তুল নদী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তুল নদী
Tuul River Mongolia.JPG
গোর্খি-তেরেলজ জাতীয় উদ্যানের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত তুল নদী
স্থানীয় নামТуул гол
অন্য নামতোলা
দেশমঙ্গোলিয়া
আইমেগসখেনটি, বুলগান, সেলেঙ্গি
শহরউলানবাটর
অববাহিকার বৈশিষ্ট্য
মূল উৎসখান খেন্টি কঠোর সুরক্ষিত অঞ্চল
৪৮°৩০′৪০″ উত্তর ১০৮°১৩′২০″ পূর্ব / ৪৮.৫১১১১° উত্তর ১০৮.২২২২২° পূর্ব / 48.51111; 108.22222
মোহনাঅরখন নদী
অরখন্টুল জেলা, সেলেঙ্গি
৪৮°৫৬′৫০″ উত্তর ১০৪°৪৮′০″ পূর্ব / ৪৮.৯৪৭২২° উত্তর ১০৪.৮০০০০° পূর্ব / 48.94722; 104.80000স্থানাঙ্ক: ৪৮°৫৬′৫০″ উত্তর ১০৪°৪৮′০″ পূর্ব / ৪৮.৯৪৭২২° উত্তর ১০৪.৮০০০০° পূর্ব / 48.94722; 104.80000
অববাহিকার আকার৪৯,৮৪০ কিমি (১৯,২৪০ মা)
শাখা-নদী
প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য
দৈর্ঘ্য৭০৪ কিমি (৪৩৭ মা)
পাখির চোখে তুল নদী

তুল নদী (মঙ্গোলীয়: Туул гол) মধ্য এবং উত্তর মঙ্গোলিয়ার একটি নদী। মঙ্গোলদের কাছে পবিত্র, তুল নদীকে সাধারণত মঙ্গোলিয়ায় খাতান (রানী)তুল বলা হয়। এটি ৭০৪ কিলোমিটার অথবা ৪৩৭ মাইল লম্বা এবং ৪৯,৮৪০ বর্গকিলোমিটার অথবা ১৯,২৪০ বর্গমাইল এলাকা জুড়ে বিস্তৃত। ৬৩৬ খ্রিস্টাব্দে একটি চায়নিজ ঐতিহাসিক গ্রন্থ বুক অব সুই -এ নদীটিকে "দুলুও নদী" বলা হয়েছে। দ্য সিক্রেট হিস্ট্রি অব মঙ্গোল (১২৪০ খ্রিস্টাব্দ)-এ ঘন ঘন "তুল নদীর কৃষ্ণ বন" উল্লেখ করা হয়েছে যেখানে ওয়াং খানের প্রাসাদ ছিল। মিং রাজবংশ (১৩৬৮-১৬৪৪) চীন থেকে মঙ্গোলদের বিতারিত করে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। বেইজিং দখল করার পরে, মিং এর প্রতিষ্ঠাতা হংউ সম্রাট ১৩৭২ সালে তুল নদীর তীরে মঙ্গোলদের পরাজিত করে তাদের আবার ওরখন নদীর দিকে ধাবিত করেছিলেন। একইভাবে হংউ সম্রাট ১৪১৪ সালে আবার তুল নদীর তীরে ঐরাতদের পরাজিত করেছিল।[১]

নদীটির উৎপত্তি হয়েছে টোভ আইমাগের আর্ডেন জেলার খেনটি পর্বতমালার খান-খেনটি-নুরুর প্রাকৃতিক জলাধার থেকে।[২] উৎপত্তির পর থেকে এটি দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে প্রবাহিত হতে থাকে যতক্ষন না একটি উলানবাটর পৌঁছে। নদীর পানি মঙ্গোলিয়ার রাজধানী শহরের দক্ষিণ অংশের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয় এবং বড় লুপ দিয়ে পশ্চিম দিকে অবিরত থাকে। এটি যখন বুলগান আইমাগের সীমানার সাথে মিলিত হয় তখন সীমানাটি দিয়ে চলতে চলতে উত্তর দিকে ফিরে যায়। সেলেঙ্গি আইমাগে প্রবেশের পর এটি অরখন্টুল জেলায় অরখন নদীতে গিয়ে পড়ে।[৩]

অরখন নদী আবার সেলেঙ্গি নদীতে গিয়ে পড়ে, যা রাশিয়া এবং বৈকাল হ্রদে প্রবাহিত হয়েছে। তুল নদী খুস্তাইন নুরু জাতীয় উদ্যানের পাশ দিয়েও বয়ে গেছে। এটি সাধারণত নভেম্বরের মাঝামাঝি থেকে এপ্রিলের মাঝামাঝি পর্যন্ত হিমায়িত হয়ে যায়। উইলো অরণ্য তুল নদীর তীরে বেড়ে উঠে এবং নদীটিতে বিপন্ন ২৭ প্রজাতির মাছ (স্টার্জিওন) বাস করে।[৪] বর্তমানে নদীটি দূষণে ভুগছে, এর কিছু উলানবাটরের কেন্দ্রীয় পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা নদী অভিমুখী হওয়ার কারণে, পাশাপাশি জামার অঞ্চলে সোনার খনির ফলে ভারী খনিজ ও পলি দূষণজনিত কারণে। তদুপরি, নদীর ধারে জনবসতি বাড়ার ফলে পানির গুণগত মানের অবনতি হয়েছে।

বিবরণ[সম্পাদনা]

