গাজী শাহজাহান জুয়েল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

গাজী মোহাম্মদ শাহজাহান জুয়েল (Gazi Mohammed Shahjahan Jwel Mp) একজন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল এর রাজনীতিবিদ, সমাজকর্মী ও, চট্টগ্রাম-১১ (বর্তমান চট্টগ্রাম-১২) এর সাবেক সংসদ সদস্য [১]

গাজী মোহাম্মদ শাহজাহান জুয়েল
Shajahan jewel.jpg
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১১ই জুলাই ১৯৬১ সাল। চট্টগ্রাম
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল
দাম্পত্য সঙ্গীশামীম আক্তার গাজী
সন্তানগাজী সাদমান সিজান,

গাজী সাদমান জেবিন,

গাজী সাদমান জেরিন।
শিক্ষাচট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। এম.কম (ম্যানেজমেন্ট)।
প্রাক্তন শিক্ষার্থীচট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
পেশারাজনীতিবীদ ও সমাজকর্মী

জন্ম, শিক্ষা এবং পরিবারিক জীবন[সম্পাদনা]

গাজী মোহাম্মদ শাহজাহান জুয়েল। তার ডাক নাম জুয়েল। জুয়েল নামেই তিনি বেশি পরিচিত ।

তিনি চট্টগ্রাম সরকারী কমার্স কলেজ থেকে বি-কম এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম.কম (ম্যানেজমেন্ট) ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি এম-কম প্রিলিমিনারী ডিগ্রি পরীক্ষায় ১ম স্থান অধিকার করেন।

চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া উপজেলার এয়াকুবদন্ডী গ্রামে ১৯৬১ সালে জন্মগ্রহণ করেন, পিতা আলহাজ্ব আহমদ নবী ও মাতা আমেনা বেগম। তার স্ত্রী শামীম আক্তার গাজী ।

তিনি এক পুত্র ও দুই মেয়ের জনক।তার পুত্র গাজী সাদমান সিজান কানাডার ইউনিভারসিটি অব টরেন্টো থেকে হিউম্যান রিসোর্স এন্ড ইনটারন্যাশনাল রিলেশনে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। তার বড় মেয়ে গাজী সাদমান জেবিন ইংল্যন্ডের লাংকেস্টার ইউনিভারসিটি থেকে এল-এল-বি ডিগ্রি অর্জন করেন। এখন বার-এট-ল ডিগ্রি অর্জনে অধ্যয়ন রত । তার ছোট মেয়ে গাজী সাদমান জেরিন কানাডার ইউনিভারসিটি অব টরেন্টো এ সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং এ অধ্যয়ন রত ।

সংসদ সদস্য নির্বাচিত[সম্পাদনা]

গাজী মোহাম্মদ শাহজাহান জুয়েল  চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া উপজেলার সংসদীয় আসন [ চট্টগ্রাম-১১ ] বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল এর মনোনয়ন নিয়ে। ১৯৯৬ সালে ১ম ও ২০০১ সালে ২য় বারের মতো জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন ।

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

গাজী মোহাম্মদ শাহজাহান জুয়েল  জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল এর প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলকে সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের মাঝে সংগঠিত করার জন্য ছুটে যেতেন চট্টগ্রামের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ।

তিনি ১৯৭৯ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল চট্টগ্রাম মহানগর শাখার প্রতিষ্টাতা যুগ্ন-আহবায়ক হিসেবে  রাজনৈতিক জীবন শুরু করেন। সে থেকে একের পর একচট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবদলের আহবায়ক, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির দপ্তর  সম্পাদক ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ।

বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল  জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এরশাদ বিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে মিছিল থেকে গ্রেফতার হয়েছিলেন তিনি তৃণমূল পর্যায় থেকে উঠে এসে জাতীয় সংসদ সদস্য হয়েছেন ।

রাজনৈতিক সভা, সংসদে এবং টকশো তে ভালো বক্তা হিসেবে তার অনেক সুনাম রয়েছে।

সাংস্কৃতিক জীবন[সম্পাদনা]

তিনি ছাত্রজীবন থেকে সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন, ঢাকা থিয়েটার আর্ট এর সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন,

তিনি টিভি নাটকে ও অভিনয় করেন, সুখেরঠিকানা & নিখোঁজ সংবাদ এর মধ্যে অন্যতম।

এছাড়াও তিনি নিয়মিত কবিতা ও লিরিক লিখেন ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "15 BNP candidates in Ctg, one for alliance"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ৩০ নভেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০১৯ 

৩. https://amarmp.com/election/result/electoral?seat_id=330&year=1996

৪. https://amarmp.com/election/result/electoral?seat_id=330&year=2001

৫.http://archive.thedailystar.net/2005/12/08/d51208060160.htm

৬.https://bdnews24.com/bangladesh/2005/06/23/process-for-construction-of-3rd-karnaphuli-bridge-has-started-morshed-khan

৭.https://www.youtube.com/watch?v=FD-EFzEMGMY