বিষয়বস্তুতে চলুন

পরিপাক নালি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিপাক নালি
একজন মানুষের পাকস্থলী, অন্ত্র এবং মলদ্বারের চিত্র
বিস্তারিত
তন্ত্রপরিপাক তন্ত্র
শনাক্তকারী
লাতিনTractus digestorius (মুখ থেকে পায়ু),
canalis alimentarius (অন্ননালি থেকে বৃহদন্ত্র),
canalis gastrointestinales পাকস্থলী থেকে বৃহদন্ত্র)
মে-এসএইচD041981
শারীরস্থান পরিভাষা
মুখতালুআলজিভজিহ্বাদাঁতলালাগ্রন্থিসাবলিঙ্গুয়াল গ্রন্থিসাবম্যান্ডিবুলার গ্রন্থিপ্যারোটিড গ্রন্থিযকৃৎপিত্তাশয়পিত্তনালীক্ষুদ্রান্ত্রডিওডেনামজেজুনামইলিয়ামঅ্যাপেন্ডিক্সগলবিলঅন্ননালীপাকস্থলীঅগ্ন্যাশয়অগ্ন্যাশয় নালীবৃহদান্ত্রট্রান্সভার্স কোলনঊর্ধ্বগামী কোলনসিকামনিম্নগামী কোলনসিগময়েড কোলনমলাশয়পায়ু
উপর ও নিচের পরিপাক নালী

পরিপাক নালী (ইংরেজি: gastrointestinal tract,GI tract, digestive tract, alimentary canal নামেও পরিচিত) হলো একটি পরিপাক তন্ত্রের একটি বিশেষ রাস্তা বা নালী যা মুখ গহ্বর থেকে শুরু হয়ে পায়ু পর্যন্ত বিস্তৃত। পরিপাক নালী পরিপাক তন্ত্রের সব প্রধান অঙ্গ নিয়ে গঠিত। যেমন মানুষ ও অন্যান্য প্রাণীর ক্ষেত্রে খাদ্যনালী, পাকস্থলি এবং ক্ষুদ্রান্ত্র বৃহদান্ত্রে বিভক্ত। মুখ দিয়ে খাবার নেয়া হয়। এরপর চর্বনের ফলে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কণায় ভাঙে। এরপর খাদ্যবস্তু থেকে সঠিক মাত্রায় পুষ্টি গৃহীত হয় এবং শক্তি শোষিত হয়। পরিশেষে বর্জ্য পায়ুর মাধ্যমে বের করে দেয়া হয়। Gastrointestinal একটি বিশেষণ যার অর্থ পাকস্থলি এবং অন্ত্র সম্পর্কিত।

অধিকাংশ প্রাণীর একটি পরিপূর্ণ পরিপাক তন্ত্র রয়েছে। যারা ব্যতিক্রমী তারা প্রাককেন্দ্রিক। যেমনঃ স্পঞ্জীর হজমের জন্য তাদের সারা শরীরে ছোট ছিদ্র (অস্টিয়া) থাকে এবং মলত্যাগের জন্য একটি বৃহত্তর পৃষ্ঠীয় ছিদ্র (অস্কুলাম) থাকে। কম্ব জেলিতে একটি অঙ্কীয় মুখ ছিদ্র এবং পৃষ্ঠীয় পায়ূ ছিদ্র উভয়ই থাকে, যেখানে সিনিডারিয়ান এবং অ্যাকোয়েলগুলির জন্য একটি একক ছিদ্র থাকে। হজম এবং নিষ্কাশন উভয়ই হয়ে থাকে।

