বিফোর নাইট ফলস (চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বিফোর নাইট ফলস
বিফোর নাইট ফলস চলচ্চিত্রের পোস্টার.jpg
প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির পোস্টার
পরিচালকজুলিয়ান শনাবেল
প্রযোজকজন কিলিক
চিত্রনাট্যকার
  • ল্যাজারো গোমেজ ক্যারিলিস
  • কানিংহাম ও'কিফ
  • জুলিয়েন শনাবেল
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারকার্টার বারওয়েল
চিত্রগ্রাহক
  • জেভিয়ার পেরেজ গ্রোবেট
  • গিলারমো রোসাস
সম্পাদকমাইকেল বেরেনবাউম
প্রযোজনা
কোম্পানি
গ্র্যান্ডভিউ পিকচার্স[১]
পরিবেশকফাইন লাইন ফিচার্স[১]
মুক্তি
  • ৩ সেপ্টেম্বর ২০০০ (2000-09-03) (ভিআইএফএফ)
  • ১৪ সেপ্টেম্বর ২০০০ (2000-09-14) (টিআইএফএফ)
  • ২২ ডিসেম্বর ২০০০ (2000-12-22) (

যুক্তরাষ্ট্র)

দৈর্ঘ্য১৩৩ মিনিট[১]
দেশযুক্তরাষ্ট্র[১]
ভাষাইংরেজি[১]
নির্মাণব্যয়$২০ মিলিয়ন[২]
আয়$৮.৫ মিলিয়ন[৩]

বিফোর নাইট ফলস হল জুলিয়েন শনাবেল পরিচালিত ২০০০ সালের একটি আমেরিকান জীবনীমূলক প্রণয়ধর্মী চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি, ১৯৯৩ সালে ইংরেজিতে প্রকাশিত রিনালদো এরিনাসের আত্মজীবনী মূলক কাহিনী বিফোর নাইট ফলস [৪] এবং ১৯৯০ সালে য়ানা বোকোভার তথ্যচিত্র হাভানা, উভয়ের উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়েছে।

এর চিত্রনাট্যের সহ-রচয়িতা জুলিয়েন শনাবেল, ল্যাজারো গোমেজ ক্যারিলিস এবং কানিংহাম ও'কিফ। এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন হাভিয়ের বারদেম (যিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন), জনি ডেপ, অলিভিয়ার মার্টিনেজ, আন্দ্রেয়া ডি স্টেফানো, সান্তিয়াগো ম্যাগিল এবং মাইকেল উইঙ্কট। ২০০২ ভেনিস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ছবিটির বিশ্ব প্রিমিয়ার হয়েছিল।[১]

গল্প[সম্পাদনা]

এই ছবিতে, এরিনাস ১৯৪৩ সালে ওরিয়েন্টে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি বড় হয়েছিলেন তাঁর একক মা এবং মায়ের বাবা-মায়ের কাছে। পুরো পরিবার সহ তাঁরা হলগিন এ চলে গিয়েছিলেন। পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য ১৯৬০ এর দশকে হাভানা যাওয়ার পরে, রিনালদো উচ্চাকাঙ্ক্ষার পাশাপাশি তাঁর যৌনতা বিশ্লেষণ শুরু করেছিলেন। একটি লেখার প্রতিযোগিতায় সম্মানসূচক উল্লেখ পাওয়ার পরে, এরিনাসকে তাঁর প্রথম কাজ প্রকাশের সুযোগ দেওয়া হয়। অন্য প্রকাশ্য সমকামী পুরুষদের (যেমন পেপে মালাস এবং টমাস দিয়েগো) সাথে তাঁর কাজ এবং বন্ধুত্বের মাধ্যমে এরিনাস নিজের যৌন সত্ত্বাকে খুঁজে পেয়েছিলেন।

কিউবার রাজনৈতিক আবহাওয়া ক্রমশ বিপজ্জনক হয়ে উঠেছিল, এবং ১৯৭০ এর দশকের গোড়ার দিকে নাবালক যৌন নিপীড়নের অভিযোগে এবং সরকারী অনুমতি ছাড়াই বিদেশে প্রকাশের অভিযোগে এরিনাসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। পরের দশকে, তিনি বেশ কয়েকবার বন্দী হয়েছিলেন এবং ছাড়া পেয়েছিলেন। তিনি বেশ কয়েকবার দেশ ছাড়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছিলেন।

১৯৮০ সালে, এরিনাস শেষ পর্যন্ত কিউবা থেকে বেরিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছোতে পেরেছিলেন, সেখানে ঘনিষ্ঠ বন্ধু ল্যাজারো গোমেজ ক্যারিলিসের সাথে তিনি নতুন জীবন শুরু করেছিলেন। কয়েক বছর পরে, এরিনাসের এইডস ধরা পড়ে এবং বেশ কয়েক বছর কষ্ট সহ্য করার পরে তিনি ১৯৯০ সালে মারা যান।

চরিত্র চিত্রণ[সম্পাদনা]

প্রযোজনা[সম্পাদনা]

