ডিসোসিয়েটিভ আইডেন্টিটি ডিসঅর্ডার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডিসোসিয়েটিভ আইডেন্টিটি ডিসঅর্ডার
অন্যান্য নামমাল্টিপল পার্সোনালিটি ডিসঅর্ডার
Dissociative identity disorder.jpg
শিল্পীর দৃষ্টিতে ডিসোসিয়েটেড পার্সোনালিটি দশায় অবস্থিত মানুষ
বিশেষত্বসাইকিয়াট্রি
লক্ষণকমপক্ষে দুটি ভিন্ন এবং উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব, নির্দিষ্ট ঘটনাবলী বিস্মরণ[১]
জটিলতাSuicide, self harm[১]
স্থিতিকালদীর্ঘকালীন
কারণশৈশবকালীন ট্রমা, থেরাপি
রোগনির্ণয়ের পদ্ধতিক্লিনিকাল বিশ্লেষণভিত্তিক
পার্থক্যজনিত নির্ণয়মেজর ডিপ্রেসিভ ডিসঅর্ডার, বাইপোলার ডিসঅর্ডার, পিটিএসডি, সাইকোটিক ডিসঅর্ডার, পার্সোনালিটি ডিসঅর্ডার, কনভার্সন ডিজঅর্ডার[১]
চিকিত্সাসাপোর্টিভ কেয়ার, কাউন্সেলিং
পুনরাবৃত্তির হার~২% ব্যক্তি

মাল্টিপল পার্সোনালিটি ডিসঅর্ডার (ইংরেজি: Multiple Personality Disorder) বা বহুব্যক্তিত্ব মনোবিজ্ঞানের দৃষ্টিতে একটি মানসিক রোগ যা রোগীর ব্যক্তিত্বে দ্বৈততা আনয়ন করে থাকে। ফলে একে দ্বৈতসত্তাজনিত সমস্যাও বলা হয়ে থাকে। রোগী নিজের স্মৃতি, ব্যক্তিত্ব ও বৈশিষ্ট্য সম্পূর্ণ হারিয়ে ফেলে সাময়িককালের জন্য পরিচিত অথবা সম্পূর্ণ অলীক কোন স্মৃতি, ব্যক্তিত্ব বা বৈশিষ্ট্য ধারণ করে থাকে। একাধিক ব্যক্তিত্বে বেলায় Dissociative Identity Disorder বলা হয়।

মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, ডিল্যুশনের চরম মাত্রায় কিছু রোগীদের সাথে এমন ঘটনা ঘটে থাকে। রোগী নিজেকে অন্য কেউ ভাবতে শুরু করে। কথা বার্তা, চালচলন, আচার আচরণ ইত্যাদি সবকিছুতেই ভিন্নতা আসে।

সনাতন বিশ্বাসীদের মতে জ্বিন বা ভূত দ্বারা প্রভাবিত হওয়ার ফলেই এমনটা হয়ে থাকে। প্যারাসাইকোলজিস্টদের মতানুযায়ী Anti Human কর্তৃক প্রভাবিত হয়ে এমনটা হতে পারে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. American Psychiatric Association (২০১৩), Diagnostic and Statistical Manual of Mental Disorders (5th ed.), Arlington: American Psychiatric Publishing, পৃষ্ঠা 291–298, আইএসবিএন 0890425558