পুডু কারাগার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পুডু কারাগার
পেনজারা পুডু
অবস্থানজালান হাং তুয়াহ
কুয়ালালামপুর, মালয়েশিয়া
ধরনধ্বংশপ্রাপ্ত
নিরাপত্তা শ্রেণিমধ্যম-নিরাপত্তা
প্রতিষ্ঠা১৮৯৫
বন্ধকরণ১৯৯৬ (মালয়েশিয়ান প্রিজন ডিপার্টমেন্ট)[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
২০০৮ (রয়্যাল মালয়েশিয়ান পুলিশ)[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
পরিচালকমালয়েশিয়ান প্রিজন ডিপার্টমেন্ট
(১৮৯৫ - ১৯৯৬)

রয়্যাল মালয়েশিয়ান পুলিশ
(২০০৩ - ২০০৮)

পুডু কারাগার (মালয়: Penjara Pudu) মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরের একটি কারাগার ছিল। এটি ১৮৯১ ও ১৮৯৫ সালের মাঝামাঝি সময়ে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক সরকার কর্তৃক নির্মাণ করা হয়।[১] $১৬,০০০ ডলার ব্যয়ে ৩৯৪ মিটার দৈর্ঘ্যের দেয়াল নির্মাণের মাধ্যমে এর নির্মাণকাজ শুরু হয়, যেখানে সুশোভিত রয়েছে কারাগারটির ইতিহাসের এক সময়কার সবচেয়ে দীর্ঘ দেয়ালচিত্র।[২] এর কামরাগুলো আকারে ছোট ও অন্ধকারাচ্ছন্ন, যাতে জুতার বাক্সের আকারের জানালা রয়েছে। ২০১২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত কারাগারটির অধিকাংশই ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে।

শুরুর বছর[সম্পাদনা]

পুডু কারাগার সাবেক চাইনিজ কবরস্থানের ওপর নির্মাণ করা হয়েছে। ঐ সময় পুডু ঘন জঙ্গলময় এলাকা ছিল, যেখানে প্রায়ই বাঘ ঘোরাঘুরি করত। ১৮৯১ সালে এটির নির্মাণ শুরু হয় এবং আসামীদের শ্রমিক হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এটি নির্মাণ করতে চার বছর সময় লাগে এবং নির্মাণকাজ ১৮৯৫ সালে শেষ হয়। পুডু কারাগারের প্রথম গভর্নর ছিলেন লে. কর্ণেল জে. এ. বি ইলেন।

এর নির্মাণ শেষ হওয়ার কিছু মাস পর ১৯৯৫ সালের আগস্টে কারাগারে কলেরা প্লেগ ছড়িয়ে পড়ার ফলে কয়েক শত কয়েদি মারা যায়। পরে জানা যায় জেলে পানি সরবরাহ ব্যবস্থার মাধ্যমে প্লেগ ছড়িয়েছিল। ১৮৯৮ সাল পর্যন্ত পানি সমস্যা সমাধান করা হয়নি।[৩]

পুডু কারাগারের ইতিহাসের শুরুতে এটি সিলানগরের একমাত্র জেল ছিল এবং এখানে স্বল্পমেয়াদে সাজাপ্রাপ্ত পুরুষ ও মহিলা আসামিদের বন্দি রাখা হত। কারাগারটির নিজস্ব সবজি বাগান ছিল, যা প্রতিবছর কয়েদিদের জন্য পর্যাপ্ত খাদ্যের যোগান দিতো।[৪]

দেয়ালচিত্র[সম্পাদনা]

১৯৮৪ সাল খং ইয়েন ছং নামে এক বন্দি ২,০০০ লিটার রং ব্যবহার করে পুডু জেলের দেয়ালে গ্রীষ্মমন্ডলীয় এলাকার দৃষ্টিনন্দন দেয়াল চিত্র তৈরী করেন। ৮৬০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ১৪ ফুট প্রস্থের এই দেয়াল চিত্রটি গিনেস বিশ্ব রেকর্ডে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেয়াল চিত্র হিসেবে স্থান করে নেয়। খং কয়েদী হিসেবে চিত্রটি আঁকা সম্পন্ন করতে পারেননি। পরে তিনি একজন স্বাধীন ব্যক্তি হিসেবে ফিরে আসেন এবং এটি সম্পন্ন করেন।

১৯৪০ এর পরের ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৯৬ সালে কারাগার হিসেবে ১০১ বছর ব্যবহারের পর পুডু কারাগার বন্ধ ঘোষণা করা হয় এবং এর বন্দিদের সুনগাই বুলোহ কারাগার এবং কাজাং কারাগারে স্থানান্তর করা হয়। ১৯৯৭ সালে কিছু সময়ের জন্য একে জাদুঘর হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

কুখ্যাত কয়েদী[সম্পাদনা]

বোটাক ছিন, একজন কুখ্যাত গ্যাংস্টার যার সাথে তার নিজের দলের লোকরা প্রতারণা করে, তাকে এখানে বন্দি রাখা হয়।

১৯৮৬ সালে কেভিন বারলো এবং ব্রায়ান চেম্বার্স নামে দুই অস্ট্রেলীয় নাগরিককে হেরোইন পাচারের দায়ে পুডু কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Prison break: Pudu's walls come down"। The Straits Times। Singapore। ২২ জুন ২০১০। 
  2. Choi, Clara (২১ জুন ২০১০)। "No heritage site for Pudu Jail, development will commence 21 June 2010"The Malaysian Insider। ১৩ আগস্ট ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  3. "Social and personal"। The Straits Times। Singapore। ১৬ জুন ১৯১১। পৃষ্ঠা 6। 
  4. "Selangor Administration"। The Straits Times। Singapore। ১ জুলাই ১৯২৭। পৃষ্ঠা 2।