টিলিস পাঙ্কচার্ড রোম্যান্স (১৯১৪-এর চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
টিলিস পাঙ্কচার্ড রোম্যান্স
টিলিস পাঙ্কচার্ড রোম্যান্স (১৯১৪-এর চলচ্চিত্র).jpg
পুনঃমুক্তির পোস্টার
পরিচালকম্যাক সিনেট
প্রযোজকম্যাক সিনেট
রচয়িতা
  • হাম্ফটন ডেল রুথ
  • ক্রেইগ হাচিনসন
  • ম্যাক সিনেট
উৎসএ. বাডউইন স্লোয়ান ও এডগার স্মিথ কর্তৃক 
টিলিস নাইটমেয়ার
শ্রেষ্ঠাংশে
চিত্রগ্রাহকহ্যান্স এফ কোয়েনকাম্প (অনুল্লেখ্য)
ফ্রাঙ্ক ডি উইলিয়ামস (অনুল্লেখ্য)
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকঅ্যালকো ফিল্ম কর্পোরেশন[১]
মুক্তি২১ ডিসেম্বর ১৯১৪ (1914-12-21Tমার্কিন যুক্তরাষ্ট্র)
দৈর্ঘ্য৭৪ মিনিট
৮২ মিনিট (২০০৩-এ পুনরুদ্ধার)
দেশমার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
ভাষানির্বাক
ইংরেজি (আন্তঃভাষ্য)

টিলিস পাঙ্কচার্ড রোম্যান্স (ইংরেজি: Tillie's Punctured Romance) হল ম্যাক সিনেট পরিচালিত ১৯১৪ সালের মার্কিন হাস্যরসাত্মক নির্বাক চলচ্চিত্রএ. বাডউইন স্লোয়ান ও এডগার স্মিথ রচিত টিলিস নাইটমেয়ার মঞ্চনাটক অবলম্বনে এই চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য রচনা করেছেন হাম্ফটন ডেল রুথ, ক্রেইগ হাচিনসন ও ম্যাক সিনেট। এতে শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেছেন মারি ড্রেসলার, মেবল নরম্যান্ডচার্লি চ্যাপলিন। এটি কিস্টোন ফিল্ম কোম্পানি প্রযোজিত প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র।

টিলিস পাঙ্কচার্ড রোম্যান্স চলচ্চিত্রের ইতিহাসে বিশেষ গুরুত্ব বহন করে কারণ এটি প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র। এছাড়া এটি কিস্টোনের হয়ে চ্যাপলিনের করা একমাত্র পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র।এই চলচ্চিত্রে চ্যাপলিন তার সেই সময়ে সদ্য বিকাশ লাভ করার দ্য ট্রাম্প চরিত্রের বাইরে অন্য কোন চরিত্রে অভিনয় করেন।

কাহিনী সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

Tillie's Punctured Romance

কুশীলব[সম্পাদনা]

