ঝিনুকপলাশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ঝিনুকপলাশ
Indian sunbeam
Close wing position of Female Curetis thetis Drury, 1773 – Indian Sunbeam .jpg
ডানা বন্ধ অবস্থায়
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: Arthropoda
শ্রেণী: Insecta
বর্গ: Lepidoptera
পরিবার: Lycaenidae
গণ: Curetis
প্রজাতি: C. thetis
দ্বিপদী নাম
Curetis thetis
(Drury, 1773)[১]
প্রতিশব্দ

Lycaena thetis

ঝিনুকপলাশ (বৈজ্ঞানিক নাম: Curetis thetis(Drury))[২][৩] এক প্রজাতির ছোট থেকে একটু বড় আকারের প্রজাপতি। এরা ‘লাইসিনিডি’ গোত্রের অন্তর্ভুক্ত এবং সমগ্র এশিয়া মহাদেশ জুড়েই এর বিস্তার। ক্ষিপ্র গতিতে এলোমেলো ভাবে এদের উড়তে দেখা যায়। গ্রামাঞ্চলে বিশেষভাবে এদের দেখা পাওয়া যায়।

আকার[সম্পাদনা]

ঝিনুকপলাশ প্রজাপতিদের প্রসারিত অবস্থায় ডানার আকার ৪০-৪৮ মিলিমিটার হয়[১]

বিস্তার[সম্পাদনা]

এই প্রজাপতি মূলত হিমালয়ের কিছু অঞ্চলে, দক্ষিণ ভারতে,আসামের কিছু অংশে, সৌরাষ্ট্র, বাংলা, মায়ানমার সম্মুখের সিলেট এবং নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে পাওয়া যায়।[৪] এছাড়া শ্রীলঙ্কা, জাভা, ফিলিপাইন, উত্তর সুলাওয়েসি এবং সেলাজার অঞ্চলেও এদের দেখা পাওয়া যায়। কিন্তু মরুভূমি বা অত্যল্প বৃষ্টিপাত হয় সেই সমস্ত এলাকায় এদের দেখা পাওয়া যায় না। [৫] সুন্দরবনের গ্রামাঞ্চল এবং জয়ন্তী নদীর চরে এদের দেখা পাওয়া যায়।

বর্ণনা[সম্পাদনা]

সাদা-কালো রঙের ছোট থেকে একটু বড় আকারের প্রজাপতিদের ডানার বাইরের দিকের অংশ মূলত দুধ সাদা হয়। ভেতরের ডানা পুরুষদের ক্ষেত্রে গাড় কমলা সঙ্গে কালো সীমানা পটি হয়। স্ত্রীদের ক্ষেত্রে ভিতরের ডানার রং কালো এবং ওপরের ডানার ভিতরের দিকের মাঝে সাদা ছোপ দেখা যায়। চোখের রঙ কালো এবং অ্যান্টেনা হয় কালো যার অগ্রভাগ কমলা রঙের হয়ে থাকে।

আচরণ[সম্পাদনা]

এদের ওড়ার ছন্দ বেশ দ্রুত এবং এলোমেলো। এরা প্রায়ই পাতার তলায় বসে সূর্যের তাপ আহরণ করে। আবার মাঝে মাঝে গাছের ওপরের দিকের আলোকিত পাতায় ডানা আধখোলা রেখে সূর্যের তাপ আহরণ করে। এদের ভিজে মাটি থেকে রস আহরণ করতে দেখা গেলেও ফুলের মধু খেতে সাধারণত দেখা যায় না।

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বসু রায়, অর্জন; বৈদ্য, সারিকা; রায়, লিপিকা। সুন্দরবনের কিছু পরিচিত প্রজাপতি (মার্চ ২০১৪ সংস্করণ)। সুন্দরবন জীবপরিমণ্ডল। পৃষ্ঠা ২৮। 
  2. "Card for Curetis thetis in LepIndex. Accessed 31 December 2006."। ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৭ 
  3. Markku Savela's website on Lepidoptera Curetis at Markku Savela's website on Lepidoptera
  4. Bingham, C. T. (১৯০৭)। The Fauna of British India, Including Ceylon and Burma. Butterflies. Volume 2 
  5. Wynter-Blyth, Mark Alexander (১৯৫৭)। Butterflies of the Indian Region। Bombay, India: Bombay Natural History Society। পৃষ্ঠা 498। আইএসবিএন 978-8170192329 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]