitioners in other parts of the world, with a strong emphasis on the involvement of conservators.[২৪] Underwater aviation archaeology commenced in Australia at the wrecks of the Dornier, Catalina, and Sunderland Flying Boats destroyed by Japanese fighters at Broome in WWII. These lie, both in the intertidal zone, and in deeper water.[২৫] The study continued in Darwin in the Northern Territory with research and fieldwork at its series of submerged PBY Catalina wrecks,[২৬] Subsequently, the study has spread to other regions in Australia, partly as a result of the Interest of Flinders University and its postgraduate student body.[২৭] While military aircraft remain the property of their respective governments unless delegated to a third party, submerged aircraft wrecks (such as the wrecks at Broome in Western Australia), have proven to be quite difficult to protect from unauthorized recoveries and looting. Those in Broome are now protected under the provisions of the 1990 Heritage of Western Australia Act.[২৮]

পেশা হিসেবে[সম্পাদনা]

আমেরিকাতে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বিমান প্রত্নতাত্ত্বিকদের Joint POW/MIA Accounting Command (JPAC) -তে কর্মরত পাওয়া যায়, বিশ্বের সর্বত্র সাবেক যুদ্ধস্থানগুলিতে ভ্রমণরত, হারিয়ে যাওয়া আমেরিকান কর্মচারী এবং নারীদের অবশিষ্টাংশ অনুসন্ধানরত পাওয়া যায়। এই নিখোঁজ জিনিসের বেশিরভাগই অনেক দূরবর্তী এবং পৌঁছানো কষ্টসাধ্য এলাকায় বিমান দুর্ঘটনায় ধ্বংসাবশেষ। "The BentProp Project" নামক একটি স্বেচ্ছাসেবকদের দল বিনা ঝামেলায় আমেরিকান সামরিক ধ্বংসস্থান অনুসরণ করে; তারা তাদের তথ্য JPAC-কে পাঠিয়ে দেয়। অস্ট্রেলিয়াতে এবং পৃথিবীর অন্য অংশে যেখানে মানুষের দেহাবশেষের জড়িত আছে, আদালতসম্বন্ধীয় নৃবিজ্ঞানী ও দুর্ঘটনার তদন্তকারীরা সেবা অভেদ্য রাখতে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন রাখা হয়েছে।

Professional aviation archaeologists may also be involved in the recovery of near-complete examples of wrecked or abandoned aircraft for profit. The clients of these professionals range from private individuals and aviation museums, to government agencies. Often these aircraft are in remote areas, which aids wreckage preservation.[২৯] Examples include Glacier Girl, a Lockheed P-38 Lightning that was successfully recovered from below the Greenland ice cap, and restored to airworthy condition, and Kee Bird, a Boeing B-29 Superfortress also abandoned on the Greenland ice cap, but severely damaged by recovery efforts.

In June 2009, the Wreckchasing/Aviation Archaeology Symposium, on the topic of wreckchasing and aviation archaeology was held in northern California at Moffett Field near Mountain View.[৩০]

North America conference[সম্পাদনা]

On April 17 & 18, 2010, a group of aviation archaeology professionals, avocational and interested persons met in Broomfield, Colorado at the Rocky Mountain Metropolitan Airport for a two-day summit. The attendees came from Arizona, California, Canada, Colorado, Illinois, New Mexico, and Oklahoma representing the interests of wreck chasers, aircraft recovery teams, and avocational archaeologists. The North American Aviation Archaeology Summit was conducted and sponsored by the North American Institute of Aviation Archaeology[৩১] and Colorado Aviation Historical Society's Aviation Archaeology Program's Staff. Some of the attendees had also attended the 2009 Symposium at Moffett Field. The group discussed all aspects of aviation archaeology, wreck chasing, recovery, modern archaeology techniques, ethics, education, training, hobby enthusiasts, and professional interests. Breakout sessions, consensus, and voting occurred to determine the Summit outcome. The Summit created an organization initially representing the United States and Canada, now to be called: Aviation Archaeology and Heritage Association, and with full agreement to expand and include all nations interested in aviation archaeology and wreck chasing.[৩১][৩২]

See also[সম্পাদনা]

References[সম্পাদনা]

  1. McCarthy, M., 2004. Historic aircraft wrecks as archaeological sites. Bulletin of the Australasian Institute for Maritime Archaeology, 28: 81-90.
  2. "Arizona Crash History"। ৬ জানুয়ারি ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  3. Eastern Colorado Abandoned & Little-Known Airfields
  4. Part Prefix Numbers by Aircraft Type and Manufacturer List
  5. Unique Manufacturer Inspection Stamp Chart
  6. "Sterling City, TX, B-36 Accident Report" (PDF)। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০০৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  7. Historic Preservation Policy Regarding US Navy Sunken Military Craft
  8. National Historic Preservation Act 1966 Public Law 102-575 16 U.S.C. 470w
  9. National Historic Landmarks Program 36CFR65 et seq.
  10. California public resources code Section 5020-5029.5
  11. National Park Service Law 36CFR2.1
  12. Guidelines for Nominating Historical Aircraft Properties
  13. History.Navy.mil: The Sunken Military Craft Act (US)
  14. NTSB Part 830: U.S. Accident Preservation and Reporting Regulations (US)
  15. US Federal Registry: 49 CFR Part 830[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  16. AviationArchaeology.org.uk Official Site
  17. Arlington Auxiliary Army Airfield Aerial View ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৬ অক্টোবর ২০১১ তারিখে, see image no. 11
  18. ""Archaeological, Geophysical, and Remote Sensing Investigations of the 1910 Wright Brothers' Hangar, Wright-Patterson Air Force Base, Ohio""। ১৩ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  19. US Army Nike Missile Sites
  20. History of Missile Silos
  21. National Park Service: Minuteman Site
  22. "Canadian Harvard Aircraft Association Dive Recovery Team"। ৮ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  23. Western Australian Museum Broken Wings
  24. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৪ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  25. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৪ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  26. Jung, Silvano (2001). Wings Beneath the Sea: the aviation archaeology of Catalina Flying Boats in Darwin Harbour, Northern Territory. Unpublished Master of Arts thesis, Northern Territory University (now Charles Darwin University), Darwin, Northern Territory, Australia.
  27. e.g. Ford, J., 2006. WW Aviation Archaeology in Victoria Australia. Department of Maritime Archaeology. Flinders University. Adelaide.
  28. McCarthy, M., Green, J., Jung, S. and Souter, C., 2002. The Broome Flying Boats: Papers relating to the nomination of a suite of flying boat wrecks at Broome to the Register of Heritage Places under the Heritage Of Western Australia Act 1990. Report – Department of Maritime Archaeology Western Australian Maritime Museum, No. 170.
  29. Hoffman, Carl (২০০১)। Hunting Warbirds - The Obsessive Quest for the Lost Aircraft of World War II। Ballantine Books। পৃষ্ঠা 245। আইএসবিএন 0-345-43617-2 
  30. Wreckchasing Message Board, Wreckchasing Symposium Update
  31. North American Institute of Aviation Archaeology
  32. Colorado Aviation Historical Society: New Aviation Archaeology and Heritage Association for 2010
  • All references re-accessed 26 February 2012

Further reading[সম্পাদনা]

External links[সম্পাদনা]

International sites
  • TIGHAR.org - The International Group for Historic Aircraft Recovery
  • Waymarking.com - coordinates for selected crash sites
Australia
Canada
Germany
UK sites
US sites

টেমপ্লেট:Lists of aviation accidents and incidents