বিষয়বস্তুতে চলুন

জোসেফাইন ইংলিশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

জোসেফাইন ইংলিশ (১৯২০ - ২০১১) ছিলেন একজন মার্কিন স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ যিনি নিউ ইয়র্কে একটি ব্যক্তিগত অনুশীলনের অনুমতি পাওয়া প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী ছিলেন।[১] তিনি শিল্পকলার প্রতি তার জনহিতৈষী ছাড়াও আবাসন এবং স্বাস্থ্যসেবাতে তার কাজের জন্যও পরিচিত ছিলেন। অ্যাডেলফি মেডিকেল সেন্টারের আর্থিক সমস্যার কারণে ১৯৯৫ সালে তার অনুশীলন বিপন্ন হয়েছিল।[২] তার অনেক প্রতিষ্ঠানই নিষ্ক্রিয়-সমাপ্তি ঝুঁকিতে পড়েছে, এবং মেরামতের তহবিলের অভাবে রয়েছে।[৩] [৪]

জীবনী[সম্পাদনা]

ইংলিশের জন্ম ১৭ ডিসেম্বর, ১৯২০-এ অন্টারিও, ভার্জিনিয়ার জেনি ইংলিশ এবং হুইটি সিনিয়রের কাছে। তিনি ১৯৩৯ সালে নিউ জার্সির এঙ্গেলউডে চলে আসেন। তার পরিবার ছিল এঙ্গেলউডের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ পরিবারগুলির মধ্যে একটি। তিনি ১৯৪৯ সাল নাগাদ তার স্নাতক ডিগ্রির জন্য হান্টার কলেজে যোগ দেন এবং নিউ ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ে মনোবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর অর্জন করেন। তিনি প্রাথমিকভাবে একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ হতে চেয়েছিলেন, কিন্তু মেহেরি মেডিকেল কলেজে তার আগ্রহ আবিষ্কার করার পরে তিনি স্ত্রীরোগবিদ্যা বেছে নেন যেখানে তিনি স্ত্রীরোগবিদ্যায় তার মেডিকেল ডিগ্রি অর্জন করেন।[২] [৫]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

ইংলিশ ১৮ ডিসেম্বর, ২০১১ সালে ডাঃ সুসান স্মিথ ম্যাককিনি নার্সিং অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারে ৯১ বছর বয়সে মারা যান, যেখানে তিনি অস্ত্রোপচার থেকে সুস্থ হয়ে উঠছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Suzanne Spellen (ডিসেম্বর ২০, ২০১১)। Brownstoner Magazine https://www.brownstoner.com/architecture/building-of-the-day-40-greene-avenue/। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ২৩, ২০২১  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  2. Boyd, Herb (২৮ ডিসেম্বর ২০১১)। "Dr. Josephine English, medical trailblazer, dies at 91"New York Amsterdam News। Amsterdam News। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুলাই ২০১৭ 
  3. "Dr. Josephine English"The HistoryMakers: The Nation's Largest African American Video Oral History Collection। The HistoryMakers। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৭, ২০১৭ 
  4. Cooper, Michael (অক্টোবর ১৫, ১৯৯৫)। "NEIGHBORHOOD REPORT: BEDFORD-STUYVESANT; After 14 Years' Service, Health Clinic Faces Auction Gavel"The New York Times। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৫, ২০১৭ 
  5. Louis (২৩ জুন ২০১০)। "Josephine English, one of first black, female OB/GYNs, not stopping at 89"Daily News। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুলাই ২০১৭