দ্ব্যর্থবোধকতা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

যুক্তিবিদ্যা অনুসারে, দ্ব্যর্থবোধকতা ('দুইটি বিষয়কে একই নামে ডাকা') একটি অনানুষ্ঠানিক হেত্বাভাষ বা কুযুক্তি। এই কুযুক্তি দ্বারা সুনির্দিষ্ট শব্দ/অভিব্যক্তির মাধ্যমে কয়েক ধরনের অর্থ প্রকাশ করে প্রতারণাপুর্ণ উপসংহার তৈরী করা হয়।[১][২]

এটা দ্ব্যর্থবোধকতারই একটি রুপ; যা ব্যাকরণ বা শব্দের গঠনগত দিক থেকে নয় বরং অর্থগত দিক থেকে একাধিক অর্থ প্রকাশ করে।[১]

দ্ব্যর্থবোধকতার কিছু উদাহরণ নীচে দেওয়া হলো।

  • ইংরেজি প্রবাদ বাক্যতে বলা হয়, ম্যান ইজ মর্টাল (অনুবাদ: মানুষ মরণশীল)
কোনো নারীই পুরুষ নয়। (ম্যানের আক্ষরিক অর্থ পুরুষ)
অর্থাৎ নারীরা অমরণশীল[১]

উপরের উদাহরণের প্রথম বাক্যে ম্যান শব্দটি দ্বারা মানুষ বুঝানো হলেও দ্বিতীয় বাক্যে ম্যান দ্বারা পুরুষ বুঝানো হয়েছে। আর এর মাধ্যমে একটি মিথ্যাচারমুলক একটি উপসংহার টানা হয়েছে।

  • আমি তোমার কাছে প্রতিজ্ঞা করেছিলাম, আমি আমার সাবেক প্রেমিকের সাথে কথা বলব না। আমি আমার প্রতিজ্ঞা কবে ভাঙলাম, আমি শুধু তাকে খুদে বার্তা আর কিছু আলোকচিত্র পাঠিয়েছি।
  • যেসব বাচ্চারা কলরব করে, তারাই মাথাব্যথার কারণ।
মাথাব্যথা প্যারাসিটামল দূর করতে পারে।
অর্থাৎ এই প্যারাসিটামল বাচ্চার কলরবও দূর করে দিতে পারে।

এখানে বাচ্চার হইচইয়ের সাথে মাথাব্যথার সংযোগ আছে, আবার মাথাব্যথার সাথে প্যারাসিটামলেরও সংযোগ আছে। কিন্তু উভয় সমীকরণকে আশ্রয় করে যে তৃতীয় সমীকরণ বা বাচ্চার কলরবের সাথে প্যারাসিটামলের সংযোগ টানা হয়েছে তা একপ্রকার হেয়ালিপুর্ণ উপসংহার। এখানে মাথাব্যাথার দ্ব্যর্থবোধকতা রুপকে ব্যবহার করা হয়েছে।

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]

  1. Damer, T. Edward (২১ ফেব্রুয়ারি ২০০৮)। Attacking Faulty Reasoning: A Practical Guide to Fallacy-Free Arguments। Cengage Learning। পৃষ্ঠা 121–123। আইএসবিএন 0-495-09506-0 
  2. Fischer, D. H. (জুন ১৯৭০), Historians' fallacies: toward a logic of historical thought, Harper torchbooks (first সংস্করণ), New York: HarperCollins, পৃষ্ঠা 274, আইএসবিএন 978-0-06-131545-9, ওসিএলসি 185446787