নাভির ধমনী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নাভির ধমনী
Gray502.png
ভ্রূণের রক্ত সংবহন;এখানে নাভির শিরা হলো বৃহত্তম,যা বামদিকে লাল রঙে চিহ্নিত করা হয়েছে। নাভির ধমনীগুলো রক্তবর্ণের এবং নাভির শিরাকে মুড়িয়ে রয়েছে.
Gray39.png
অমরায় রক্ত সংবহনের রেখাচিত্র
বিস্তারিত
উৎসঅভ্যন্তরীন ইলিয়াক ধমনী
শাখাসমূহউপরের ভেসিকল ধমনী
ডাক্টাস ডিফারেন্স ধমনী
শিরানাভির শিরা
শনাক্তকারী
লাতিনArteria umbilicalis
মে-এসএইচD014469
টিএ৯৮A12.2.15.020
টিএ২4316
টিইTE {{{2}}}.html EE6.0.1.3.0.0.4 .{{{2}}}{{{3}}}
এফএমএFMA:18820
শারীরস্থান পরিভাষা

নাভির ধমনী হলো এক ধরনের যুগ্ম ধমনী (শরীরের প্রতি অর্ধেকের জন্য একটি করে) যা পেটে এবং শ্রোণী অঞ্চলে পাওয়া যায়। ভ্রূণীয় অবস্থায় এ ধমনী নাভিরজ্জুতে বিন্যস্ত থাকে ।

কাঠামো[সম্পাদনা]

নাভির ধমনীগুলি ভ্রূণ থেকে অমরায় অক্সিজেনবিহীন রক্ত সরবরাহ করে। যদিও এই রক্তকে অক্সিজেনবিহীন বলা হয়, তবুও এই রক্তে ভ্রূণের সিস্টেমিক ধমনীর রক্ত এবং ভ্রূণের টিস্যুর রক্তের মতো অক্সিজেন এবং পুষ্টির পরিমাণ একই পরিমাণে থাকে। নাভির সাথে সাধারণত দুটি নাভির ধমনী থাকে । নাভির ধমনীগুলি মূত্রথলির চারপাশে ঘিরে থাকে এবং তারপরে সমস্ত অক্সিজেনবিহীন রক্তকে নাভির মাধ্যমে ভ্রূণের বাইরে নিয়ে যায়। অমরার অভ্যন্তরে, প্রায় ৫ মিমি দূরত্বে নাভির ধমনীদুটো একে অপরের সাথে সংযোগ স্থাপন করে। যাকে হাইড্রাল অ্যানাস্টোমোসিস বলে[১] পরবর্তীকালে, এগুলি কোরিওনিক ধমনী বা অন্তঃসত্ত্বা ভ্রূণ ধমনীতে শাখা সৃষ্টি করে। [২]

নাভির ধমনী আসলে অভ্যন্তরীণ ইলিয়াক ধমনীর (সম্মুখবর্তী বিভাগ) পরে থাকে। এগুলি ভ্রূণদেহে পুষ্টির সাথে পেছনের অঙ্গগুলিতে রক্ত সরবরাহ করে।

মানবদেহে দুটি ধমনী অক্সিজেনবিহীন রক্ত বহন করে। এর মধ্যে একটি হলো নাভির ধমনী এবং অন্যটি ফুসফুসীয় ধমনী

নাভির ধমনীর ভিতরে চাপ প্রায় ৫০ মিমিএইচজি হয়। [৩] সাধারণত ধমনী বিস্তৃত হওয়ার সাথে সাথে রক্ত প্রবাহের প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পায়।

ক্লিনিকাল গুরুত্ব[সম্পাদনা]

গুরুতর অসুস্থ বাচ্চাদের রক্ত পরীক্ষার জন্য নাভির ধমনীতে একটি ক্যাথেটার প্রবেশ করানো যেতে পারে। এটি নবজাতকের নিবিড় যত্নের একটি সাধারণ পদ্ধতি এবং এটি প্রায়শই জন্মের ২ সপ্তাহ অবধি করা যেতে পারে (যখন ধমনীগুলি খুব বেশি ক্ষয়ে যেতে শুরু করে)। নাভির ধমনীগুলি সাধারণত ইনফিউশনের জন্য উপযুক্ত নয়।

অতিরিক্ত চিত্র[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Gordon, Z.; Elad, D. (২০০৭)। "Anthropometry of fetal vasculature in the chorionic plate": 698–706। ডিওআই:10.1111/j.1469-7580.2007.00819.xপিএমআইডি 17973911পিএমসি 2375851অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  2. Hsieh, FJ; Kuo, PL (১৯৯১)। "Doppler velocimetry of intraplacental fetal arteries": 478–82। পিএমআইডি 1992421 
  3. Fetal and maternal blood circulation systems ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৪ জুলাই ২০১৭ তারিখে From Online course in embryology for medicine students. Universities of Fribourg, Lausanne and Bern (Switzerland). Retrieved on 6 April 2009

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]