মানুষের পরিপাক তন্ত্র খাদ্যনালী, পাকস্থলী, অন্ত্র এবং হজমের আনুষঙ্গিক অঙ্গ (জিহ্বা, লালা গ্রন্থি, অগ্ন্যাশয়, যকৃত এবং পিত্তথলি) নিয়ে গঠিত। এটি উর্ধ্ব পরিপাক নালী এবং নিম্ন পরিপাক নালীতে বিভক্ত।পরিপাক নালীতে মুখ এবং মলদ্বারের মধ্যবর্তী সমস্ত কাঠামো অন্তর্ভুক্ত থাকে। একটি অবিচ্ছিন্ন পথ তৈরি করে যা হজমের প্রধান অঙ্গগুলিকে যথা, পাকস্থলী, ক্ষুদ্রান্ত এবং বৃহদান্ত্রকে অন্তর্ভুক্ত করে। সম্পূর্ণ মানুষের পরিপাকতন্ত্রকে অগ্র, মধ্য এবং পশ্চাদেশে বিভক্ত করা যেতে পারে, যা প্রতিটি অংশের খুটিনাটি বিষয়কে প্রতিফলিত করে। ময়নাতদন্তে দেখা যায় পুরো মানব পরিপাক নালী প্রায় নয় মিটার (৩০ ফুট) লম্বা। জীবন্ত দেহে এটি যথেষ্ট ছোট কারণ অন্ত্রগুলির মসৃণ পেশী কলার গাত্রগুলি সংকুচিত অবস্থায় অবস্থায় থাকে, তবে প্রয়োজন মাফিক সেগুলো শিথিল হতে পারে।

পরিপাক নালীর অন্ত্রে মাইক্রোবায়োটা থাকে, যার মধ্যে প্রায় ১০০০টি বিভিন্ন স্ট্রেন ব্যাকটেরিয়া রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, বিপাক ক্রিয়ায় এবং অন্যান্য অনেক অণুজীব নিয়ন্ত্রনে বিভিন্ন ভূমিকা রাখে । পরিপাক নালীর কোষগুলি হজম প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করার জন্য হরমোন নিঃসরণ করে। গ্যাস্ট্রিন, সিক্রেটিন, কোলেসিস্টোকিনিন এবং ঘেরলিন সহ এই পাচক হরমোনগুলি হয় কোষের মধ্য নিয়ন্ত্রিত নয়তোবা স্বনিয়ন্ত্রিত পন্থায় (intracrine or autocrine mechanisms)মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হয়। যে কোষগুলি এই হরমোনগুলি নিঃসরণ করে সে কোষগুলির কাঠামো বিবর্তন এর মাধ্যমে উন্নত হয়েছে বলে মনে করা হয়।

মানব পৌষ্টিক তন্ত্র

[সম্পাদনা]

গঠনঃ

পরিপাক নালীর গঠন এবং ক্রিয়াকে বৃহৎ এবং অতিক্ষুদ্র (মাইক্রোস্কোপিক) শরীরস্থান বা দেহতত্ব (অ্যানাটমি বা হিস্টোলজি) উভয়ই বর্ণনা করা যেতে পারে। পরিপাক নালীটি উর্ধ্ব এবং নিম্ন পরিপাক নালীতি বিভক্ত এবং অন্ত্রগুলি ক্ষুদ্রান্ত ও বৃহদান্ত্র অংশে বিভক্ত।

ঊর্ধ্ব পরিপাক নালি

[সম্পাদনা]

Main articles: মুখ, গলবিল, খাদ্যনালী, পাকস্থলী এবং ডিউডেনাম।

উপরের পরিপাক নালী মুখ, গলবিল, খাদ্যনালী, পাকস্থলী এবং ডিউডেনাম নিয়ে গঠিত। উর্ধ্ব এবং নিম্ন পরিপাক নালীর সীমানা হল ডিউডেনামের সাসপেনসরি পেশী। এটি অগ্র এবং মধ্য গাটের মধ্যে সীমানাকে আলাদা করে এবং চিকিৎসকগণ এটিকে "উর্ধ্ব" বা "নিম্ন" অংশ হিসাবে পরিপাকতন্ত্রকে ভাগ করে থাকেন। ব্যবচ্ছেদ করার পরে, ডিউডেনাম একটি একীভূত অঙ্গ বলে মনে হতে পারে, তবে এটির কার্য, অবস্থান এবং অভ্যন্তরীণ শারীরবৃত্তির কাজের উপর ভিত্তি করে চারটি বিভাগে বিভক্ত। ডিউডেনামের চারটি অংশ নিম্নরূপ (পাকস্থলী থেকে শুরু করে জেজুনামের দিকে ): শুরু, নিম্নগামী, আনুভুমিক, ঊর্ধ্ব গামী ( bulb, descending, horizontal, and ascending)। দৃঢ় মোলায়েম পেশী দ্বারা ঊর্ধ্বমুখী ডিওডেনাম ডায়াফ্রামের সাথে যুক্ত থাকে।