ফরাসী মিশনারি জাঁ-ফ্রাঙ্কোয়েস গার্বিলন, যিনি বহুবার মঙ্গোলিয়ার মধ্য দিয়ে ভ্রমণ করেছিলেন, ৩ আগস্ট, ১৬৯৮ তারিখে তুল নদীর বর্ণনা দিয়েছিলেন:

এই নদী (তুল নদী)-র উৎস কেন্টল পর্বতমালায়, এটি কারলন নদী থেকে ১২০ লি দূরে। প্রথমে এটি দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে প্রবাহিত হয়েছে। তারপরে এটি একটি পাহাড় পেরিয়ে পশ্চিমের দিকে সরাসরি মোড় নিয়ে যায়, যার পাদদেশে আমরা শিবির স্থাপন করেছিলাম এবং এটি সেই জায়গার ঠিক পশ্চিমে অবস্থিত যেখানে ছোট তেরেলকি নদী তুলের সাথে মিশে। এটি কারলনের চেয়ে অনেক বড়। এর পানি অসাধারণ স্বচ্ছ এবং পাথুরে বিছানার উপর দিয়ে নদী প্রবাহিত। এর তীরগুলি সুন্দর বনে ঢাকা রয়েছে। নদীটি বহু শাখায় বিভক্ত হয়ে পৃথক ও পুনরায় একত্রিত হওয়ার কারণে বেশ কয়েকটি ছোট ছোট দ্বীপ তৈরি করে, যেগুলো বিভিন্ন গাছে ভরা গাছগুলি খুব ঘন এবং গুল্মযুক্ত, যা আমাদের প্রচণ্ড উত্তাপে একটি সতেজতা প্রদান করেছিল। এই নদীর স্রোত খুব দ্রুতগতির। গাছগুলির ওপারে, একপাশে এবং অন্যদিকে, একটি প্রচুর উর্বর বৃক্ষহীন তৃণভূমি দেখতে পাবে। এক কথায়, তারাতারি অঞ্চলে আমাদের সমস্ত ভ্রমণের মধ্যে এটি সর্বাধিক আনন্দদায়ক রাজ্য ছিল যা আমার এখনও মনে আছে।[৫]

মসিয়ে দে বোরবুলন (ফ্রান্সের মন্ত্রী) ১৮৬০ সালেও নদীটি পরিদর্শন করেছিলেন:

মসিয়ে দে বোরবুলন, মঙ্গোলের রাজধানী দিয়ে কোনও সহচর ছাড়াই যাত্রা করতে চেয়েছিলেন, রাশিয়ার এলাকায় প্রথম দিকে তুলের তীরে যাত্রা শুরু করেছিলেন… মসিয়ে দে বোরবুলন তুলের তীরে এসে একটি বার্চ গাছের নিচে ঢিবিতে বসেছিলেন: এই চমত্কার প্রাকৃতিক দৃশ্যের আগে অন্যতম এক সৌন্দর্য, যা মানুষকে ভাবায়, এই সুন্দর নদীর শুদ্ধ পানি মুগ্ধ করে তার পায়ে কলকল বাজে। শুকনো ও একঘেয়ে মরুভূমির পরে, উর্বর সমৃদ্ধ এবং মনোরম প্রকৃতিতে এসে আনন্দের অতিসজ্জে পৌঁছে গিয়েছিলাম। তিনি সেখানে নিমগ্ন ছিলেন, বিভ্রান্ত করা এক স্বপ্নে তার পিছনে একজনকে বলতে শুনেছিলেন: এটি উচ্চ শ্রেণীর মঙ্গোল, তাইজি বা ভদ্রলোক, যারা তাকে বিভিন্ন লক্ষণ দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করছিলেন যে তিনি যদি নদী পার হতে চান তবে তারা স্বানন্দে তাদের ঘোড়াগুলিতে নিয়ে যাবে।[৬]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  • মঙ্গোলিয়ায় তুল নদীর তথ্য সহ পানির ব্যবহার সম্পর্কিত ইউনেস্কোর কাগজ
  • তুল নদীর প্রবাহের বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণ (পিডিএফ ফর্ম্যাট)
  • তুল নদীর উপর সোনার খনির প্রভাব সম্পর্কে রিপোর্ট করুন
  • তুল নদীর অববাহিকায় সোনার জমার বিষয়ে বিনিয়োগকারীদের প্রতিবেদন
  • তুল নদীর ফটো অ্যালবাম
  • হুস্টাই জাতীয় উদ্যান এবং তুল নদী উপত্যকার পরিবেশগত সমস্যা সম্পর্কিত প্রতিবেদন

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Chase, Kenneth Warren (২০০৩)। Firearms: A Global History to 1700। Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 41–47। 
  2. "Russian army map "100k--m49-121""। Maps for the world। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০১-০৬ 
  3. "Russian army map "100k--m48-114""। Maps for the world। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০১-০৬ 
  4. "Mining and Mineral Development Management Policy in the Selenga River Watershed in proceedings of: Science for Watershed Conservation: Multidisciplinary Approaches for Natural Resource Management Conference" (PDF)। United States Geological Survey (USGS), Institute of General and Experimental Biology, Siberian Division -Russian Academy of Sciences, and Mongolian Academy of Sciences। পৃষ্ঠা 11। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০১-০৬ 
  5. Histoire generale des voyages, 1753, p.59
  6. Voyage en Chine et en Mongolie de M. de Bourboulon et de Madame de Bourboulon 1860-1861, Paris, 1866, p.362