ট্যাঙ্ক ম্যান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

স্থানাঙ্ক: ৩৯°৫৪′২৩.৫″ উত্তর ১১৬°২৩′৫৯.৮″ পূর্ব / ৩৯.৯০৬৫২৮° উত্তর ১১৬.৩৯৯৯৪৪° পূর্ব / 39.906528; 116.399944

"ট্যাঙ্ক ম্যান" নামে পরিচিত অজানা ব্যক্তিটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে ট্যাঙ্কের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন এবং ছবিটি বিংশ শতকের আইকনিক চিত্র হিসেবে পরিচিতি পায়।[১][২][৩] এই আলোকচিত্রটি (একই ধরনের চারটি সংস্করনের একটি) ধারণ করেছিলেন এসোসিয়েটেড প্রেসের আলোকচিত্রী জেফ ওয়াইডেনার।

ট্যাঙ্ক ম্যান বা অজানা প্রতিবাদী হল অজানা একজন মানুষের ডাকনাম যিনি ১৯৮৯ সালের ৫ই জুন সকালে তিয়ানানমেন স্কয়ারে চীন সামরিক বাহিনী কর্তৃক বলপূর্বক বিক্ষোভ দমনকালে সাড়িবদ্ধ চলন্ত ট্যাঙ্কের সামনে দাঁড়িয়েছিলেন। অজানা এই ব্যক্তিটি ঘটনার গৃহীত আলোকচিত্র ও ভিডিওর কল্যাণে ব্যাপক আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জন করেন। কেউ কেউ ব্যক্তিটিকে ওয়েং উইলিন (王維林) বলে মনে করেন কিন্তু তার নামটি এখন পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি এবং তার সম্পর্কে প্রায় কিছুই জানা যায় না। সেইদিনের ঘটনার পর তার ভাগ্যে কি ঘটেছিল তাও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

ঘটনা[সম্পাদনা]

এই ঘটনাটি ঘটেছিল বেইজিং-এর নিষিদ্ধ নগরের শেষে পূর্ব-পশ্চিম থেকে দক্ষিণের দিকে ও তিয়ানানমেন স্কয়ারের চ্যাংয়ান এভিনিউতে ৫ই জুন ১৯৮৯ সালে। এর ঠিক আগের দিন চীনা সরকার তিয়ানানমেন স্কয়ারে অবস্থান নেওয়া আন্দোলনকারীদের উপর গুলিবর্ষণ করেছিল। অজানা ব্যক্তিটি ঔদিন পূর্ব-পশ্চিম দিক থেকে মূল এভিনিউর দিকে আসতে থাকা ২৫টি টাইপ-৫৯ ট্যাঙ্কের সামনে হঠাৎ করেই দাঁড়িয়ে পরেন। তিনি তার দুই হাতে দুটি বাজার করার থলে বহন করছিলেন।[৪] তিনি সাদা শার্ট ও কালো প্যান্ট পরিধান করেছিলেন। যখন সাড়ির প্রথম ট্যাঙ্কটি তার সামনে এসে থেমে যায় তখন তিনি তার হাতের থলে ট্যাঙ্কগুলোর উদ্দেশ্যে নাড়ছিলেন। এর ফলে সারির প্রথম ট্যাঙ্কটি তাকে পাশ কাটিয়ে চলে যাওয়ার চেষ্ঠা করে কিন্তু অজানা ব্যক্তিটি বারবার ট্যাঙ্কের পথরুদ্ধ করে দাঁড়ান এবং নীরবভাবে প্রতিবাদ করতে থাকেন।[৫] কয়েকবার ব্যর্থ চেষ্ঠার পর প্রথম ট্যাঙ্কটি তার ইঞ্জিন বন্ধ করে দেয় এবং পিছনের ট্যাঙ্কগুলোও সাঁজোয়াভাবে দাড়িয়ে পরে।

সফলভাবে ট্যাঙ্কের সারিকে দাঁড় করানোর পর তিনি প্রথম ট্যাঙ্কের উপর উঠে পরেন ও ভিডিও ফোটেজে দেখা যায় তিনি চালকের হ্যাচটি খোলার চেষ্ঠা করছেন। আরো দেখা যায় তিনি গানারের সাথে যোগাযোগ করতে সক্ষম হন এবং তাদের কথা শেষ হলে তিনি ট্যাঙ্ক থেকে নেমে যান। ট্যাঙ্ক পুনরায় তার ইঞ্জিন চালো করে ও এগোতে থাকে যদিও লোকটি তখনও সামনে দাড়িয়ে ছিলেন। এক/দুই মিটার সামনে আসার পর ট্যাঙ্কের চালক পুনরায় ট্যাঙ্কটি থামাতে বাধ্য হন।

ভিডিও ফুটেজে এরপর দেখা যায় নীল পোশাক পরিহিত দুজন লোক তাকে ধরে নিয়ে কাছাকাছি ভিড়ের মধ্যে অদৃশ্য হয়ে যায়; এরপর ট্যাঙ্ক তাদের গন্তব্যে পুনরায় চলতে শুরু করে।[৫] প্রত্যক্ষদর্শীরা অবশ্য একে অপরের সাথে একমত নন কারা তাকে নিয়ে গিয়েছিল। নিউজউইকির চার্লি পোল বিশ্বাস করেন তাকে পাবলিক সিকিউরিটি ব্যুরোর লোকেরা ধরে নিয়ে যায়।[৬] তবে দ্য গ্লোব ও মেইলের জেন ওয়ং বিশ্বাস করেন তাকে যারা ধরে নিয়ে গিয়েছিল তার নিতান্তই সাধারণ লোক ছিল এবং ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তারা এটা করেছিল। ১৯৯৮ সালের এপ্রিলে টাইম সাময়িকী তাদের টাইম ১০০:শতাব্দীর গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের মধ্যে অজানা বিদ্রোহী শিরোনামে ট্যাঙ্ক ম্যানকে অন্তর্ভুক্ত করেছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

পদটীকা[সম্পাদনা]

  1. http://lens.blogs.nytimes.com/2009/06/03/behind-the-scenes-tank-man-of-tiananmen/
  2. Floor Speech on Tiananmen Square Resolution. Nancy Pelosi, Speaker of the U.S. House of Representatives. June 3, 2009.
  3. Corless, Kieron (মে ২৪, ২০০৬)। "Time In – Plugged In – Tank Man"। Time Out 
  4. Langely, Andrew (২০০৯)। Tiananmen Square: Massacre Crushes China's Democracy Movement। Compass Point Books। পৃ: 45। আইএসবিএন 978-0-7565-4101-9 
  5. The Unknown Rebel Time profile. Retrieved January 10, 2006.
  6. Picture Power:Tiananmen Standoff BBC News. Last updated October 7, 2005.

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]