দৃঢ় মোলায়েম পেশী একটি গুরুত্বপূর্ণ শারীরবৃত্তীয় অংশ যা ক্ষুদ্রান্তের প্রথম এবং দ্বিতীয় অংশ যথাক্রমে ডিওডেনাম এবং জেজুনামকে আলাদা করে। এটি একটি পাতলা পেশী যা ভ্রূণীয় মেসোডার্ম থেকে উৎপন্ন।

নিম্ন পরিপাক নালি

[সম্পাদনা]

নিম্ন পরিপাক নালীর মধ্যে ক্ষুদ্রান্ত্রের বেশিরভাগ এবং বৃহদন্ত্রের সম্পূর্ণ অংশ অন্তর্ভুক্ত থাকে। মানুষের শরীরে অন্ত্র হল পরিপাক নালীর অংশ যা পাকস্থলীর পাইলোরিক স্ফিঙ্কটার থেকে মলদ্বার পর্যন্ত বিস্তৃত এবং অন্যান্য স্তন্যপায়ী প্রাণীর মতো, দুটি অংশ নিয়ে গঠিত: ক্ষুদ্রান্ত্র এবং বৃহদন্ত্র. মানুষের ক্ষুদ্রান্ত্রকে তিনটি অংশে বিভক্ত করা হয় ডিওডেনাম, জেজুনাম এবং ইলিয়াম। আবার বৃহদান্ত্র সিকাম, ঊর্ধ্বমুখী(একসেন্ডিং), অনুভূমিক (ট্রান্সভার্স), নিম্নগামী (ডিসেন্ডিং) এবং সিগময়েড কোলন, মলদ্বার বা রেক্টাম ও পায়ূতে বিভক্ত।

ক্ষুদ্রান্ত্রঃ

[সম্পাদনা]

ক্ষুদ্রান্ত্র ডিউডেনাম থেকে শুরু হয় এবং এটি নলাকার, সাধারণত ৬ থেকে ৭ মিটার লম্বা হয়। একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের ক্ষুদ্রান্ত্র প্রায় ৩০ বর্গ মিটার (৩২০ বর্গ ফুট)। বৃত্তাকার আঙ্গুলি ভাঁজ, ভিলাই এবং মাইক্রোভিলাই-র সংমিশ্রণ এর শোষণকারী এলাকাকে প্রায় ৬০০-গুণ বাড়িয়ে দেয়, যা সমগ্র ক্ষুদ্রান্ত্রে প্রায় ২৫০ বর্গ মিটার (২৭০০ বর্গ ফুট) পৃষ্ঠ তৈরি করে। এর প্রধান কাজ হজমের ফলে উৎপন্ন দ্রব্য (কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, লিপিড এবং ভিটামিন) রক্ত প্রবাহে শোষণ করা। তিনটি প্রধান বিভাগ আছে:

