পূজা কাপুর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পূজা কাপুর
ব্যক্তিগত বিবরণ
জাতীয়তাভারতীয়
শিক্ষাঅক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়; ইকোল ন্যাশনাল দ্য এডমিনিস্ট্রেশন ; দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়
জীবিকাকূটনীতিবিদ

পূজা কাপুর একজন ভারতীয় কূটনীতিবিদ, যিনি বুলগেরিয়াউত্তর মেসিডোনিয়ায় ভারতের রাষ্ট্রদূত হিসেবে কর্মরত আছেন।[১][২] তিনি ১৯৯৬ সালে ইন্ডিয়ান ফরেন সার্ভিসে যোগ দিয়েছিলেন।

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

পূজা কাপুর যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের চিভেনিং স্কলার। তিনি ফ্রান্সের প্যারিসে অবস্থিত ইকোল ন্যাশনাল দ্য এডমিনিস্ট্রেশন থেকে জনপ্রশাসনে মাস্টার্স পাস করেছেন। তিনি দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে বিএ পাস করেছেন। তিনি পড়াশোনা খুবই ভাল ছিলেন এবং এজন্য তিনি বিভিন্ন পুরস্কার ও বৃত্তি পেয়েছেন। তিনি ইংরেজি, ফরাসিহিন্দি ভাষায় অনর্গল কথা বলতে পারেন।[৩] ইংরেজি ও ফরাসি ভাষায় অনর্গল কথা বলতে পারার বিষয়টি তার কর্মজীবনের জন্য খুবই সহায়ক। কেননা, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভাষা দুইটি 'লিঙ্গুয়া ফ্রাঙ্কা' হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তাছাড়া, বিশ্বের প্রায় ১১৩ কোটি মানুষ ইংরেজি ভাষায় কথা বলতে পারে।[৪] ফরাসি ভাষায় কথা বলতে পারে প্রায় ২৮ কোটি মানুষ।[৫] ইংরেজি ভাষা এশিয়া, ইউরোপ, আফ্রিকা, উত্তর আমেরিকা, দক্ষিণ আমেরিকাওশেনিয়া মহাদেশের ৬৭টি দেশে অফিসিয়াল ভাষা হিসেবে ব্যবহৃত হয় এবং ফরাসি ভাষা ইউরোপ, এশিয়া, উত্তর আমেরিকাওশেনিয়া মহাদেশের ২৯ টি দেশে অফিসিয়াল ভাষা হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তার বাবা ছিলেন একজন ইন্ডিয়ান এডমিনিস্ট্রিটিভ সার্ভিস অফিসার।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

পূজা কাপুর ১৯৯৬ সালে ইন্ডিয়ান ফরেন সার্ভিসে যোগ দেন। তিনি বহু দূতাবাস ও হাইকমিশনে কর্মরত ছিলেন। তিনি ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসেবেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসে কর্মরত ছিলেন। এছাড়াও, তিনি কাজ করেছেন মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরেযুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে অবস্থিত ভারতীয় হাইকমিশনে।

তিনি নয়াদিল্লিতে ভারতের বিদেশ মন্ত্রণালয়ের পূর্ব ইউরোপ, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া, জাতিসংঘ ও আসিয়ান বিষয়ক বিভাগে কাজ করেছেন।[৩][৬]

২০১৭ সালের জুলাই মাসে তাকে বুলগেরিয়ার রাজধানী সোফিয়ায় অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসে রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হয়।[৭] এরপর, সেই বছরের নভেম্বর মাসে তাকে নিজ পদের অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে মেসিডোনিয়ায় (বর্তমান: উত্তর মেসিডোনিয়া) ভারতীয় রাষ্ট্রদূত পদে নিযুক্ত হন।[৮]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

তিনি লন্ডন প্রবাসী চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট অশ্বিনী কুমার আগারওয়ালের স্ত্রী।[৯] এই দম্পতির একটি ছেলে আছে।

প্রকাশনা[সম্পাদনা]

তিনি কম্পারেটিভ গভর্নমেন্ট অ্যান্ড পলিটিক্স : কনসেপ্ট অ্যান্ড ইমার্জিং ট্রেন্ডস নামের একটি বই যৌথভাবে রচনা করেছেন।[১০] ১৯৯১ সালে বইটি প্রকাশিত হয়। তখন তার বয়স ছিল মাত্র ২০ বছর।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Pooja Kapur appointed as the next Ambassador of India to the Republic of Bulgaria"www.mea.gov.in (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৩ 
  2. "Pooja Kapur concurrently accredited as the next Ambassador of India to the Republic of Macedonia"www.mea.gov.in (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-১৭ 
  3. "Embassy of India, Sofia, Bulgaria : Ambassador Profile"www.indembsofia.org (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৩ 
  4. https://www.ethnologue.com/language/eng
  5. https://www.ethnologue.com/language/fra
  6. "Pooja Kapur is new Indian Ambassador to Bulgaria and Macedonia"The Sofia Globe। ২০১৭-০৫-১২। ২০১৭-০৭-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৩ 
  7. "Embassy of India, Sofia, Bulgaria : News - Presentation of Credentials by H.E. Ms. Pooja Kapur, Ambassador of India to H.E. Mr. Rumen Radev, President of the Republic of Bulgaria, 17 July 2017."www.indembsofia.org (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৩ 
  8. "Embassy of India, Sofia, Bulgaria : News - Ambassador Pooja Kapur presented her credentials to H.E. President Gjorge Ivanov of Macedonia at the Presidential Palace in Skopje on 24 November 2017"www.indembsofia.org (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-১৭ 
  9. http://www.indembsofia.gov.in/page/amb-profile/
  10. https://meafsi.gov.in/?3670?004