জুন ২০১৭ লন্ডন হামলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

স্থানাঙ্ক: ৫১°৩০′২৯″ উত্তর ০°০৫′১৬″ পশ্চিম / ৫১.৫০৮০৬° উত্তর ০.০৮৭৭৮° পশ্চিম / 51.50806; -0.08778

জুন ২০১৭ লন্ডন হামলা
যুক্তরাজ্যে সন্ত্রাসবাদ-এর অংশ
London Bridge Illuminated.jpg
রাতের লন্ডন ব্রিজ
জুন ২০১৭ লন্ডন হামলা লন্ডন ও ওয়েস্টমিনস্টার-এ অবস্থিত
লন্ডন ব্রিজ
লন্ডন ব্রিজ
বারা বাজার
বারা বাজার
জুন ২০১৭ লন্ডন হামলা (লন্ডন ও ওয়েস্টমিনস্টার)
জুন ২০১৭ লন্ডন হামলা বৃহত্তর লন্ডন-এ অবস্থিত
জুন ২০১৭ লন্ডন হামলা
বারা বাজার
বারা বাজার
জুন ২০১৭ লন্ডন হামলা (বৃহত্তর লন্ডন)
স্থানলন্ডন ব্রিজ
বারা বাজার
তারিখ৩ জুন ২০১৭ (2017-06-03)
২২:০৮ - ২৩:৪৬ (বিএসটি)
হামলার ধরনগাড়ী চাপিয়ে আক্রমণ, ছুরিকাঘাত
ব্যবহৃত অস্ত্রগাড়ি, ছুরি
নিহত১১ (+৩ আক্রমণকারী)
আহত৪৮

যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে শনিবার রাত ১০টার দিকে লন্ডন ব্রিজের কাছে সন্ত্রাসী হামলায় তিন হামলাকারীসহ নয়জন নিহত হয়েছেন; আহত হয়েছেন প্রায় অর্ধশত।[১][২][৩][৪] সন্ত্রাসী হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। আইএসের কথিত বার্তা সংস্থা আমাক নিউজ এজেন্সিতে বলা হয়, ‘আইএসের একটি ছোট যোদ্ধাদল গতকাল লন্ডনে হামলা চালিয়েছে।’[৫]

বর্ণনা[সম্পাদনা]

রাতে লন্ডন ব্রিজে পথচারীদের ওপর দ্রুত গতির একটি ভ্যান উঠিয়ে দেয় সন্দেহভাজন সন্ত্রাসীরা। প্রায় একই সময়ে পার্শ্ববর্তী বারা মার্কেট এলাকায় কয়েক সন্দেহভাজন সন্ত্রাসী ছুরি নিয়ে সাধারণ লোকজনের ওপর হামলা চালায়। ঘটনাস্থলে ছয়জন নিহত হন।[১][৪] হামলা শুরুর ৮ মিনিটের মাথায় বারা মার্কেট এলাকায় তিন হামলাকারী পুলিশের গুলিতে নিহত হয় বলে ব্রিটিশ পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী ইউনিটের প্রধান মার্ক রাউলি জানিয়েছেন।[৬]

হামলার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে সাত নারীসহ ১২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার ভোরে পূর্ব লন্ডনের বার্কিং এলাকার একটি বহুতল ভবনে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। ‘এলিজাবেথ ফ্রাই’ নামের ওই ভবনের নিচতলায় তিন হামলাকারীর অন্তত একজন বসবাস করতেন বলে পুলিশের ধারণা।

প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

হামলার তীব্র নিন্দা জানান প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। তিনি এটিকে ভয়ংকর হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। সরকারের পক্ষ থেকে জরুরি কমিটির বৈঠক ডাকা হয়।[৪]

লন্ডনে সন্ত্রাসী হামলার কিছু পরে এক টুইটার বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, 'লন্ডনকে এই বিপদ কাটিয়ে উঠার জন্য সম্ভাব্য সকল প্রকার সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আমরা আপনাদের পাশে আছি, ঈশ্বর সহায় হোন।'

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সমকাল"। ৭ জুন ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুন ২০১৭ 
  2. "BBC News Live"। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুন ২০১৭ 
  3. Phipps, Claire (৩ জুন ২০১৭)। "London attacks: six people killed; three terror suspects shot dead by police – latest updates"। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুন ২০১৭ – The Guardian-এর মাধ্যমে। 
  4. "প্রথম আলো"। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুন ২০১৭ 
  5. "লন্ডনে হামলার দায় স্বীকার আইএসের"। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০১৭ 
  6. "বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম"। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুন ২০১৭