১। ডিওডেনাম: একটি ছোট অংশ (প্রায় ২০-২৫ সেমি লম্বা ) যা পাকস্থলি থেকে কাইম এবং অগ্ন্যাশয়ের পিত্ত থলি থেকে পিত্তরস এবং অন্যান্য হজমের এনজাইম সংগ্রহ করে। এই পরিপাকের এনজাইমগুলি প্রোটিনকে ভেঙে দেয় এবং পিত্ত চর্বিকে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অংশে পরিণত করে। ডিউডেনামে ব্রুনারের গ্রন্থি রয়েছে যা বাইকার্বোনেটযুক্ত শ্লেষ্মা-সমৃদ্ধ ক্ষারীয় রস তৈরি করে। এই নিঃসরণগুলি, অগ্ন্যাশয় থেকে বাইকার্বোনেটের সংমিশ্রণে, কাইমে থাকা পাকস্থলীর অ্যাসিডগুলিকে নিস্ক্রিয় করে।

২। জেজুনাম: এটি ক্ষুদ্রান্ত্রের মধ্যভাগ। এটি ডিওডেনামকে ইলিয়ামের সাথে সংযুক্ত করে। এটি প্রায় ২.৫ মিটার (৮.২ ফুট) দীর্ঘ এবং এতে বৃত্তাকার ভাঁজ রয়েছে যা প্লিকা সার্কুলার এবং ভিলাই নামেও পরিচিত যা এর পৃষ্ঠের ক্ষেত্রফল বৃদ্ধি করে। হজমের দ্রব্যগুলো (শর্করা, অ্যামিনো অ্যাসিড এবং ফ্যাটি অ্যাসিড) এখানে রক্ত প্রবাহে শোষিত হয়।

৩।ইলিয়ামঃ ক্ষুদ্রান্ত্রের শেষ অংশ। এটি প্রায় ৩ মিটার লম্বা, এবং জেজুনামের মতো ইলিয়ামেরও খাঁজা কাটা ভিলাই রয়েছে। এটি প্রধানত ভিটামিন বি১২ এবং পিত্ত অ্যাসিড শোষণ করে। সেইসাথে অন্য কোন অবশিষ্ট পুষ্টিও শোষন করে।

বৃহদন্ত্রঃ

[সম্পাদনা]

বৃহদন্ত্রকে কোলনও বলা হয়ে থাকে। এটি সিকাম, রেকটাম ও পায়ু নিয়ে গঠিত। এর মধ্যে এপেন্ডিক্সও অবস্থিত, যা সিকামের সাথে যুক্ত। বৃহদন্ত্রের ভাগ গুলো হলো:

১। সিকামঃ কোলনের প্রথম অংশ।

২। ঊর্ধ্ব মুখী (এসেন্ডিং) কোলনঃ পেটের পিছনের দেয়ালে থাকে।

৩। রাইট কলিক ফ্লেক্সার

৪। ট্রান্সভার্স কোলন

৫। লেফট কলিক ফ্লেক্সার

৬। ডিসেন্ডিং কোলন

৭। সিগময়িড কোলন

৮। মলাশয় (রেকটাম)

৯। পায়ুনালী (এনাল ক্যানেল)

বৃহদন্ত্রের প্রধান কাজ হল পানি এবং লবণ শোষণ করা। একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের বৃহৎ অন্ত্রের ক্ষেত্রফল প্রায় ২ বর্গ মিটার (২২ বর্গ ফুট)

তথ্যসূত্র

[সম্পাদনা]
  1. https://www.ck12.org/book/ck-12-biology/section/17.2/
  2. https://archive.org/details/isbn_9780030259821/page/203
  3. https://web.archive.org/web/20090628224336/http://www.mercksource.com/pp/us/cns/cns_hl_dorlands_split.jsp?pg=/ppdocs/us/common/dorlands/dorland/eight/000109945.htm
  4. https://meshb.nlm.nih.gov/record/ui?name=Gastrointestinal+tract
  5. https://web.archive.org/web/20090628224336/http://www.mercksource.com/pp/us/cns/cns_hl_dorlands_split.jsp?pg=/ppdocs/us/common/dorlands/dorland/nine/000952042.htm
  6. https://www.ncbi.nlm.nih.gov/pmc/articles/PMC4721978/
  7. https://hypertextbook.com/facts/2001/AnneMarieThomasino.shtml