বাসকিয়াট করার পরেই জুলিয়েন শনাবেলের মাথায় বিফোর নাইট ফলস করার চিন্তা এসেছিল; কিন্তু, চলচ্চিত্রটি প্রকৃত অর্থে শুরু করতে চার বছর সময় লেগে গিয়েছিল।[৫]

এরিনাস কীভাবে হাঁটতেন এবং কীভাবে কথা বলতেন তা শেখার জন্য বারদেম এরিনাসের ঘনিষ্ঠ বন্ধু ল্যাজারো গোমেজ ক্যারিলিসের সাথে নিউ ইয়র্ক শহরে দেড় মাস কাটিয়েছিলেন, প্রতিদিন দুই ঘণ্টা অনুশীলন করতেন তিনি। [৬]

প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

সমালোচকদের প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

পর্যালোচনা সংগ্রহকারী ওয়েবসাইটে, রটেন টম্যাটোস, চলচ্চিত্রটির ৯৮টি পর্যালোচনা এবং ৬.৮/১০ এর গড় মানের উপর ভিত্তি করে ৭৩% অনুমোদন ঘোষণা করেছিল। সাইটের ঐকমত্য জানিয়েছিল: "রিনালদো এরিনাসের একটি ভাববাদী, খণ্ডিত চেহারা দেখলে, বিফোর নাইট ফলস এর কল্পনা, লেখকের শিল্পকর্মের উপলব্ধি প্রকাশ করতে উদ্দীপ্ত করে, এবং বারদেমের শক্তিশালী অভিনয় ছবিটিকে ধরে রেখেছে। অবশেষে, একটি আত্মজীবনীধর্মী চলচ্চিত্র ভালভাবে সম্পন্ন হয়েছে।"[৭] মেটাক্রিটিক ২৬টি সমালোচনার উপর ভিত্তি করে, বিবৃতি দিয়েছে ১০০ এর মধ্যে ৮৫ মান, যেটি বোঝায় "সার্বজনীন প্রশংসা"।[৮]

রজার ইবার্ট চলচ্চিত্রটিকে ৪ এর মধ্যে ৩.৫টি তারা দিয়েছিলেন, তিনি বলেছিলেন, "এটি দেখে মার্কুইস ডি সাদের কিছুটা মনে পড়ে যায়, যেমনটা কুইলস দেখা গিয়েছিল। কখনোই এটি শুধুমাত্র যা লেখা হয়েছিল তা নয়, কিন্তু, দেশাচারের বাইরে দাঁড়িয়ে, শাসকগোষ্ঠীকে ব্যঙ্গ করে, অসম্ভব জীবনযাপন করে, এগুলি সব লেখা হয়েছিল"[৯] রোলিং স্টোন এর পিটার ট্রেভার্স এই চলচ্চিত্রকে পাঁচটি তারার মধ্যে পাঁচটিই দিয়েছিলেন, তিনি লিখেছিলেন, "এরিনাসকে সম্মান জানাতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বারদেম এবং শনাবেল অসাধারণ কিছু তৈরি করেছিলেন।"[১০]

বক্স অফিস[সম্পাদনা]

২০০০ সালের ২২শে ডিসেম্বর, ছবিটি এ আটটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছিল, এবং এটির প্রথম সপ্তাহান্তে আয় হয়েছিল $৮৫,২৩০, এর ফলে উত্তর আমেরিকা বক্স অফিসে এর ক্রম দাঁড়িয়েছিল #৩৪।[১১] ২০০১ সালের ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ছবিটি বিস্তৃতভাবে মুক্তি পেয়েছিল।[১২]

বিফোর নাইট ফলস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে $৪.২ মিলিয়ন এবং বিদেশে $৪.৩ মিলিয়ন আয় করেছিল, বিশ্বব্যাপী মোট $৮.৫ মিলিয়ন আয় হয়েছিল।[৩] ছবির নির্মাণব্যয় ছিল $২০ মিলিয়ন।[২]

পুরস্কার এবং মনোনয়ন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Before Night Falls"American Film Institute। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১, ২০১৭ 
  2. "Before Night Falls"TheWrap। ২০১৭-০৪-০১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৩১, ২০১৭ 
  3. "Before Night Falls (2000)"Box Office MojoAmazon.com। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৩১, ২০১৭ 
  4. Before Night Falls cinetropic.com.
  5. Director Interview Jan-April 2001.
  6. "US" 
  7. "Before Night Falls"Rotten TomatoesFlixster। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৩১, ২০১৭ 
  8. "Before Night Falls reviews"MetacriticCBS Interactive। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৩১, ২০১৭ 
  9. "Before Night Falls Movie Review (2001)"Ebert, Roger। ফেব্রুয়ারি ২, ২০০১। 
  10. "Before Night Falls - Movie Reviews"Rotten TomatoesFlixster। জুন ৪, ২০০১। 
  11. "Weekend Box Office Results for December 22-25, 2000"Box Office MojoAmazon.com। ডিসেম্বর ২৬, ২০০০। 
  12. "Before Night Falls (2000) - Weekend Box Office Results"Box Office Mojo। Amazon.com। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৩১, ২০১৭ 
  13. Awards nytimes.com.
  14. Awards Official website

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Julian Schnabel টেমপ্লেট:Venice Film Festival Special Jury Prize