চার্লস ক্যানিং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দ্যা রাইট অনারেবল
দ্যা আর্ল ক্যানিং
KG GCB KSI PC
Charles John Canning by Richard Beard, 1840s.jpg
১৮৫৬ সালে রিচার্ড ব্রেয়াডের তোলা ক্যানিং এর ছবি
ভারতের গভর্ণর-জেনারেল
কাজের মেয়াদ
২৮ ফেব্রুয়ারি ১৮৫৬ – ২১ মার্চ ১৮৬২
সার্বভৌম শাসকQueen Victoria
প্রধানমন্ত্রীThe Viscount Palmerston
The Earl of Derby
পূর্বসূরীThe Marquess of Dalhousie
উত্তরসূরীThe Earl of Elgin
Postmaster General
কাজের মেয়াদ
5 January 1853 – 30 January 1855
সার্বভৌম শাসকQueen Victoria
প্রধানমন্ত্রীThe Earl of Aberdeen
পূর্বসূরীThe Earl of Hardwicke
উত্তরসূরীThe Duke of Argyll
First Commissioner of Woods and Forests
কাজের মেয়াদ
2 March 1846 – 30 June 1846
সার্বভৌম শাসকQueen Victoria
প্রধানমন্ত্রীSir Robert Peel, Bt
পূর্বসূরীThe Earl of Lincoln
উত্তরসূরীViscount Morpeth
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মBrompton, London
মৃত্যু১৭ জুন ১৮৬২(1862-06-17) (বয়স ৪৯)
Grosvenor Square, London
জাতীয়তাBritish
রাজনৈতিক দলConservative
Peelite
দাম্পত্য সঙ্গীHon. Charlotte Stuart
(1817–1861)
প্রাক্তন শিক্ষার্থীChrist Church, Oxford

চর্লস জন ক্যানিং, ১ম আর্ল ক্যানিং KG GCB KSI PC (১৪ ডিসেম্বর ১৮১২ থেকে ১৭ জুন ১৮৬২), দ্যা ভিসি কাউন্ট ক্যানিং নামেও পরিচিত। ১৮৩৭ থেকে ১৮৫৯ সাল পর্যন্ত সিপাহী বিদ্রোহের সময় ভারতের গভর্ণর-জেনারেল ছিলেন।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

লন্ডনের নিকট ব্রম্পটনে লর্ড ক্যানিং এর জন্ম।[১] তিনি পিতা জর্জ ক্যানিং এবং মাতা জোয়ান ক্যানিং এর কনিষ্ঠ সন্তান ছিলেন। তিনি অক্সফোর্ডের ক্রাইস্ট চার্চে পড়াশুনা করেন। ১৮৩৩ সালে ক্ল্যাসিকসে ১ম শ্রেনী এবং গণিতে ২য় শ্রেনীতে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন।

কর্ম জীবন ও মৃত্যু[সম্পাদনা]

চার্লস ক্যানিং ১৮৩৬ সালে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের হাউজ অব কমন্সের সদস্য নির্বাচিত হন। ১৮৩৭ সালে তার মাতার মৃত্যুর পর তিনি হাউজ অব লর্ডসের সদস্য হন। তিনি ব্রিটিশ সরকারের পররাষ্ট্র বিষয়ক অধীন সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। ১৮৪৭-৪৯ সালে চার্লস ক্যানিং ব্রিটিশ রাজকীয় জাদুঘরের কমিশনে কাজ করেন।[২] তিনি গ্রেট ব্রিটেনের পোষ্ট মাষ্টার জেনারেল হিসাবে কাজ করেন এবং তার প্রশাসনিক দক্ষতার পরিচয় দেন। ১৮৫৬ সালের ফ্রেব্রুয়ারিতে তিনি ভারতের গভর্নর-জেনারেল হিসাবে নিয়োজিত হন। ১৮৫৭ সালে ভারতে সিপাহী বিদ্রোহের সূচনা হয়। বিদ্রোহের আগে ক্যানিং এবং তার স্ত্রী ভারতের অধিবাসীদের উপর একটি চিত্র জরিপ করেন। শুরুতে এর উদ্দেশ্য ছিল ভারত সম্পর্কে তাদের নিজেদের জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করা। পরবর্তীতে ১৮৬৮ এবং ১৮৫৭ সালে পিপল অব ইন্ডিয়া নামে আটটি খন্ডের পুস্তক আকারে প্রকাশিত হয়।[৩] সিপাহী বিদ্রোহের সময় তার সাহসী ভূমিকার জন্য তিনি প্রশংসিত হন এবং ১৮৫৮ সালে ভারতের প্রথম ব্রিটিশ ভারতের ভাইসরয় হিসাবে নিয়োজিত হন। ১৮৫৯ সালের এপ্রিল মাসে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের উভর কক্ষ থেকে সিপাহী বিদ্রোহের সময় তার অসামান্য অবদানের জন্য ধন্যবাদ দেয়া হয়। একই সাথে তাকে অর্ডার অব বাথ উপাধী প্রদান করা হয়। একই বছর মে মাসে তাকে আর্ল উপাধী প্রদান করে হয়। এরপর তিনি আর্ল ক্যানিং নামে পরিচিত হন। অতিরিক্ত পরিশ্রমের জন্য তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। ইতিমধ্যে তার স্ত্রী মারা যান। ১৮৬২ সালের এপ্রিল মাসে তিনি ইংল্যান্ডে ফিরে আসেন। ১৭ জুন তিনি লন্ডনের মারা যান। মৃত্যূর এক মা আগে তাকে নাইট অব গার্টার উপাধীতে ভূষিত করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Charles John Canning, Earl Canning"Community Trees। ১৫ জুলাই ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০১২ 
  2. The Life of Sir Anthony Panizzi, Volume 1, by Louis Alexander Fagan, p257
  3. Metcalf, Thomas R. (১৯৯৭)। Ideologies of the Raj। Cambridge: Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 117। আইএসবিএন 978-0-521-58937-6। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১১