দাঁতরাঙা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search

দেশি দাঁতরাঙা
Melastoma malabathricum
Dissotis rotundifolia at Aanakkulam.jpg
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Plantae
(শ্রেণীবিহীন): Angiosperms
(শ্রেণীবিহীন): Eudicots
(শ্রেণীবিহীন): Rosids
বর্গ: Myrtales
পরিবার: Melastomataceae
গণ: Melastoma
প্রজাতি: M. malabathricum
দ্বিপদী নাম
Melastoma malabathricum
L.
প্রতিশব্দ
  • Melastoma affine D.
  • Melastoma candidum D. Don
  • Melastoma cavaleriei H. Lév. & Vaniot
  • Melastoma esquirolii H. Lév.
  • Melastoma malabathricum var. normale (D. Don) R.C. Srivast.
  • Melastoma malabathricum subsp. normale (D. Don) K.Mey.
  • Melastoma normale D. Don
  • Melastoma polyanthum Blume [১]

দাঁতরাঙা (Indian Rhododendron - ?) এক ধরনের গুল্মজাতীয় গাছ; এর অন্যান্য আরো কিছু নাম রয়েছে: ফুটকি, লুটকি, ফুটুল, বনতেজপাতা ইত্যাদি। এটি বাংলাদেশে আগাছা / অপ্রয়োজনীয় গাছ হিসেবেই বেশি পরিচিত; যদিও বর্তমানে এর কিছু ঔষধি গুণাগুণ প্রকাশিত হয়েছে। এটি প্রধাণত পাহাড়ি বা উচুঁ এলাকায় বেশি জন্মে থাকে; বাংলাদেশ ছাড়াও এটি ভারতের বিভিন্ন অঞ্চল এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়ার দেখা যায়।

নামকরণ[সম্পাদনা]

এই গাছে ছোট আকৃতির ফল জন্মে যা খেলে দাঁতের বর্ণ লাল হয়ে যায়, এবং এই কারণেই এই গাছটির নাম 'দাঁতরাঙা' হয়েছে। আবার, এর পাতা দেখতে তেজপাতার ন্যায় হওয়ায় একে অনেকে 'বনতেজপাতা' বলে থাকে।

বর্ণনা[সম্পাদনা]

এই গাছটির উচ্চতা ১ মিটার পর্যন্ত হয়ে থাকলেও কখনো কখনো ৩ মিটার উচ্চতার গাছও চোখে পড়ে। তেজপাতার ন্যায় দেখতে এর পাতার দৈর্ঘ্য ৪ হতে ১১ সেন্টিমিটার; প্রস্থে ১.৩ সেন্টিমিটার যাতে ৫ হতে ৭ টি শিরা থাকে। এদের ফুল উজ্জ্বল বেগুনি বর্ণের এবং ফল সবুজ।

ব্যবহার[সম্পাদনা]

লোক চিকিৎসায় এটি ব্যবহার হতে দেখা যায়। এটি কৌষ্ঠ্যকাঠিন্য রোগে ব্যবহৃত হয়। দাঁতরাঙার পাতার নির্যাস মানবদেহের ক্যান্সার, হৃদরোগ রোধে সহায়ক। তাছাড়া এর পাতার রস আমাশয়, পেটব্যথা, বাত ও বাতজ্বর দূর করতে পারে। আলসার, উচ্চ রক্তচাপ, দাঁত ব্যথা, চর্মরোগ ও ডায়রিয়া চিকিৎসায় দাঁতরাঙা ব্যবহৃত হতে দেখা যায়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]