দেউই পার্সিক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দেউই পার্সিক
Dewi-persik.jpg
২০০৮ সালে দেউই পার্সিক
প্রাথমিক তথ্য
জন্ম নামদেউই মুরিয়া আহুং
জন্ম (1985-12-16) ১৬ ডিসেম্বর ১৯৮৫ (বয়স ৩৩)
ধরনডাংডাট
পেশাগায়িকা, নৃত্যশিল্পী, দার্শনিক

দেউই মুরিয়া আহুং (জন্ম: ১৬ ডিসেম্বর ১৯৮৫), তার স্টেজের নাম দেউই পার্সিক (বানানটি দেউই পার্সসিকও লেখা হয়) এবং তিনি পরপর ডাকনাম নামে পরিচিত। তিনি হচ্ছেন ইন্দোনেশিয়ার একজন অভিনয়শিল্পী এবং গায়িকা। তিনি বিভিন্ন স্তরে, তার মঞ্চে ব্যক্তিত্ব এবং ব্যক্তিগত জীবনের সাথে জড়িত রয়েছেন।

জীবনী[সম্পাদনা]

দেউই পার্সিক ১৯৮৫ সালের ১৬ ডিসেম্বর পূর্ব জাভা এর জেম্বার-এ জন্মগ্রহণ করেছেন। তিনি ছিলেন মুনমুন এডিল ও শ্রীমুনার চার সন্তানের মধ্যে ছোটো শিশু। তিনি কিছুটা চীনা বংশদ্ভুত। তিনি পরে ডাংডেট গায়িকা হয়ে ওঠেন, তিনি "স মোর" (ইন্দোনেশীয়: Goyang Gergaji) এর মাধ্যমে সকলের মধ্যে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। চীনের সংস্কৃতিতে সৌভাগ্য অর্জনের জন্য, ইন্দোনেশীয় শব্দ "পিস" এর মাধ্যমে তার স্টেজ নাম দেউই পার্সিক রাখা হয়।[১] তার উপনাম বা ডাকনাম হলো "ডেপ", তিনি এই নাম দ্বারাও সকলের মাঝে পরিচিত।[২]

২০০৮ সালে, স্টেজে অভিনয় করার সময় তার "অশ্লীল" আন্দোলন এবং সংগঠনের জন্য বিতর্ক সৃষ্টি হয় ও তাকে ট্যাঙ্গেরাং এবং বন্দুংতে পারপর্ম করা থেকে নিষিদ্ধ করা হয়;[৩] বন্দুং এর মেয়র দাদা রোজাদা বলেন যে তার "যৌন উত্তেজক" আন্দোলন শিল্প বা সংস্কৃতির মতো যোগ্যতা অর্জন করে নি।[৪] পরে তিনি ক্ষমা চান এবং তার অভিনয়কে দৃঢ় করার প্রতিশ্রুতি দেন, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক মন্ত্রী আধাকশা ডল্ট বলেন, "তার ভুল স্বীকার" করার জন্য তাকে সম্মান করা উচিত।[৩]

দুই বছর পর, অনলাইনে তার নগ্ন ছবি প্রকাশ পেলে বিতর্ক উত্থাপিত করেন। ইসলামিক ডিফেন্ডার ফ্রন্ট (এফপিআই) জাকার্তা পুলিশের কাছে তার নামে রিপোর্ট করে, এই জন্য যে ছবিগুলি অশ্লীল রচনা ও আন্দোলনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের বিলটি লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে। এফপিআই তার ঘরে পচা ডিম ছুঁড়ে দেওয়ার পরিকল্পনাও করেছিল, এবং একজন মুখপাত্র তার সাথে জাপানি অশ্লীল অভিনেত্রী মারিয়া ওঝাওয়াকে তুলনা করেছিলেন।[৫] দেউই পার্সিক পরে স্বীকার করেন যে তার ছবিগুলি ছিল, এবং সে প্রায়ই তার স্তন দিয়ে তার চুল দিয়ে নগ্ন হয়ে পড়েছিল; তবে, তিনি উল্লেখ করেছেন যে ছবিটি ব্যক্তিগত ছিল এবং তিনি বলেছিলেন যে তারা ইন্টারনেটে সেসব খুঁজে পেয়েছে।[৬]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

দেউই পার্সিক দুইবার বিয়ে করেছেন। তার প্রথম বিবাহ হয়েছিল গায়ক সাইফুল জামিলের সাথে;[৭] ২৬ জুন ২০০৫ তারিখে তাদের বিয়ে হয় এবং ১৪ জানুয়ারি ২০০৮ তারিখে তাদের ছাড়াছাড়ি হয়।[১] তার দ্বিতীয় বিবাহ হয়েছে অভিনেতা অ্যালডিয়াস্যাহ তাহের-এর সাথে;[৭] ২০০৮ সালের ৪ জুলাই তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এবং ২০০৯ সালে তাদের বিচ্ছেদ ঘটে।[১]

মামলা[সম্পাদনা]

জুলিয়া পেরেজ-এর সাথে তার দৃঢ় সংঘাতের পর, ফেব্রুয়ারী ২০১৪ সালে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারা তিনি তিন মাসের কারাদণ্ডের আদেশপ্রাপ্ত হন।[৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

পাদটীকা
গ্রন্থপঞ্জি
  • "Depe denies illness due to hymenoplasty"The Jakarta Post। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৩ অক্টোবর ২০১১ 
  • "Dewi Persik feels like a virgin"The Jakarta Post। ৬ জুন ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  • "Dewi Persik starring in 'Virgin Ghost' film"The Jakarta Post। ৮ সেপ্টেম্বর ২০১১। ১৫ অক্টোবর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  • "Dewi Perssik" (Indonesian ভাষায়)। KapanLagi.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  • "Dewi Perssik apologizes for topless photo"The Jakarta Post। ৩০ নভেম্বর ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  • "Dewi Perssik 'proves' she's a virgin"The Jakarta Post। ৫ জুলাই ২০১১। ৮ অক্টোবর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  • "Dewi will give positive testimony on Jupe"The Jakarta Post। ১১ মে ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  • "Minister praises Dewi Persik"The Jakarta Post। ১৫ এপ্রিল ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  • Pawas, Zaky (৯ ডিসেম্বর ২০১০)। "Sexy Online Pictures Draw FPI's Ire to Dangdut Star Dewi Persik"The Jakarta Globe। ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  • Suwarni, Yuli Tri (১৬ এপ্রিল ২০০৮)। "Dangdut singer faces Bandung ban over 'sexy' act"The Jakarta Post। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]