নবরত্ন (বিক্রমাদিত্যের সভাসদ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

নবরত্ন হল সম্রাট বিক্রমাদিত্যের রাজসভায় নয়জন মনীষী। বিক্রমাদিত্য ছিলেন উজ্জয়িনীর শাসক। তার রাজদরবারের নবরত্নগণ হলেন অমরসিংহ, কালিদাস, ক্ষপণক,ঘটকর্পর, ধন্বন্তরি, বরাহমিহির, বররুচি, বেতালভট্ট, ও শঙ্কু[১]

নবরত্নের সংক্ষিপ্ত পরিচয়[সম্পাদনা]

অমরসিংহ

অমরসিংহ ছিলেন সংস্কৃত কবি, ব্যাকরণবিদ এবং প্রাচীন ভারতের সর্বশ্রেষ্ঠ অভিধান রচয়িতা। তাঁর নামানুসারে অভিধানটির নামকরণ করা হয় অমর কোষ। পদ্য ও শ্লোক আকারে রচিত এই অভিধানে স্বর্গবর্গ, ব্যোমবর্গ, পাতালবর্গ, কালবর্গ ও বনৌষধিবর্গ ইত্যাদি বিভাগ ছিল। বর্তমানে তাঁর সকল লেখা ধ্বংস হয়ে গেছে।

কালিদাস

কালিদাস সংস্কৃত ভাষার অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি। তাঁর রচিত উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ হল অভিজ্ঞানশুকুন্তলম, রঘুবংসম, কুমারসম্ভব, ও মেঘদূত[২]

ক্ষপণক

ক্ষপণক ছিলেন একজন জ্যোতির্বিদ।

ঘটকর্পর

ঘটকর্পর ছিলেন একজন কবি ও বাস্তুশিল্পী।

ধন্বন্তরি

ধন্বন্তরি ছিলেন একজন আয়ুর্বেদ ও শল্য চিকিৎসক।

বরাহমিহির

বরাহমিহির ছিলেন একজন দার্শনিক, গণিতবিদ ও জ্যোতিবিজ্ঞানী। তিনি তাঁর সময়কার গ্রিক, মিশরীয়, রোমান ও ভারতীয় জ্যোতির্বিজ্ঞানের সার নিয়ে রচনা করেছিলেন পঞ্চসিদ্ধান্তিকা[৩]

বররুচি

বররুচি ছিলেন একজন সংস্কৃত পণ্ডিত ও ব্যাকরণবিদ।

বেতালভট্ট

বেতালভট্ট ছিলেন একজন ব্রাহ্মণ। তিনি ১৬ পঙক্তির নীতি প্রদীপ রচনার জন্য বিখ্যাত।

শঙ্কু

শঙ্কু ছিলেন একজন দক্ষ ও কুশলী বাস্তুকার।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. M. Srinivasachariar (1974). History of Classical Sanskrit Literature. Motilal Banarsidass. pp. 94–111. আইএসবিএন ৯৭৮৮১২০৮০২৮৪১
  2. V. Venkatachalam. Fresh light on Kalidasa's historical perspective, Kalidasa Special Number (X), The Vikram, 1967, pp. 130–140।
  3. বৃহজ্জাতক, বরাহমিহির, অনুবাদক. ভি. সুব্রাহ্মন্য শাস্ত্রী, ১৯৫৬ খৃ., পৃ. ৫৪৭।