বাঁটুল দ্য গ্রেট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বাঁটুল দি গ্রেট বিখ্যাত ভারতীয় বাঙালি কমিকস শিল্পী নারায়ন দেবনাথের সৃষ্ট একটি কাল্পনিক কমিকস চরিত্র।ইংরেজী কার্টুন চরিত্র ডেসপারেট ড্যান-এর আদলে তৈরি বাঁটুলের কমিকস গত পঞ্চাশ বছরেরও বেশি সময় ধরে (১৯৬৫ থেকে) প্রকাশিত হয়ে আসছে শুকতারা পত্রিকায়। বাঁটুল দি গ্রেটকে একমাত্র বাঙালি সুপারহীরো (অতিমানব) বলা যায়।

বাঁটুল দি গ্রেটের বিবর্তন.jpg

বিবরণ[সম্পাদনা]

বাঁটুল দি গ্রেট প্রচন্ড শক্তিশালী এক মানুষ। বাঁটুলের গায়ে গুলি লেগে গুলি ছিটকে যায়। মাথায় বিরাট হাতুড়ি মারলে তার মনে হয় মাথায় একফোঁটা জল পড়ল। কিন্তু তার পোশাক আশাক মোটেও সুপারহীরোর মত নয়। গোলাপী বা কমলা স্যান্ডো গেঞ্জী, কালো হাফপ্যান্ট তার একমাত্র পোশাক। বাঁটুল সবসময়ে খালি পায়েই থাকে। কারণ জুতো পরলেই নাকি ছিঁড়ে যায়। তার আছে দুই স্যাঙাত যাদের নাম বিচ্ছু ও বাচ্ছু, কখনো কখনো তাদের নাম গজা ও ভজা বলেও বর্ণিত হয়েছে। তারা সবসময়েই ব্যস্ত থাকে কিভাবে বাঁটুলকে জব্দ করবে, কিন্তু শেষে তারাই জব্দ হয়। বাঁটুলের প্রতিবেশী হলেন বটব্যাল বাবু ও তার চাকর। স্থানীয় পুলিশ আধিকারিকের সঙ্গেও বাঁটুলের বন্ধুত্ব। বাঁটুলের আরেক অনুগত স্যাঙাত আছে যার নাম লম্বকর্ণ। লম্বকর্ণের শ্রবণশক্তি প্রখর। বাঁটুলের পোষা কুকুরের নাম ভেদো আর পোষা উটপাখির নাম উটো। মাঝে মাঝেই সমসাময়িক বাস্তব ঘটনায় বাঁটুলকে জড়িয়ে পড়তে দেখা যায়। বাঁটুলকে দেখা গেছে অলিম্পিকে ভারতের জন্য সোনার মেডেল জিততে। বাঁটুল বেড়াতে ভালবাসে। একবার মিশর বেড়াতে গিয়ে সে একটি যান্ত্রিক স্ফিংসকে জব্দ করেছিল। বাঁটুল সৎ ও দেশপ্রেমিক। সে অতীত গল্পগুলিতে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধে সাহায্য করে মুক্তিযোদ্ধাদের ও পাক বাহিনীকে সংহার করেছে। বাঁটুলের প্রচন্ড শক্তি মাঝে মাঝেই তার প্রতিবেশীদের সমস্যার কারণ হয়।

বিভিন্ন মাধ্যমে বাঁটুল[সম্পাদনা]

শুকতারায় প্রথমবার বেরোনোর পর বাঁটুলের কমিকস দেব সাহিত্য কুটির থেকে খণ্ডে খণ্ডে প্রকাশিত হয়েছে। এই বইগুলি এখন একত্রে বের হয়েছে।

বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের জি বাংলা টিভি চ্যানেলেতে বাঁটুলের কাহিনীগুলি অ্যানিমেটেড আকারে সম্প্রচারিত হয়।