Re-release poster with different billing and picture featuring Chaplin's Tramp, who does not appear in the film
Re-release poster with different billing
অনুল্লেখ্য
  • ড্যান আলবার্ট — পার্টিতে অতিথি / পুলিশ
  • ফিলিস অ্যালেন — জেলে / রেস্তোরায় অভিভাবক
  • বিলি বেনেট — পার্টিতে অতিথি
  • জো বোরদোয়া — পুলিশ
  • গ্লেন ক্যাভেন্ডার — রেস্তোরার পিয়ানো বাদক
  • চার্লি চেজ — প্রেক্ষাগৃহে গোয়েন্দা
  • ডিক্সি চিন — অতিথি
  • নিক কোগ্লি — কিস্টোন পুলিশ সার্জেন্ট
  • চেস্টার কঙ্কলিন — জনাব হুজিন / গায়ক খাবার পরিবেশক
  • অ্যালিস ডেভেনপোর্ট — অতিথি
  • হাম্পটন ডেল রুথ — ব্যাংকসের লম্বা সচিব, যে টিলিকে খুঁজছে
  • ফ্রাঙ্কি ডোলান — চলচ্চিত্র দর্শক
  • মিন্টা ডার্ফি — ক্রুকের বান্ধবী
  • টেড এডওয়ার্ডস — খাবার পরিবেশক
  • এডউইন ফ্রাজি — চলচ্চিত্র দর্শক
  • বিলি গিলবার্ট — পুলিশ
  • গর্ডন গ্রিফিথ — সংবাদপত্র বিলিকারী
  • উইলিয়াম হবার — ভৃত্য/পুলিশ
  • ফ্রেড ফিশব্যাক — ভৃত্য
  • অ্যালিস হাওয়েল — অতিথি
  • এডগার কেনেডি — রেস্তোরাঁ মালিক
  • গ্রোভার লিজন — কিস্টোন পুলিশ
  • ওয়ালেস ম্যাকডোনাল্ড — কিস্টোন পুলিশ
  • হ্যাঙ্ক মান — কিস্টোন পুলিশ
  • হ্যারি ম্যাককয় — দ্বিতীয় পিয়ানো বাদক
  • রুব মিলার — টিলির সাথে সাক্ষাৎকারী
  • চার্লস মুরে — গোয়েন্দা
  • ইভা নেলসন — দ্বিতীয় রেস্তোরাঁয় বিরক্ত অতিথি
  • এডওয়ার্ড নোলান — রেস্তোরাঁয় নৃত্যশিল্পী
  • ফ্রাঙ্ক ওপারম্যান — রেভ ডি সিম্পসন
  • হিজ স্যাক্সন — ব্যাংকসের খাট সচিত, যে টিলিকে খুঁজছে
  • ফ্রিট্‌জ শেড — রাতের খাবার পরিবেশক
  • অ্যাল সেন্ট জন — কিস্টোন পুলিশ
  • স্লিম সামারভিল — কিস্টোন পুলিশ
  • জোসেফ সোইকার্ড — চলচ্চিত্র দর্শক
  • মরগ্যান ওয়ালেস — চলচ্চিত্রে চোর

অনুবর্তী পর্ব[সম্পাদনা]

ড্রেসলার পরবর্তীতে টিলি বিষয়ক তিনটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। সেগুলো হল টিলিস টম্যাটো সারপ্রাইজ (১৯১৫), টিলি ওয়েক্‌স আপ (১৯১৭), এবং দ্য স্ক্রাব লেডি (১৯১৭) বা টিলি দ্য স্ক্রাব লেডি

১৯২৮-এর চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

টিলিস পাঙ্কচার্ড রোম্যান্স নামক অপর একটি হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র ১৯২৮ সালে মুক্তি পায়। এতে ডব্লিউ সি ফিল্ডস সার্কাসের রিংমাস্টার চরিত্রে অভিনয় করেন। এই চলচ্চিত্রটিকে ১৯১৪ সালে করা চলচ্চিত্রের পুনর্নির্মাণ বলা হলেও এতে শুধু নাম ছাড়া আর কোন ধরনের মিল পাওয়া যায় না। চেস্টার কঙ্কলিন ও ম্যাক সোয়াইন দুটি চলচ্চিত্রেই অভিনয় করেন।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

সূত্র
  1. "Tillie's Punctured Romance"The Progressive Silent Film List। Silent Era। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  2. The Chaplin Project film restoration by the British Film Institute, National Film and Television Archive, 2004
গ্রন্থপঞ্জী
  • "33. Tillie's Punctured Romance"BFI। সেপ্টেম্বর ২০০৬। Charlie Chaplin। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৩-১৭ 
  • Lee, Betty (১৯৯৭)। Marie Dressler: the unlikeliest star। University of Kentucky Press। আইএসবিএন 0-8131-2036-5 
  • "Empire"Reading Eagle। মার্চ ২১, ১৯১৫। পৃষ্ঠা 12। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৩-১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]