জুন ২০১৭ পর্তুগাল দাবানল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

১৭ জুন ২০১৭ শনিবার পর্তুগালের কোয়িমব্রা থেকে ৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে পেদ্রোগাও গ্রান্দে জেলার বনে আগুন লাগার ফলে দাবানলের[১][২][৩] সৃষ্টি হয়। এই ঘটনায় ৫৭ জন নিহত এবং ৫৯ জন আহত হয়েছে। পর্তুগিজ সরকার রোববার থেকে তিনদিনের জাতীয় শোক দিবস ঘোষণা করেছে।

বর্ণনা[সম্পাদনা]

শনিবার পর্তুগালের কয়েকটি অঞ্চলের ওপর দিয়ে প্রচণ্ড তাপপ্রবাহ বয়ে যায়। সেসব অঞ্চলে তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে। ওই দিন বিকেলে পেদরোগো গ্রানজি পৌরসভায় দাবানলের সৃষ্টি হয় এবং দ্রুত তা ছড়িয়ে পড়ে। ওই দাবানলের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক শ অগ্নিনির্বাপণকর্মী ও ১৬০টি যানবাহন পাঠানো হয়।[১]

বনে আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি।[২][৩]

আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রায় ছয়শোর মতো দমকলকর্মী কাজ কররে। ছয়জন দমলকর্মীও গুরুতর আহত এবং দুজন কর্মী নিখোঁজ বলে জানায় পর্তুগালের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, নিহতদের মধ্যে ৩০ জন তাদের গাড়ির ভেতরে বদ্ধ অবস্থায় আগুনে পুড়ে মারা যান। তিনজনের মৃত্যু হয় ধোয়ায় দম বন্ধ হয়ে। এছাড়া গাড়ির বাইরে ১৭জনের মরদেহ পাওয়া যায়।[২]

আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য প্রতিবেশি স্পেন ব্যাপক সহায়তা করে। এছাড়া ইউরোপীয় ইউনিয়ন আন্তর্জাতিক অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা এবং ত্রাণ তৎপরতায় সমন্বয় সাধনের কাজ করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পর্তুগালে দাবানলে ৬২ জনের মৃত্যু"। সংগৃহীত ১৯ জুন ২০১৭ 
  2. "পর্তুগালে দাবানলের ঘটনায় নিহত অন্তত ৫৭ জন"। সংগৃহীত ১৯ জুন ২০১৭ 
  3. "পর্তুগালে দাবানলে নিহত ২৪"। সংগৃহীত ১৯ জুন ২০১৭